এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > সেনা প্রশিক্ষণেও দুর্নীতি! সিবিআই তদন্তের মুখে পুনের এনডিএ

সেনা প্রশিক্ষণেও দুর্নীতি! সিবিআই তদন্তের মুখে পুনের এনডিএ



দুর্নীতির কবল থেকে রক্ষা পেলো না দেশের সামরিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্রগুলি। দুর্নীতির অভিযোগে এবার সংবাদ শিরোনামে উঠে এলো পুণের ন্যাশনাল ডিফেন্স অ্যাকাডেমি (‌এনডিএ)‌। জানা যাচ্ছে ঐ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ পদ্ধতিতে রয়েছে যথেষ্ট স্বচ্ছতার অভাব। সিবিআই সূত্রে জানা গেছে  অ্যাকাডেমির অধ্যক্ষ ওম প্রকাশ শুক্লা সহ রাষ্ট্রবিজ্ঞান, রসায়ন, গণিতের অধ্যাপকদের বিরুদ্ধে অপরাধ মূলক ষড়যন্ত্র, প্রতারণা এবং দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। এই অভিযোগের ভিত্তিতেই বুধবার তল্লাশি চালান সিবিআই আধিকারিকরা পুণের ডিফেন্স অ্যাকাডেমিতে অভিযুক্ত অধ্যাপক সহ অধ্যক্ষের দফতরে তল্লাশি চালালেন। শুধু অভিযুক্তদের দফতরই নয় তল্লাশি চালানো হয়েছে  তাঁদের বাড়িতেও। উল্লেখ্য ২০১১ থেকে পুণে এনডিএ-র অধ্যক্ষের পদে আসীন একজন বরিষ্ঠ অধ্যাপক ওম প্রকাশ শুক্লা। তাঁর বিরুদ্ধে ২০০৭ সাল থেকে এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ পদ্ধতিতে দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। তদন্তকারীদের তদন্তের ভিত্তিতে উঠে আসে একাধিক অজানা তথ্য যার মধ্যে উল্লেখ যোগ্য হলো অভিযুক্ত অধ্যপকরা এমন একাধিক নিয়োগ করেছেন যাঁদের এনডিএ-তে অধ্যাপনার যোগ্যতা নেই।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

জানা যাচ্ছে অভিযুক্ত অধ্যাপকদের মারফত নিযুক্ত অধ্যাপকেরা শিক্ষাগত যোগ্যতার দিক থেকেও অত্যন্ত দুর্বল জাল সার্টিফিকেট এবং মার্কশিট সম্বল করে তাঁরা বে আইনী ভাবে নিযুক্ত হয়েছেন। ইউপিএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ চাকরী প্রার্থীদের  সেনা প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে অধ্যাপক পদে নিয়োগ করা হয়। সিবিআই তদন্তের ভিত্তিতে জানা যাচ্ছে অভিযুক্ত অধ্যাপকেরা কম যোগ্যতার প্রার্থীদের ইউপিএসসিতে বসার সুযোগ করে দিতেন। স্বয়ং ওম প্রকাশ শুক্লা ২০০৭ সালে নিজের শিক্ষকতার অভিজ্ঞতার ভুয়ো নথি জমা দিয়ে নিযুক্ত হয়েছিলেন। এবং একইভাবে ২০১১ সালে পুণে এনডিএ-র অক্ষ্যক্ষ নিযুক্ত হয়েছিলেন। জানা যাচ্ছে তাঁর যোগ্যতার কোনো প্রমানপত্র প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের তরফে যাচাই করা হয়নি।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!