এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > আজকেই বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা, জোর শোরগোল রাজ্যে

আজকেই বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা, জোর শোরগোল রাজ্যে



অবশেষে কি আজই সমস্ত জল্পনার অবসান ঘটতে চলেছে! নিজের হাতে তৃণমূলকে সাজিয়ে তোলা দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার সাংগঠনিক রূপকার বিপ্লব মিত্র কি অবশেষে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখাতে চলেছেন! সূত্রের খবর, আর কিছুসময়ের মধ্যে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের প্রাক্তন সভাপতি তথা বর্তমান তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা বিপ্লব মিত্র নিজের হাতে গেরুয়া শিবিরের পতাকা তুলে নিতে চলেছেন। তবে প্রকাশ্যে অবশ্য এখনই কেউ এভাবে ব্যাপারে মুখ খুলতে নারাজ।

গতকাল থেকে বিপ্লব মিত্র এবং তার ভাই তথা গঙ্গারামপুর পৌরসভার চেয়ারম্যান প্রশান্ত মিত্রের ফোনে একাধিকবার ফোন করলেও তাদের দুজনের ফোনই সুইচ অফ পাওয়া গেছে। শুধু তাই নয়, সারা দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার কোথাও এদিন প্রশান্ত বাবু এবং তার মেজদা বিপ্লব মিত্রকে দেখা যায়নি।

দিল্লিতে বিপ্লব মিত্র

ফলে লোকসভা ভোটের ভরাডুবির পর তৃণমূল প্রার্থী অর্পিতা ঘোষের হারের পেছনে বিপ্লব মিত্রই দায়ী বলে অভিযোগ করে তাকে জেলা তৃণমূলের সভাপতি পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অস্বস্তিকে যে সেই বিপ্লব মিত্র দ্বিগুণ ভাবে বাড়িয়ে দিতে চলেছে, সেই ব্যাপারে একপ্রকার নিশ্চিত দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার রাজনৈতিক মহল।

জানা গেছে  আজই দিল্লিতে বিপ্লব মিত্র এবং তার অনুগামীরা বিজেপিতে যোগ দেবেন। যেখানে তার সাথে রয়েছেন গঙ্গারামপুর ও বুনিয়াদপুর পৌরসভার তৃণমূল কাউন্সিলর এবং দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদের একাধিক সদস্য। জানা গেছে যে তিনি কৈলাশ বিজয়বর্গীও ও মুকুল রায়ের হাত ধরে বিজেপিতে যোগ দেবেন।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এদিন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিপ্লব অনুগামী বলে পরিচিত জেলা পরিষদের‌ এক কর্মাধক্ষ বলেন, “দলের জন্মলগ্ন থেকে মেজদা জেলায় দলটাকে প্রতিষ্ঠা করেছেন। তার হাত ধরেই দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় তৃণমূলের সংগঠন তৈরি হয়েছে। আজকে তাকে বাদ দিয়ে বহিরাগত একজনকে জেলা সভাপতি করে যেভাবে মেজদাকে অপমানিত করা হল, তাতে মেজদা ভীষণ দুঃখিত এবং মর্মাহত। উনি আর এখানে সম্মান পাচ্ছেন না। বিজেপি যদি ওনাকে সম্মান দেয় তাহলে তিনি ওখানে যেতেই পারেন। আমরা সবাই মেজদার সাথে আছি।”

আর এই ঘটনাতেই এবার রাজনৈতিক মহলে শুরু হয়েছে চাঞ্চল্য। দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার একদম বুথ লেভেলের কর্মীদেরকে চেনা বিপ্লব মিত্র যদি তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে নাম লেখান, তাহলে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূল সভাপতি অর্পিতা ঘোষের কপালে যে বড়সড় চিন্তার ভাঁজ পড়তে চলেছে, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত প্রায় প্রত্যেকেই। তবে তৃণমূলের একাংশের বক্তব্য, দলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই শেষ কথা। তাই নেত্রীর ছবি সরিয়ে নিলে কারও দু’পয়সা দাম থাকবে না।

তবে আশ্চর্যজনকভাবে যারা এখন এই কথা বলছেন, সেই তারাই একসময় বিপ্লববাবু ছাড়া কার্যত দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা রাজনীতিতে অচল ছিলেন। কেননা এই জেলায় প্রায় প্রত্যেকেই যারা এখন তৃণমূল করেন, তাদের সিংহভাগই বিপ্লব মিত্রের হাত ধরে রাজনীতির ময়দানে এসেছেন।

ফলে একসময় নিজেদের রাজনৈতিক গুরু বলে পরিচিত বিপ্লব মিত্রকে এখন সেই তারাই রাজনীতিতে অচল করে দিতে চাইলেও রাজনৈতিক বিপ্লব মিত্র বিজেপিতে নাম লিখিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে আদৌ বিস্ফোরণ ঘটান কিনা, এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!