এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > তিনি আছেন ,প্রমান দিলেন নিজে – কালী মন্দিরে চুরি করতে এসে ঘটলো অলৌকিক কান্ড

তিনি আছেন ,প্রমান দিলেন নিজে – কালী মন্দিরে চুরি করতে এসে ঘটলো অলৌকিক কান্ড



শতাব্দী প্রাচীন কালী মন্দিরে চুরি করতে গিয়ে অবিশ্বাস্য ঘটনার মুখোমুখি হলো স্বয়ং চোর। অশোকনগরের ৩০০ বছরেরও বেশি পুরনো এই কালী মন্দিরে মা কালি ভারী সোনার গয়নায় সুসজ্জিতা। সেখানেই ঘটলো এমন অবাক করা আজব কাণ্ড। অশোকনগর থানার শেরপুর কালী মন্দির। চোরের পরিকল্পনা ছিলো এই মন্দিরের গয়না চুরি করার। সেই মত কালী মন্দিরে উপস্থিত হয়েছিলো তিনজন চোর। রাতে অন্ধকার চারিদিক নিস্তব্ধ। তিনজন চোর মন্দিরের তালা ভাঙতে গিয়েই বাধার মুখে পড়লো। কিছুতেই তালা ভাঙা গেলোনা। কিন্তু চুরি তো করতেই হবে এত পরিশ্রম করে যখন মন্দির প্রাঙ্গনে এসে উপস্থিত হওয়া গেছে । তাই বহু চেষ্টার পরে দরজা ফাঁক করে তিন জন চোরের একজন কোনোমতে ভিতরে ঢুকতে পারলো। আর বাকি দুজন তার জন্যে বাইরে বাইক নিয়ে অপেক্ষা করতে থাকে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

আর ঠিক গল্পের মতোই ঐ সময়েই মন্দিরে ঠাকুর প্রণাম করতে উপস্থিত হলেন অশোকনগর থানার এক পুলিশ অফিসার। এদিকে বাইরে অপেক্ষারত দুই চোর তখন নিজেদের প্রাণ বাঁচাতে ভিতরের সাগরেদকে ফেলে রেখেই চম্পট দিলো। আর মন্দিরের গর্ভ গৃহের ভেতরে যে চুরি করতে ঢুকেছে তার বেরনোর কোনো সুযোগ রইলো না । দরজা ফাঁক করে ঢুকে তো গিয়েছিলেন তিনি বেরতে পারলেন না। এই কান্ড থেকে কার্যত অবাক হয়ে যান অশোকনগর থানার ওই সাব ইনসপেক্টরও। তারপরে পুলিশ কোনোক্রমে মন্দিরের দরজার ফাঁক করে অভিযুক্ত কে টেনে বের করে আনে। এদিনের ঘটনায় পুলিশ চুরির চেষ্টার অভিযোগে এক জনকে আটক করেছে। এবং ঐ বাইককে আটক করেছে। তাই স্বীনদের ধারণা যে মা-ই নিজের অলোকিক শক্তি দিয়ে এই কাজ করেছেন।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!