এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুরুলিয়া-ঝাড়গ্রাম-বাঁকুড়া > জেলা নেতারা দিচ্ছেন না আশ্বাস, টিকিট প্রত্যাশীদের সংশয় চরমে!

জেলা নেতারা দিচ্ছেন না আশ্বাস, টিকিট প্রত্যাশীদের সংশয় চরমে!



তৃণমূলের কোন নেতা এবার কোন ওয়ার্ডে টিকিট পাবেন, তা এখন লাখ টাকার প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে সকলের কাছে। গত লোকসভা নির্বাচনে দলের নিচুতলার নেতাকর্মীদের দুর্নীতির জন্য খুব একটা ভালো ফলাফল করতে পারেনি শাসক দল। যার পরে দলের রণনীতিকার হিসেবে প্রশান্ত কিশোর দায়িত্ব নিয়ে নিজের টিমকে দিয়ে বিভিন্ন জায়গায় সমীক্ষা করিয়েছেন। বর্তমানে পৌরসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে নানা জায়গায় সেই টিম সমীক্ষা চালাচ্ছে। যেখানে বর্তমান কাউন্সিলররা কতটা কাজ করেছেন, তা জানার পাশাপাশি কাকে কাউন্সিলর করলে এলাকার মানুষ খুশি হবেন, তার খোঁজখবর নিতে শুরু করেছে সেই প্রশান্ত কিশোরের টিম।

ফলে সেদিক থেকে এই টিমের সমীক্ষায় যাদের নাম উঠে আসবে, তাদের মধ্যেই কাউকে কাউন্সিলারের টিকিট দেওয়া হবে বলে মনে করছেন তৃণমূলের একাংশ। তবে টিকিট প্রত্যাশীরা অবশ্য হাফ ছেড়ে দিতে নারাজ। ইতিমধ্যেই নানা জায়গায় টিকিট পাওয়ার জন্য তৃণমূল নেতাদের ছুটোছুটি শুরু হয়ে গেছে। প্রায় 200 এর মত ব্যক্তি বাঁকুড়া পৌরসভা নির্বাচনে লড়াই করার জন্য জেলা তৃণমূলের কার্যালয়ে তাদের বায়োডাটা জমা করেছেন বলে খবর। আর এই বায়োডাটা জমা করে শীর্ষ নেতাদের হাতে পায়ে ধরে কোনরকমে যাতে টিকিট পাওয়া যায়, তার জন্য চেষ্টা করতে শুরু করেছেন তৃণমূলের সেই সমস্ত নেতাকর্মীরা।

কিন্তু জেলা নেতাদের কাছ থেকেও তারা আশ্বাস পাচ্ছেন না। কেননা জেলা নেতারা নিজেরাই আশ্বাস দেওয়ার জায়গাতে নেই। যার প্রধান এবং প্রথম কারণ প্রশান্ত কিশোরের টিমের সমীক্ষা। কেননা সেই সমীক্ষা মোতাবেক তৃণমূল এবার তাদের প্রার্থী তালিকা তৈরি করবে বলে দাবি একাংশের। সেদিক থেকে কারো কোনো সুপারিশ খাটবে না বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। জানা গেছে, ইতিমধ্যেই এক তৃণমূল কর্মী নিজের স্ত্রীকে প্রার্থী করার ব্যাপারে এক জেলা নেতার কাছে দরবার করতে গিয়েছিলেন। কিন্তু এদিন তিনি বলেন, “নেতারা সাফ বলে দিচ্ছেন, প্রার্থী নির্বাচনে তাদের কোনো হাত নেই।” তাহলে কি প্রশান্ত কিশোরের টিমই প্রার্থী নিয়ে শেষ কথা বলবে!

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে জেলা তৃণমূলের সভাপতি শুভাশিস বটব্যাল বলেন, “আসন্ন পৌরসভা ভোটে তৃণমূলে প্রার্থী হতে ইচ্ছুক মানুষজনকে আমরা স্বাগত জানাচ্ছি। তবে সবাইকে জানিয়ে দিচ্ছি, প্রার্থী নির্বাচনে কারো হাত নেই দল নানা প্রক্রিয়ার মাধ্যমে প্রার্থী বাছাই করতে চলেছে। তাই ব্যক্তিগতভাবে কারও অনুরোধ আমাদের পক্ষে রাখা সম্ভব নয়।” এদিকে তৃণমূলের তরফে প্রার্থী নিয়ে এই কথা বলা হলেও, তাকে পাল্টা কটাক্ষ করেছে ভারতীয় জনতা পার্টি।

এদিন এই প্রসঙ্গে বাঁকুড়া জেলা বিজেপির সভাপতি বিবেকানন্দ পাত্র বলেন, “প্রার্থী বাছাই নিয়ে তৃণমূল এবার যতই সতর্ক হোক না কেন, তা নিয়ে আমাদের মাথা ব্যথা নেই। মানুষ লোকসভা ভোটে ওদের প্রত্যাখ্যান করেছেন। পৌরসভা ভোটেও করবেন বলে আমাদের বিশ্বাস।” তবে বিরোধীদের কটাক্ষের থেকেও, তৃণমূলের নেতাকর্মীদের কাছে এখন সব থেকে বড় চিন্তার বিষয়, নেতাদের কাছে তদবির করেও টিকিট পাওয়ার ব্যাপারে তারা কোনরূপ আশ্বাস পাচ্ছেন না। এখন শেষ পর্যন্ত টিকিট দেওয়ার ব্যাপারে কি সিদ্ধান্ত নেয় তৃণমূল কংগ্রেস, কাদের তদবির খাটে, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!