এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > “জায়গায় জায়গায় শীতলকুচি হবে।” বরানগরের সভা থেকে হুঁশিয়ারি বিজেপির রাজ্য সভাপতির

“জায়গায় জায়গায় শীতলকুচি হবে।” বরানগরের সভা থেকে হুঁশিয়ারি বিজেপির রাজ্য সভাপতির



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – গতকাল শীতলকুচির ঘটনার জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে একাধিকবার দায়ী করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। আজ প্রথমে বেলঘড়িয়ার রোডশো থেকে, এরপর বরানগরের জনসভা থেকেও এই ঘটনায় তিনি দায়ী করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। বরানগরের জনসভা থেকে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানান, শীতলকুচিতে মুখ্যমন্ত্রীর দুষ্টু ছেলেদের গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। এরপর, জায়গায় জায়গায় শীতলকুচি হবে বলে, হুঁশিয়ারি দিলেন তিনি।

বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ অভিযোগ করেছেন যে, যেখানে যেখানে তৃণমূল আছে, সেখানেই নিজের অস্তিত্ব রক্ষার জন্য তারা হিংসার আশ্রয় নিচ্ছে। খুন করা হচ্ছে, বোমা বন্দুকের শব্দ শোনা যাচ্ছে। তিনি অভিযোগ করেছেন, মুখ্যমন্ত্রী নিজেই মানুষকে ক্ষেপিয়ে দেবার চেষ্টা করছেন। মানুষকে উসকে দিচ্ছেন তিনি। তিনি কটাক্ষ করলেন, নির্বাচনে পরাজিত হচ্ছেন জানতে পেরেই, খেলাটাকে মাটি করে দেবার চেষ্টা করছেন তিনি। এর সঙ্গেই দুষ্কৃতিকারীদের রাস্তায় নামিয়ে কেন্দ্রীয় বাহিনীর ওপরে আক্রমণ করাচ্ছেন।

বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানালেন, এসবে মানুষ আর ভয় পাচ্ছেন না। মানুষ লাইনে দাঁড়িয়ে ভোট দিচ্ছেন। বাংলার পরিবর্তনের রাস্তা তৈরি করেছেন মানুষ। কিন্তু মুশকিল হয়ে গেছে মুখ্যমন্ত্রীর। তাঁর গুন্ডা ভাইয়েরা কিছুই করতে পারছে না। যে পুলিশ ভাইদের দিয়ে এতদিন তিনি পার্টির কাজ করিয়ে নিতেন, তারাও বুঝে গেছেন যে, পরিবর্তন আসছে। তাই, তারাও এখন হাত তুলে নিয়েছেন।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এজন্যই মুখ্যমন্ত্রী পুলিশকে গালাগালি করছেন। যে নির্বাচন কমিশন, যে সেন্ট্রাল ফোর্স ও যে ইভিএম মেশিন যার মাধ্যমে জয়লাভ করে তিনি দুবার মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন, দু’তিনটে লোকসভাতেও তিনি আসন জিতেছেন, আজ তার ওপরই তাঁর ভরসা চলে গেছে। কারণ, যে মানুষরা তাঁর পাশে ছিলেন, তারা আজ পেছন থেকে সরে পড়েছেন।

অন্যদিকে তৃণমূলের নতুন স্লোগান ‘বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়’-কেও কটাক্ষ করলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি জানালেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বোর্ড লাগাচ্ছেন বাংলা তার মেয়েকে চায়। কিন্তু তিনি বলতে চান যে, বাংলা তার মেয়েকে চাইছেনা, বাংলা চাকরি চাইছে, রাস্তাঘাট, জল,বিদ্যুৎ, চিকিৎসা, শিল্প চাইছে। আগামী ২ রা মে থেকে মেয়ের বিদায় শুরু হবে বলে, জানালেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

আবার, আজ বেলঘড়িয়ার রোডশো থেকে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন যে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেভাবে ঘুষ খাচ্ছেন, তাতে তাঁর বিরুদ্ধে একটি সুয়োমোটো মামলা হওয়া প্রয়োজন। নির্বাচন কমিশনের উচিত তাঁকে নির্বাচনের প্রচার থেকে বিরত রাখা। অন্যদিকে, গতকাল শীতলকুচির কাণ্ডে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ইস্তফা চেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ প্রসঙ্গে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানান যে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ইস্তফা দেওয়ার প্রয়োজন হবে না। ২ তারিখের পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই পদত্যাগ করবেন।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!