এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ফের বিজেপির বিরুদ্ধে হিন্দু-মুসলিম রাজনীতি করার অভিযোগ মমতার, তুললেন বিধানসভা ভোটের কথাও!

ফের বিজেপির বিরুদ্ধে হিন্দু-মুসলিম রাজনীতি করার অভিযোগ মমতার, তুললেন বিধানসভা ভোটের কথাও!



ভোটের প্রচারে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিজেপির বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক রাজনীতি ছড়ানোর অভিযোগ তুলে সরব হতে দেখা যায়। তবে করোনা মোকাবিলার সময়েও বিজেপির বিরুদ্ধে যে এই রকম অভিযোগ তুলবেন পশ্চিমবঙ্গের প্রশাসনিক প্রধান, তা সত্যিই কল্পনা করা যায়নি। কিন্তু এবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিজেপির বিরুদ্ধে “হিন্দু মুসলিম” রাজনীতি করার অভিযোগ রীতিমতো শোরগোল ফেলে দিল বঙ্গ রাজনীতিতে।

সূত্রের খবর, মঙ্গলবার নবান্নের সাংবাদিক বৈঠকে নাম না করে বিজেপিকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। যেখানে তিনি বলেন, “করোনায় কি হিন্দু মুসলমান আছে! যারা এসব করছেন, তারা একটু ভাবুন। করোনা সংক্রমণে কোনো হিন্দু মুসলমান নেই। অন্য রোগে যেমন হিন্দু-মুসলমান ভেদাভেদ করে না, তেমনই এই রোগেও করে না। তাই অযথা সস্তার রাজনীতির জন্য হিন্দু-মুসলমান করবেন না।” আর হঠাৎ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন নাম না করে বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হয়ে গেরুয়া শিবিরের দিকে বিভাজনের রাজনীতির অভিযোগ তুললেন, তা নিয়ে এখন তৈরি হয়েছে প্রশ্ন।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

জানা গেছে, এদিন নবান্নের সাংবাদিক বৈঠকে বিরোধীদের উদ্দেশ্যে কম বিরোধিতা করার কথাও জানান পশ্চিমবঙ্গের প্রশাসনিক প্রধান। যেখানে 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, “এখনও রাজনীতি করার অনেক সময় আছে। এটা মে মাস। 2021 এর মে মাসে রাজ্যে বিধানসভার ভোট। ফলে এখনও এক বছর সময় আছে। এত তাড়াতাড়ি কিসের! সময় আসুক, রাজনীতি করবেন। প্লিজ এখন রাজনীতি করবেন না। সংকট নিয়ে রাজনীতি করবেন না।”

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই কথা বলে বোঝানোর চেষ্টা করলেন যে, বিরোধীরা এখন সরকারের বিরুদ্ধে করোনা মোকাবিলায় যে সমস্ত বক্তব্য দিয়ে চলেছে, তা একেবারেই ভিত্তিহীন। তারা শুধুমাত্র সরকারের বিরোধিতা করার জন্যই এই বিরোধিতা করছে।  তবে এই ব্যাপারে বিজেপির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে যে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সব ব্যাপারেই এখন বিজেপিকে দায়ী করেন। তাই এটা কিছু অস্বাভাবিক ঘটনা নয়। বিরোধীরা সরকারের গঠনগত বিরোধিতায় করে। কিন্তু সেটাকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অন্যদিকে নিয়ে গিয়ে এখন সাম্প্রদায়িক অভিযোগে দুষ্ট করার চেষ্টা করছেন। মানুষ সঠিক সময়েই এর জবাব দেবে। সব মিলিয়ে এবার নবান্নের সাংবাদিক বৈঠক থেকে বিজেপির বিরুদ্ধে হিন্দু-মুসলিম করার অভিযোগ তুলে সরব হলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!