এখন পড়ছেন
হোম > খেলা > IPL শুরু হতেই তীব্র বিতর্কে বোর্ড প্রেসিডেন্ট সৌরভ! এবার করলেন হাত খুলে ‘বাপি বাড়ি যা’!

IPL শুরু হতেই তীব্র বিতর্কে বোর্ড প্রেসিডেন্ট সৌরভ! এবার করলেন হাত খুলে ‘বাপি বাড়ি যা’!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – আইপিএল শুরু থেকে বিতর্কের পর বিতর্কের সূচনা হয়েছে। তবে সেখানে মহারাজের দাদাগিরি কোন অংশে কম যায়নি। কিছুদিন আগেই আইপিএলের শুরুতে দেখা গিয়েছিল দাদাকে স্বয়ং পৌঁছে যেতে আমিরশাহী। শারজা স্টেডিয়াম যে তাঁর অনেকদিনের পছন্দের, সে কথা বলাই বাহুল্য। তাই শারজায় স্টেডিয়াম ঘুরে দেখা থেকে শুরু করে সেখানকার নিরাপত্তাব্যবস্থা নিয়েও নজর দিতে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। তবে সেইসঙ্গে ক্রিকেটারদের মনোবল বাড়ানোর নিয়েও স্বচেষ্ট ছিলেন তিনি।

ইতিমধ্যেই আইপিএল শুরু হয়ে গেছে। একে একে আইপিএলের সমস্ত দলই নেমে পড়েছে মাঠে। সেইসঙ্গে পারফরম্যান্স নিয়ে উঠে এসেছে অনেক রকমের প্রশ্ন। তবে সম্প্রতি সৌরভ গাঙ্গুলী জড়িয়েছেন নতুন বিতর্কে। নেপথ্যে দিল্লি ক্যাপিটালসের অধিনায়ক শ্রেয়াস আইয়ার। কিছুদিন আগে তিনি বলেন রিকি পন্টিং আর সৌরভ গাঙ্গুলীর মতো ক্রিকেট ব্যক্তিত্বদের কাছ থেকে পরামর্শ পাওয়ার জন্যই তিনি নিজেকে ভাগ্যবান বলে মনে করছেন। আর তাতেই নতুন জল্পনা শুরু হয়েছে ক্রিকেটমহলে। কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিরুদ্ধে মাঠে নামার আগে ধারাভাষ্যকার সাইমন ডুলকে এমন কথা বলায়, বিতর্কে জড়িয়েছেন ভারতের ক্রিকেট প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলী।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

ঘটনাটা ঘটে, যখন গত বছর দিল্লি ক্যাপিটালসের মেন্টর হিসেবে কাজ করেছিলেন সৌরভ। সে বার শ্রেয়াসের নেতৃত্বে দিল্লি প্লে অফে পৌঁছেছিল। এর আগে এত ভাল ফলাফল করতে দেখা যায়নি দিল্লিকে। তবে এবারের টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচের আগে কিউয়ি প্রাক্তন ডুলকে টসের সময়ে শ্রেয়াস বলেছিলেন, তরুণ অধিনায়ক এবং ক্রিকেটার হিসেবে গত বছরের জার্নির জন্য পন্টিং ও দাদার কাছে নাকি তিনি কৃতজ্ঞ। অধিনায়ক হিসেবে তাঁর ক্যারিয়ারের এই উত্থানের জন্য এই দু’জনের অবদান যথেষ্ট। আর এর পরই শুরু হয় জল্পনা। প্রশ্ন উঠতে শুরু করে স্বার্থ সংঘাতের।

অন্যদিকে নিজের এহেন অপবাদ ঘোচাতে মুখ খুলেছেন স্বয়ং মহারাজ। তিনি বলেন, গত বছর তিনি শ্রেয়াসকে সাহায্য করেছিলেম একথা ঠিক। কিন্তু এটা মনে রাখতে হবে বোর্ড প্রেসিডেন্ট হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তিনি একজন ক্রিকেটারও। সেই সঙ্গে দেশের হয়ে তিনি প্রায় পাঁচশোটা ম্যাচ খেলেছেন। তাই শ্রেয়াস হোক বা বিরাট কোহালি-যে কোনও তরুণ ক্রিকেটারের সঙ্গে তিনি পরামর্শ দেওয়ার বিষয়ে কথা বলতেই পারেন। কেউ যদি চায় তাহলে তাকে তিনি সাহায্য করবেনই। তবে এই কথার প্রেক্ষিতে নতুন করে কোনো জল্পনা শুরু না হলেও, পুরনো জল্পনাতে জল পড়ে কিনা, সেটাই এখন দেখার অপেক্ষা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!