এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > জল্পনার মাঝেই মুর্শিদাবাদ সফরে শুভেন্দু, ‘অন্ধকারে’ প্রশাসন? রাজনৈতিক ঝড়ের অপেক্ষায় রাজ্য?

জল্পনার মাঝেই মুর্শিদাবাদ সফরে শুভেন্দু, ‘অন্ধকারে’ প্রশাসন? রাজনৈতিক ঝড়ের অপেক্ষায় রাজ্য?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – শুভেন্দু অধিকারী! এই একটি নাম রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের কাছে বারবার চাপা আশঙ্কার কারণ হয়ে দেখা দিচ্ছে। রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী হলেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি এখনও রাজ্য সরকারের মন্ত্রী আছেন, এখনো তিনি শাসক দলে আছেন লিখিত ভাবে। আবার, দলের বিরুদ্ধে প্রত্যক্ষভাবে কোন বক্তব্য রাখছেন না তিনি। এমনকি, দলের কোনো নেতা- মন্ত্রীকে প্রত্যক্ষভাবে কটাক্ষও তিনি করেননি। কিন্তু, তাঁকে নিয়েই বাড়ছে দলের মাথাব্যথা।

দলকে না জানিয়েই বারবার জনসংযোগ মূলক কর্মসূচি করতে দেখা যাচ্ছে তাঁকে। বারবার চলছে তাঁর এই দলহীন জনসংযোগ। আবার, মঞ্চ থেকে সরাসরি না হলেও ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে তাঁর একাধিক ক্ষুরধার বক্তব্য চাপা আশঙ্কা সৃষ্টি করছে শাসক দল তৃণমূলে। এই পরিস্থিতিতে মুর্শিদাবাদ জেলার বেলডাঙ্গায় গতকাল এক ঝটিকা সফরে এলেন শুভেন্দু অধিকারী। তবে, আশ্চর্যের বিষয় শুভেন্দু অধিকারীর এই ঝটিকা সফরের কথা জানত না শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস ও মুর্শিদাবাদ জেলা প্রশাসন। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে তাই আবারও নানা প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

কিন্তু, একটা সময় রাজ্যের শাসকদল তৃণমূলের একজন দাপুটে যোদ্ধা ছিলেন পরিবহন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। বিভিন্ন জেলার পর্যবেক্ষক ছিলেন। জেলায় জেলায় সাফল্যের সঙ্গে দলের বিস্তারও ঘটান তিনি। কিন্তু গত ২১ সে জুলাইয়ের পর শাসক দল তৃণমূলের সংগঠনগত পরিবর্তনের পর একাধিক জেলার ক্ষমতা হারান তিনি। এরপর দলের প্রতি সরাসরি কিছু না বললেও, ধীরে ধীরে দলের সঙ্গে সম্পর্ক গুটিয়ে নিতে শুরু করে তিনি।কিন্তু তাঁর সমাজসেবামূলক কাজকর্ম কিন্তু থেমে নেই। একের পর এক দলহীন জন সংযোগ করছেন তিনি।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

আবার, জনপ্রিয় নেতা হিসেবে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা জুড়ে ছড়িয়ে আছে তাঁর অসংখ্য অনুগামী। অন্য জেলাতেও সম্প্রতি তাঁর অনুগামীদের খোঁজ মিলছে। জেলাজুড়ে তিনি ও তাঁর অনুগামীরা একের পর এক সভা করছেন। সভার উদ্যোক্তাদের নামে থাকছে ‘আমরা দাদার অনুগামী’। কিন্তু এই সভাগুলির সঙ্গে কোন যোগাযোগ নেই শাসকদল তৃণমূলের। সভাগুলিতে তৃণমূলের কোন পতাকাও ব্যবহৃত হতে দেখা যাচ্ছে না। যা নিয়ে নানা রকম প্রশ্ন উঠেছে। অনেকে প্রশ্ন করছেন, শুভেন্দু অধিকারী কি তবে দল ছাড়তে চলেছেন? দলের প্রতি ক্ষুব্ধ হয়ে, তবে এবার কি তিনি যোগ দিতে চলেছেন প্রতিপক্ষ বিজেপিতে? এর কোন উত্তর দেননি পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী।

প্রসঙ্গত, গত বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জন দিতে গিয়ে বেলডাঙ্গায় পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছিল। মৃতদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করে গতকাল শুক্রবার তাঁদের হাতে দু লক্ষ টাকার চেক তুলে দিলেন শুভেন্দু অধিকারী। সেইসঙ্গে বেলডাঙ্গায় ভারত সেবাশ্রম সংঘের মহারাজের সঙ্গেও দেখা করেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। তবে, গতকাল শুভেন্দু অধিকারী মুর্শিদাবাদে গেলেন, এতকিছু করলেন। অথচ তাঁর মুর্শিদাবাদ যাবার কোন আগাম খবরই জানলেন না তৃণমূল নেতৃত্ব।

এই ঘটনায় শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে জল্পনা আরও ছড়ালো। সংবাদপত্রের শিরোনামে বারবার উঠে আসছেন শুভেন্দু অধিকারী। তাঁর রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে নানা মুনির নানা মত। তবে, এ ব্যাপারে তিনি, অন্য কারোর কথা বিশ্বাস না করে, তাঁর কথাই বিশ্বাস করতে বলেছেন। গতকালের এই ঘটনায় আবারো নানা প্রশ্ন উঠতে শুরু করলো। এদিকে চলছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বঙ্গ সফর। শুভেন্দু অধিকারী কি আসছেন বিজেপিতে? স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে, তার উত্তরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন, ” অনেকেই যোগ দিতে চান। দীর্ঘ তালিকা। কারও সঙ্গে আমার কথা হয়নি।” স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এই বক্তব্য জল্পনা আরও ছড়িয়ে দিল। তাহলে কি শুভেন্দু বাবুর সঙ্গে আরো কেউ আছেন, যারা তৃণমূল থেকে বেরিয়ে যেতে চলেছেন? আগামী বিধানসভা নির্বাচনের পূর্বে কি ভাঙ্গন দেখা দেবে তৃণমূলে, এমনি নানা প্রশ্ন ঘুরছে রাজ্যের রাজনীতি মহলে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!