এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > ত্রিপুরার মতোই অবস্থা হবে বাংলার, আশায় ত্রিপুরার পরিবর্তনের রূপকার

ত্রিপুরার মতোই অবস্থা হবে বাংলার, আশায় ত্রিপুরার পরিবর্তনের রূপকার



মাত্র কয়েক দিন আগেই ত্রিপুরা নির্বাচন কে লক্ষ্য করে বিধানসভায় উপস্থিত থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সকল সিপিএম নেতাদের উদ্দেশ্য করে বলেছিলেন, আপনারা ত্রিপুরায় জিতলে আমি খুশি হব। আর সেই কথার জের টেনেই ত্রিপুরায় সিপিএমের পরাজয়ের দায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে নিতে হবে বলে পালটা আক্রমন করলেন একদা তৃণমূলের অঘোষিত দুনম্বর নেতা মুকুল রায়। তিনি আরও জানান, ত্রিপুরার নির্বাচনী ফলের প্রভাব পড়বে পশ্চিমবঙ্গে। উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতে গেরুয়া ঝড় উঠেছে। সেই ঝড় থেকে বাদ যাবে না পশ্চিমবঙ্গও। বাংলাতেও গেরুয়া ঝড় উঠবে। একদা তৃণমূলে থাকালীন মুকুল রায়ের হাত ধরেই ত্রিপুরায় পরিবর্তনের আওয়াজ ওঠে, তাঁর হাত ধরেই কংগ্রেসের বিধায়করা তৃণমূলে যোগদেন, ত্রিপুরায় বেশ দৃঢ় হতে থাকে ঘাসফুলের সংগঠন।

কিন্তু তিনি বিজেপিতে যোগদানের পূর্বেই, সেই পরিবর্তনকামী বিধায়করা, তথা সংগঠনের পুরোটাই বকলমে চলে যায় গেরুয়া শিবিরে, রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন, এর পিছনে আসলে ছিলেন মুকুলবাবুই। বিজেপিতে যোগদানের পূর্বে এটা ছিল তাঁর বিজেপি শীর্ষনেতৃত্ত্বকে ‘সামান্য উপহার’। ত্রিপুরা বিজয়ের অন্যতম রূপকার সেই মুকুলবাবুই দাবি করেন, অল্প দিনেই বাংলায় বিজেপির হাত ধরে পরিবর্তনের ঝড় উঠবে। তিনি আরও বলেন, বাংলায় একবার নির্বাচনটা হতে দিন, তারপরই বুঝবেন শাসক তৃণমূলের হাল কী হয়। ত্রিপুরার মতোই অবস্থা হবে বাংলার। প্রসঙ্গত, ত্রিপুরা নির্বাচনের পরেই মুকুল রায় ভবিষ্যৎবাণী করেছিলেন, ত্রিপুরায় এবার বিজেপি পতাকা উড়বেই। ৪২টি আসন পেয়ে ক্ষমতায় আসবে বিজেপি সরকার। আর বাস্তবে তাঁর সেই ভোটের অঙ্ক অক্ষরে অক্ষরে ফলে গিয়ে ৪৩ টি আসন পেয়ে ২৫ বছরের বাম শাসনের অবসান ঘটায় গেরুয়া শিবির। ফলে বিজেপি শিবির তথা মুকুলবাবুর দৃঢ় বিশ্বাস পশ্চিমবঙ্গের শাসন ভার সংক্রান্ত পরিবর্তন এর বাস্তবায়ন ঘটতেও আর বেশি সময় লাগবে না, এখানে আবার মিলে যাবে মুকুল রায়ের রাজনৈতিক অঙ্ক।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!