এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বিজেপিতে যোগ দিতেই চরম অস্বস্তিতে পড়তে চলেছেন সিন্ধিয়া! জেনে নিন!

বিজেপিতে যোগ দিতেই চরম অস্বস্তিতে পড়তে চলেছেন সিন্ধিয়া! জেনে নিন!



 

ভারতবর্ষ গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র বলে দাবি করেন সেখানকার রাজনীতিবিদরা। কিন্তু কোনো একটি শাসক দল থেকে যদি কেউ বিরোধী দলে নাম লেখান, তাহলেই তার বিরুদ্ধে শাসকদলের পক্ষ থেকে নেওয়া হয় বদলা। প্রায় বিভিন্ন রাজ্যে এই ধরনের নিদর্শন রয়েছে। আর এবার কংগ্রেস ছেড়ে ভারতীয় জনতা পার্টিতে মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেস সরকারের পক্ষ থেকে জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া বিরুদ্ধে নেওয়া হল পদক্ষেপ।

সূত্রের খবর, এই জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার বিরুদ্ধে জমি বিক্রির ক্ষেত্রে নথিপত্র জাল করার অভিযোগ রয়েছে। কিন্তু সেই অভিযোগ 2014 সালের হলেও, এখন তিনি ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগ দেওয়ায় তাকে অস্বস্তিতে ফেলতে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে এই ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে বলেই মত রাজনৈতিক মহলের।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত 2014 সালে সুধীন্দ্র শ্রীবাস্তব, জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার মা মাধবী রাজ সিন্ধিয়ার থেকে জমি নেওয়ার সময় রেজিস্ট্রি প্রক্রিয়ায় একটি জালিয়াতি ধরা পড়ে যায়। আর এর পরেই সেই জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া সহ তার পরিবারের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের হয়। কিন্তু এতদিন সেভাবে এই ব্যাপারে কোনো পদক্ষেপ না গ্রহণ করলেও, এবার এই হেভিওয়েট কংগ্রেস নেতা বিজেপিতে যোগদান করার পরেই মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেস সরকারের পক্ষ থেকে সেই মামলা খোলা হচ্ছে বলে দাবি একাংশের।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার ঘনিষ্ঠ পঙ্কজ চতুর্বেদী বলেন, “গোটা ঘটনায় যে রাজনৈতিক প্রতিশোধ তুলতে সংগঠিত করা হয়েছে, তা বোঝাই যাচ্ছে। জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া বিজেপিতে যোগ দিতেই এমন পুরনো মামলা খুলতে শুরু করেছে মধ্যপ্রদেশের সরকার।” রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরেই অনেক কংগ্রেস বিধায়ক ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগ দিতে পারেন বলে দাবি করা হচ্ছে।

আর এই ঘটনা যদি সত্যি হয়, তাহলে মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেস সরকার ভেঙে পড়বে। তাই নিজেদের বাঁচাতে এখন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়াকে চাপে ফেলে অন্যান্যদের বার্তা দিতে চাইছে কংগ্রেস। কিন্তু এতসব করেও প্রতিহিংসার রাজনীতি করা কংগ্রেস এখন নিজেদের সরকার কতটা টিকিয়ে রাখতে পারে এবং জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়াকে কতটা বিপাকে ফেলে, তার দিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!