এখন পড়ছেন
হোম > অন্যান্য > “সুযোগ পেয়েও এবার তা নষ্ট করল ভারত।” দাবি পাকিস্তানের

“সুযোগ পেয়েও এবার তা নষ্ট করল ভারত।” দাবি পাকিস্তানের



দু দেশের সম্পর্কে বরফ গলানোর চেষ্টা হলেও তা শেষপর্যন্ত ভেস্তে গেল। সূত্রের খবর, গত বুধবার ভারত এবং পাকিস্তানের সম্পর্কে বিদ্বেষ কাটিয়ে স্বাভাবিকের পথে এগিয়ে নিয়ে যেতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে আলোচনায় বসার আহ্বান জানিয়ে একটি চিঠি লেখেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। অনেকেই ভেবেছিল যে এবার হয়ত দুদেশের মাঝে কিছুটা হলেও কমবে বিবাদ। কিন্তু আলোচনা চেয়ে যদিন ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি পাঠালেন পাকিস্তান প্রধান ঠিক সেদিনই আন্তর্জাতিক সীমান্তের কাছে ভারতের বিএসএফ জওয়ান নরেন্দ্র কুমার গলাকাটা দেহ উদ্ধার হওয়ায় চরম চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

জানা যায়, এদিন আন্তর্জাতিক সীমান্তের খুব কাছে ঘাস কাটতে গিয়েছিলেন নরেন্দ্র কুমার নামে বিএসএফের হেড কনস্টেবল। অভিযোগ, তখনই তাঁকে লক্ষ করে গুলি চালানো হয়। এমনকী এই ঘটনার ছয় ঘন্টা পরে সেই ভারতীয় জওয়ানের মৃতদেহ উদ্ধার হয়।।যেখানে সেই জওয়ানের দেহে তিনটি গুলির চিহ্নও লক্ষ্য করা যায়। এই ঘটনায় পাক রেঞ্জার্সদের যোগের অভিযোগ তুলে মৃত জওয়ানের পরিবারের তরফে সঠিক তদন্তের দাবিও করা হয়েছে।

তবে শুধু মৃত জওয়ান নরেন্দ্র কুমারই নয়, পাক মদতপুষ্ট জঙ্গীদের বিরুদ্ধে সেই শুক্রবারই কাশ্মীরের সোপিয়ানে তিন পুলিশকর্মীকে অপহরন করার অভিযোগ ওঠে। আর এর পরেই সেই তিন পুলিশকর্মীর মৃতদেহ উদ্ধার হয়। জানা যায়, এই খুনের ঘটনার আগে জঙ্গিরা একটি হুমকি ভিডিও প্রকাশ করে সেই পুলিশকর্মীদের পদত্যাগের কথা বললে তাতে কর্নপাত না করাতেই এদিন তিন পুলিশকর্মীকে মৃত্যু বরন করতে হল। আর এইসব কারনেই পাক প্রধানমন্ত্রী পাঠানো প্রস্তাব নাকচ করে দিল কেন্দ্রীয় সরকার।

ভারতীয় জওয়ানদের সাথে পাক রেঞ্জার্সদের এই বর্বর আচরনের পর আলোচনার টেবিলে বসার কোনো অর্থই হয় না বলে শুক্রবার সাফ জানিয়ে দিয়েছে কেন্দ্র। আর যার প্রত্যুত্তরে পাকিস্তানের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, “সুযোগ পেয়েও এবার তা নষ্ট করল ভারত।” এখন সব মিলিয়ে ভারত-পাক সম্পর্ক এখন সেই যুদ্ধংদেহী ভূমিকাতেই থাকে নাকি কিছুটা শান্ত হয় পরিস্থিতি সেদিকেই তাকিয়ে সীমান্তরক্ষীরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!