এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > জামাইষষ্ঠীতে মজেছেন জগদীপ ধনকর! শ্বশুরবাড়ির ঠিকানা দিয়ে কটাক্ষ সায়নীর!

জামাইষষ্ঠীতে মজেছেন জগদীপ ধনকর! শ্বশুরবাড়ির ঠিকানা দিয়ে কটাক্ষ সায়নীর!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –   রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান তিনি। তবে সরকারের বিরুদ্ধে তার মাঝেমধ্যেই সরব হওয়ার ঘটনা খুব একটা ভালো চোখে নেয় না তৃণমূল কংগ্রেস। বুধবার মহাসমারোহে রাজ্যজুড়ে পালন করা হচ্ছে জামাইষষ্ঠী উৎসব। শ্বশুরবাড়িতে এসে পাত পেড়ে খাওয়া-দাওয়া করছেন জামাইরা। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দূরে শ্বশুরবাড়ি থাকার কারণে অনেক জামাই বুধবারের জন্য অপেক্ষা করেননি। বুধবার সকালে শ্বশুরবাড়িতে ষষ্ঠী উৎসবে শামিল হওয়ার জন্য অনেকেই নির্ধারিত সময়ের আগে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় পৌঁছে গিয়েছেন শ্বশুরালয়ে আর জামাইষষ্ঠীর উৎসবে যখন মজেছে বাংলা, ঠিক তখনই দিল্লি সফর করতে দেখা গেছে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকারকে।

ইতিমধ্যেই তার এই দিল্লি সফর নিয়ে নানা মহলের পক্ষ থেকে নানা কারণ ব্যাখ্যা করা হচ্ছে। তবে জামাইষষ্ঠীর উৎসবের সময় রাজ্যপালের দিল্লি সফরকে অভিনব আঙ্গিকে কটাক্ষ করলেন সদ্য তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সভানেত্রী দায়িত্ব পাওয়া বিশিষ্ট অভিনেত্রী সায়নী ঘোষ। যেখানে জামাই নিরাপদে শ্বশুরবাড়িতে পৌঁছে গিয়েছেন বলে দাবি করতে দেখা গেল তাকে। অর্থাৎ সূক্ষ্মভাবে রসিকতা করে রাজ্যপালের দিল্লি সফরের মধ্য দিয়ে আক্রমণ করার চেষ্টা করলেন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের রাজ্য সভানেত্রী।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, এদিন রাজ্যপালের দিল্লি সফর নিয়ে একটি টুইট করেন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের রাজ্য সভানেত্রী সায়নী ঘোষ। যেখানে তিনি লেখেন, “গুলকিট নিয়ে জামাই নিরাপদে শ্বশুরবাড়ি পৌঁছে গিয়েছেন।” জানা গিয়েছে, এই গুলকিট শব্দের অর্থ মিথ্যার ঝুড়ি। অর্থাৎ তৃণমূলের পক্ষ থেকে প্রতি সময় অভিযোগ করা হয়, রাজ্যপাল বিজেপির মুখপাত্রের কাজ করছেন।

অর্থাৎ রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে বিরোধিতা করাই প্রধান কাজ রাজ্যপালের। আর এবার জামাইষষ্ঠী উৎসবের সময় যখন দিল্লি সফরে রয়েছেন রাজ্যপাল, তখন মিথ্যার ঝুড়ি নিয়ে তার এই শ্বশুরবাড়ি পৌঁছে যাওয়া বলে বিজেপির সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠতার বিষয়টিই তুলে ধরার চেষ্টা করলেন বিশিষ্ট এই অভিনেত্রী বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। অনেকে বলছেন, রসিকতার ঢঙে সায়নী ঘোষ চরম আক্রমণ করলেন রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধানকে। রেওয়াজ আছে, জামাই ষষ্ঠীর দিনে শ্বশুরবাড়িতে আসার সময় জামাই মিষ্টির হাঁড়ি নিয়ে আসেন।

এক্ষেত্রে মিথ্যার ঝুড়ি নিয়ে রাজ্যপাল জামাইষষ্ঠী পালন করতে দিল্লি পৌঁছে গিয়েছেন বলে বুঝিয়ে দিলেন তিনি। অর্থাৎ একদিকে যেমন বিজেপির সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠতা কতটা রয়েছে, সেই কথা এই ট্যুইটের মধ্যে দিয়ে তুলে ধরার চেষ্টা করলেন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের রাজ্য সভানেত্রী, ঠিক তেমনই সাংবিধানিক প্রধান সব সময় মিথ্যা কথা বলেন, এমনটাও বোঝানোর চেষ্টা করলেন তিনি।

যার ফলে রাজ্যের শাসকদলের সঙ্গে রাজভবনের সম্পর্ক যে আরও তিক্ত হয়ে উঠবে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। সব মিলিয়ে জামাইষষ্ঠীর মুহূর্তে এবার রাজ্যপালকে “জামাই” বলে কটাক্ষ করে তার দিল্লি যাওয়ার পেছনে শ্বশুরবাড়ি যাওয়ার কারণ ব্যাখ্যা করে রীতিমত শোরগোল তুলে দিলেন সায়নী ঘোষ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!