এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > ২০২১ এ ফের ক্ষমতায় ফিরতে তৃণমূলের বড়সড় ভরসা যুব, নেত্রীর বিশেষ বৈঠক!

২০২১ এ ফের ক্ষমতায় ফিরতে তৃণমূলের বড়সড় ভরসা যুব, নেত্রীর বিশেষ বৈঠক!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বর্তমান রাজনীতির ক্ষেত্র এতটাই কলুষিত হয়ে পড়েছে যে সাধারণ মানুষ রাজনীতি থেকে ক্রমেই উৎসাহ হারিয়ে ফেলছেন। বিশেষত তরুণ প্রজন্ম বর্তমানে একেবারেই রাজনীতি বিমূখ । এমন নানা কথা যখন শুনতে পাওয়া যায় সমাজের বিভিন্ন মহল থেকে, তখন গতকাল রবিবার, এর ঠিক বিপরীত চিত্র দেখতে পাওয়া গেল। গতকাল রবিবার মালদা কলেজ অডিটোরিয়ামে এক সম্মেলনে কলেজ পড়ুয়া বহু শিক্ষার্থী সমকালীন রাজনীতি বিষয়ে জ্ঞান লাভের উদ্দেশ্য উপস্থিত হলেন।

প্রসঙ্গত গতকাল মালদা তৃণমূল জেলা সভানেত্রী ও সেইসঙ্গে রাজ্যসভার তৃণমূল সাংসদ মৌসুম নূর। মালদহ কলেজ অডিটোরিয়ামে কলেজ পড়ুয়া ছাত্র ছাত্রীদের নিয়ে একটি বিশেষ বৈঠকের আয়োজন করেছিলেন। এই বৈঠকে সমকালীন রাজনীতি সম্পর্কে জ্ঞান লাভের উদ্দেশ্যে তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্বের কাছে আবেদন জানাতে দেখা গেল বেশ কিছু কলেজ পড়ুয়া ছাত্র ছাত্রীকে। তাদের আবেদনকে সম্মতি জানিয়ে তাদের মূল্যবোধ ও উন্নয়নের রাজনীতি বিষয়ে হাতে-কলমে শিক্ষাদানের অঙ্গীকারও করলেন মালদহ জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব।

ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে অনুষ্ঠিত এই সম্মেলনে মালদহ তৃণমূল জেলা সভানেত্রী ও সেইসঙ্গে রাজ্যসভার সাংসদ সদস্য মৌসম নুর মুখ্যমন্ত্রীর রাজনৈতিক আদর্শকে বিশেষ প্রশংসা ও শ্রদ্ধা জানিয়ে বললেন, “মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে তরুণ-তরুণীদের এক নতুন দিশা দেখিয়েছেন।” এ প্রসঙ্গে তিনি আরো জানালেন যে, মুখ্যমন্ত্রী অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার পাশাপাশি, রাজ্যের উন্নতি সাধনের জন্য বহু উন্নয়ন মূলক পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন ।

সেই সঙ্গে তিনি মানুষের সেবার কাজে আত্মনিয়োগ করেছেন। মুখ্যমন্ত্রীর রাজনীতির আদর্শ ও সমাজ সেবায় অনুপ্রাণিত হয়েই রাজনীতির প্রতি উৎসাহ হারিয়ে ফেলা তরুণ প্রজন্ম আবার নতুন করে রাজনীতির প্রতি আকৃষ্ট হচ্ছেন। রাজনীতির শিক্ষা গ্রহণ করতে উৎসুক ছাত্র-ছাত্রীদের সাহায্যের আশ্বাসও দিয়েছেন মৌসম নূর।

মালদহের জনৈক তরুণ শিক্ষার্থী সুব্রত বিশ্বাস কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনস্থ একটি কলেজে কেমিস্ট্রি অনার্স নিয়ে পড়াশোনা করছেন। লকডাউন বলবৎ থাকার কারণে এখন তিনি নিজের মালদার বাড়িতেই অবস্থান করছেন। লকডাউনের এই অবসরে সিনেমা দেখা, ভিডিও গেম খেলার পাশাপাশি রাজনৈতিক বিষয়ে তাঁর বিশেষ উৎসাহ থাকায় নিয়মিত খবরের কাগজও পড়েন তিনি।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

প্রসঙ্গত তিনি জানান, তৃণমূল দলের যুবনেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বাংলার যুবাদের রাজনীতিতে অংশগ্রহণের জন্য একটি বিশেষ বার্তা জানিয়েছিলেন। তিনি আরো জানান যে, মুখ্যমন্ত্রীর রাজনৈতিক কাজকর্ম তাকে বিশেষ ভাবে উৎসাহিত করেছে। এ কারণেই তাকে বলতে শোনা গেল, ” আগামীদিনে রাজনৈতিক কাজকর্মে আরও বেশি করে যুক্ত থাকার উদ্দেশ্যে সঠিক অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করার জন্যই রীতিমতো আবেদন করে তৃণমূলের সঙ্গে থাকার অঙ্গীকার করেছি আজ। ”

 

অন্যদিকে এই সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মালদহ জেলার জনৈক শিক্ষার্থী বৈশাখী পান্ডে। যিনি পূর্বে এডুকেশনের অনার্স সম্পন্ন করেছেন। মুখ্যমন্ত্রী কে শ্রদ্ধা জানিয়ে তাকে বলতে শোনা গেল, ” একজন নারী হিসাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমাকে প্রেরণা দেন। তাঁর কর্মপন্থা ও রাজনৈতিক উত্তরণের ইতিহাস শিখতে তৃণমূলকেই আমার উপযুক্ত প্ল্যাটফর্ম বলে মনে হয়েছে। তাই এই সুযোগ কাজে লাগাতে চাইছি।”

তবে রাজ্যের সাম্প্রতিক করণা পরিস্থিতিতে সামাজিক দূরত্ব বিধি বলবৎ থাকা অবস্থায় মালদা কলেজ অডিটোরিয়ামে শাসকদল তৃণমূলের এই বিশেষ কর্মসূচি পালন কতটা যুক্তিযুক্ত সেবিষয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিভিন্ন বিরোধী দল। এ প্রসঙ্গে বামফ্রন্টের মালদা জেলা আহ্বায়ক অম্বর মিত্র জানান, ” করোনার মধ্যে কলেজ অডিটরিয়াম ব্যবহার করে তৃণমূল রাজনৈতিক কর্মসূচী পালন করায় আমরা স্তম্ভিত। সব রাজনৈতিক দলই করোনা পরিস্থিতিতে এই অডিটরিয়াম ব্যবহার করার অনুমতি পাবে কি না, আমরা তা নিয়ে প্রশ্ন তুলব।”

তবে করোনা পরিস্থিতিতে শাসকদলের কলেজের অডিটোরিয়াম ব্যবহার করার বিষয়ে মালদা কলেজ কর্তৃপক্ষর কতটা সমর্থন রয়েছে, সে সম্পর্কে এখনো কিছু জানা যায়নি। এ বিষয়ে একাধিক বার মালদা কলেজের অধ্যক্ষ মানস বৈদ্যকে ফোন করা হলেও, কোন উত্তর পাওয়া যায় নি, এমনকি এ বিষয়ে চিঠি পাঠিয়েও কোন উত্তর আসেনি।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!