এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > মুখ্যমন্ত্রী, আপনি নিজে দেখুন, নিজে কন্ট্রোল করুন – আর একটাও যেন প্রাণ না যায়: জয় ব্যানার্জি

মুখ্যমন্ত্রী, আপনি নিজে দেখুন, নিজে কন্ট্রোল করুন – আর একটাও যেন প্রাণ না যায়: জয় ব্যানার্জি



মাঝেরহাট ব্রিজ দুর্ঘটনায় প্রাণ হারানো সৌমেন বাগের বাড়িতে গতকাল বিজেপির বস্তি উন্নয়ন সেলের তরফে শোক ও সমবেদনাজ্ঞাপনের ব্যবস্থা করা হয়। সৌমেন বাগের বাড়িতে বস্তি উন্নয়ন সেলের প্রতিনিধিদলের তরফে জ্যেষ্ঠ অভিভাবকের মত শোকাতুর পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন বিজেপির ন্যাশনাল কমিটির মেম্বার জয় বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর সঙ্গে ছিলেন বিজেপির জেলা সভাপতি সোমনাথ ব্যানার্জি, বস্তি উন্নয়ন সেলের রাজ্য আহ্বায়ক আওয়াদ কিশোর গুপ্ত, সহ-আহ্বায়ক কাজল ভৌমিক সহ অন্যান্য নেতারা।

জয় বন্দ্যোপাধ্যায় শোকাতুর পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে মৃত সৌমেন বাগের মা-বাবা ও অন্যান্য পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলেন। তিনি মৃতের পরিবারকে শোকজ্ঞাপন ও সমবেদনা জানানোর পাশাপাশি বলেন, এর থেকে দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা তো আর কিছু হয় না – তবে আমি বা আমরা এখানে কোনো রাজনীতি করতে আসিনি। তবে, আমি ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্টের কেন্দ্রীয় সরকারের কমিটিতে আছি, আগামীকাল আমাকে দিল্লি যেতে হবে তার আগে আপনাদের সঙ্গে কথা বলতে এলাম যদি কোন কিছু আপনাদের বলার থাকে। এই কঠিন সময়ে, পরিবারের ভবিষ্যৎ-অর্জনকারী মুখ এইভাবে অকালে চলে যাওয়ায় দিশেহারা পরিবার জয়বাবুর কাছে অনুরোধ করেন যদি পরিবারের জন্য একটি সরকারি চাকরির ব্যবস্থা করে দেওয়া যায়।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এরপরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে জয় বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, মাঝেরহাট ব্রিজ কান্ড অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক, অত্যন্ত মর্মান্তিক, অত্যন্ত বেদনাদায়ক – ভাষা আমি খুঁজে পাচ্ছি না, কারণ আমিও বাকরুদ্ধ হয়ে গেছি। ঐদিন ওই ব্রিজ ভেঙে পড়ার ঠিক ১০ মিনিট আগে আমিও ওই ব্রিজ দিয়ে গেছি – এই ব্রিজ বহু পুরোনো ও এককথায় প্রায় ঐতিহাসিক। আমি শুধু একটাই কথা বলব, লাল-সাদা বোমা মেরে আর আর নীল-সাদা ব্রিজ ভাঙিয়ে আর কত লোককে মারবে টিএমসি সরকার?

এরপর তিনি সমগ্র ঘটনার দায় রাজ্য সরকারকে নিতে বলার পাশাপাশি জানান, আমাদের মুখ্যমন্ত্রী সাহেবা, যাঁকে আমি অত্যন্ত শ্রদ্ধা করি – ৯ কোটি মানুষের আজ উনি অভিভাবক, প্রত্যেকটা মানুষের ইঞ্চি ইঞ্চি জমির উনি আজ মালিক। তবে, আপনারা সিন্ডিকেট-বাজিতে, দুর্নীতিতে পশ্চিমবঙ্গকে আজ ভরিয়ে দিয়েছেন। জলে-ভাগাড়ে-ভেড়িতে-জমিতে – কোথায় না আজ সিন্ডিকেট? আপনার সরকার বিদেশ থেকে কোনো বাহবা পেলে সেটা যেমন সারা রাস্তা জুড়ে লেখা থাকে, অর্থাৎ কৃতিত্ত্ব আপনার – তেমনই এই ব্রিজ ভাঙার দায়ও আপনাদের নিতে হবে।

এরপর জয় বন্দ্যোপাধ্যায় এক প্রকার করজোড়ে অনুরোধ করে বলেন, আমার নিজের ক্ষুদ্রবুদ্ধিতে যেটুকু মনে হচ্ছে – যখন ব্রিজগুলি বানানো হয়েছিল তখন কেউ ভাবেনি কলকাতায় এত গাড়ি চলবে। আর তাই, ব্রিটিশ, কংগ্রেস আমলের বা বামফ্রন্ট – যার আমলেই এই ব্রিজগুলি তৈরী হোক, অভিভাবক হিসাবে পুরোনো ব্রিজগুলি সারাবার ব্যবস্থা করুন। আর, যেগুলি পুরোনো ব্রিজ আছে সেগুলির রক্ষণাবেক্ষনে বা নতুন ব্রিজ যেগুলি তৈরী হচ্ছে সেখানে যেন কোন ফাঁকফোকর বা দুনম্বরি না থাকে। মুখ্যমন্ত্রী, আপনি নিজে দেখুন, নিজে কন্ট্রোল করুন – আর যেন একটা মানুষও এইভাবে ব্রিজ দুর্ঘটনায় মারা না যান আপনি সেটা দয়া করে দেখুন।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!