এখন পড়ছেন
হোম > অন্যান্য > চাকরি > ইন্টারভিউ হলেও নিয়োগ নিয়ে বড় প্রশ্ন, আদালতের নির্দেশে ব্যাপক চাপে কমিশন!

ইন্টারভিউ হলেও নিয়োগ নিয়ে বড় প্রশ্ন, আদালতের নির্দেশে ব্যাপক চাপে কমিশন!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –  উচ্চ প্রাথমিকে নিয়োগ নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই জটিলতা তৈরি হয়েছে। সম্প্রতি এই ব্যাপারে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিয়োগের দরজা খুলে দিলেও, তা নিয়ে ইন্টারভিউ তালিকা প্রকাশ করার পরেই হাইকোর্টে দায়ের হয় মামলা। আর সেই মামলার পরিপ্রেক্ষিতেই তা নিয়ে স্থগিতাদেশ জারি করা হয়। যার জেরে ব্যাপক সমস্যার মুখে পড়ে যায় স্কুল সার্ভিস কমিশন। পরবর্তীতে ইন্টারভিউয়ের তালিকা সেই জটিলতা কাটিয়ে পেশ করা হলেও, তাতে আবার বিভ্রান্তি ছড়ায়।

যেখানে চাকরিপ্রার্থীদের একাংশ সেই ইন্টারভিউ তালিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেন। তবে দীর্ঘ জটিলতার পর বর্তমানে উচ্চ প্রাথমিকে ইন্টারভিউ প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। কিন্তু এবার সেই প্রক্রিয়া নিয়েও বড়সড় নির্দেশ দিতে দেখা গেল কলকাতা হাইকোর্টকে। যেখানে ইন্টারভিউ হলেও এখনই নিয়োগ করা যাবে না বলে জানিয়ে দিল আদালত। স্বাভাবিকভাবেই আদালতের নির্দেশের ফলে ব্যাপক চাপে পড়ে গেল স্কুল সার্ভিস কমিশন এবং রাজ্য সরকার বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

সূত্রের খবর, এদিন কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের দুই বিচারপতির পক্ষ থেকে একটি নির্দেশ দেওয়া হয়। যেখানে বিচারপতি সুব্রত তালুকদার এবং সৌগত ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়ে দেয়, উচ্চ প্রাথমিকের ইন্টারভিউ প্রক্রিয়া চললেও, এখনই কাউকে নিয়োগ করা যাবে না। সেক্ষেত্রে আদালত নির্দেশ দিলেও সেই নিয়োগ প্রক্রিয়া হবে বলে জানিয়ে দেয় কলকাতা হাইকোর্টের দুই বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ। আর দীর্ঘদিন ধরেই এই উচ্চ প্রাথমিকে নিয়োগ প্রক্রিয়া আটকে রয়েছে। কিন্তু এবার আদালতের নির্দেশের ফলে ইন্টারভিউ হলেও, নিয়োগ প্রক্রিয়া যে কার্যত বিশবাঁও জলে চলে গেল, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

স্বভাবতই আদালতের নির্দেশের ফলে চাকরি প্রার্থীদের মধ্যে তীব্র সংশয় তৈরি হয়েছে। যার জেরে নানা মহলে আশঙ্কা তৈরি হয়েছে, তাহলে কি আদালতের পক্ষ থেকেও এই ইন্টারভিউ নিয়ে বা স্কুল সার্ভিস কমিশনের উদ্যো নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে? আর সেই কারণেই আদালত এই ব্যাপারে কড়া নির্দেশ দিতে বাধ্য হল? বিশেষজ্ঞদের একাংশ বলছেন, এর আগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই ব্যাপারে নিয়োগের কথা বলার পরেই তৎপরতা শুরু করে দিয়েছিল কমিশন। সেক্ষেত্রে ইন্টারভিউ তালিকা প্রকাশ করার পর বারবার তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। যার জেরে আদালতের পক্ষ থেকে জারি করা হয়েছে স্থগিতাদেশ।

কিন্তু সেই সমস্ত জটিলতা কাটিয়ে সম্প্রতি আবারও নতুন করে ইন্টারভিউ তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। শুরু হয়েছে সেই ইন্টারভিউ প্রক্রিয়া। কিন্তু তার মাঝেই কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চের পক্ষ থেকে ইন্টারভিউ হলেই এখনও যে নিয়োগ করা যাবে না, সেই ব্যাপারে কড়া নির্দেশ দিয়ে দেওয়া হল। যার জেরে মূল প্রক্রিয়া যে যথেষ্ট পরিমাণে ব্যহত হবে, তা বলাই যায়। সব মিলিয়ে নিয়োগের ক্ষেত্রে আদালতের এই নির্দেশকে কেন্দ্র করে স্কুল সার্ভিস কমিশন যে যথেষ্ট ব্যাকফুটে পড়ে গেল, সেই ব্যাপারে নিশ্চিত বিশেষজ্ঞরা। তবে এই জটিলতা কবে কাটানো সম্ভব হয়, কবে নিয়োগের ব্যাপারে সবুজ সঙ্কেত দেয় আদালত, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!