এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > হেভিওয়েট বিজেপি নেতারা তৃণমূলে ফিরতেই ঘাসফুল শিবিরের অন্দরে পদ নিয়ে শুরু তীব্র জল্পনা!

হেভিওয়েট বিজেপি নেতারা তৃণমূলে ফিরতেই ঘাসফুল শিবিরের অন্দরে পদ নিয়ে শুরু তীব্র জল্পনা!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট –এককালে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা রাজনীতিতে তৃণমূলের শেষ কথা ছিলেন বিপ্লব মিত্র। তবে গত লোকসভা নির্বাচনে বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল পরাজিত হওয়ার পর সেই বিপ্লব মিত্রকে জেলা সভাপতি পদ থেকে সরিয়ে তার দায়িত্ব দেওয়া হয় অর্পিতা ঘোষকে। যার পরেই তৃণমূল ছেড়ে ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগ দেন বিপ্লববাবু। তবে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পাঁচ মাস পর থেকেই তিনি সেভাবে কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচিতে শামিল হননি। দীর্ঘদিন চুপচাপ ঘরে বসে থাকতে দেখা যায় তাকে।

অবশেষে শুক্রবার তৃণমূল ভবনে গিয়ে সেই বিপ্লব মিত্র এবং তার ভাই প্রশান্ত মিত্র পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের হাত থেকে তৃণমূলের পতাকা নিজেদের হাতে তুলে নেন। স্বাভাবিকভাবেই বিপ্লব মিত্র তৃণমূলে যোগদানের পর থেকেই এখন জল্পনা তৈরি হতে শুরু করেছে, তাহলে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা রাজনীতিতে বিপ্লববাবু ভূমিকা কী হবে? বস্তুত, কিছুদিন আগেই দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় সাংগঠনিক রদবদল করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অর্পিতা ঘোষকে জেলা সভাপতি পদ থেকে সরিয়ে সভাপতির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে একসময় বিপ্লব মিত্রের হাত ধরে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করা গৌতম দাসকে।

আর তারপর থেকেই জল্পনা ছড়াতে শুরু করে, এবার বিপ্লব মিত্র যোগ দিতে চলেছেন তৃণমূল কংগ্রেসে। আর সেই জল্পনায় সীলমোহর দিয়ে শুক্রবার তা প্রত্যক্ষ করে গোটা বাংলার মানুষ। তবে একসময় যে বিপ্লব মিত্র গোটা দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা সহ উত্তরবঙ্গের সংগঠন সামলেছেন সেই বিপ্লব মিত্র বিজেপি থেকে তৃণমূলে যোগ দিয়ে তাকে কি অপ্রাসঙ্গিক করে রাখা হবে নাকি 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনে তাকে গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় বসাবে তৃণমূল কংগ্রেস এখন তা নিয়েই প্রশ্ন তৈরি হয়েছে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা রাজনীতির অন্দরমহলে।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

অনেকে বলছেন, যেহেতু জেলার সংগঠন পরিচালনার ক্ষেত্রে বিপ্লব মিত্রের যথেষ্ট অভিজ্ঞতা রয়েছে, তাই তাকে বর্তমান সভাপতি গৌতম দাসের পরামর্শদাতা হিসেবে কাজে লাগাতে পারে তৃণমূল নেতৃত্বৃ এছাড়াও কিছুদিন আগেই দুর্নীতির একটি ভিডিও প্রকাশ্যে আসার কারণে জেলা পরিষদের মেন্টর পর থেকে ইস্তফা দিতে হয়েছে শুভাশিস পালকে। বিপ্লব মিত্র যখন তৃণমূলে যোগদান করলেন, তখন তাকে পুরস্কার স্বরূপ এই মেন্টর পদে বসাতে পারে তৃণমূল কংগ্রেস।

স্বাভাবিকভাবেই এই সমস্ত জল্পনা নিয়ে এখন বিপ্লব মিত্রের অনুগামীদের মধ্যে আশার আলো তৈরি হয়েছে। তবে খুব তাড়াতাড়ি রাজ্য নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠকে বসতে চলেছেন দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূল সভাপতি গৌতম দাস এবং বিপ্লব মিত্র। আর সেখানেই ঠিক হতে পারে যে, আগামী দিনে বিপ্লব মিত্রকে কিভাবে কাজে লাগাবে তৃণমূল কংগ্রেস!

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার আটঘাট চেনা বিপ্লব মিত্রকে 2021 এর আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে গুরুত্ব দেবেন, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। কিন্তু তাকে কোন পদে রেখে আরও সাংগঠনিক ভিতকে শক্তিশালী করার জন্য ব্যবহার করবে তৃণমূল নেতৃত্ব, এখন সেদিকেই নজর থাকবে রাজনৈতিক মহলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!