এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > দলের মধ্যে বিরোধী গোষ্ঠী সক্রিয় হতেই অসুস্থতা সরিয়ে রেখে ময়দানে নামলেন হেভিওয়েট তৃণমূল নেতা

দলের মধ্যে বিরোধী গোষ্ঠী সক্রিয় হতেই অসুস্থতা সরিয়ে রেখে ময়দানে নামলেন হেভিওয়েট তৃণমূল নেতা



অসুস্থতার কারণে নিজেকে রাজনীতির ময়দান থেকে সরিয়ে নিয়েছিলেন তিনি। তবে রাজনীতি অনেকের নেশা। সেদিক থেকে তারও যে এটা নেশার মধ্যেই পড়ে, তা প্রমাণ করে দিলেন জলপাইগুড়ি পৌরসভায় তৃণমূলের চেয়ারম্যান মোহন বসু। রাজনীতিতে টিকে থাকাই সবথেকে বড় ব্যাপার। দীর্ঘদিন অসুস্থতার কারণে সেভাবে মোহন বসুকে দেখতে পাওয়া যাচ্ছিল না। এমনকি তিনি আর ভবিষ্যতে পৌরসভা নির্বাচনে লড়বেন কিনা, তা নিয়েও তৈরি হয়েছিল জল্পনা। তবে এবার ধীরে ধীরে নিজের অসুস্থতা কাটিয়ে সক্রিয় হয়ে উঠছেন সেই মোহন বসু।

জানা গেছে, আগামী 17 মে তৃণমূল পরিচালিত জলপাইগুড়ি পৌরসভার বর্তমান বোর্ডের মেয়াদ শেষ হচ্ছে। আর তার আগেই সেখানকার চেয়ারম্যান মোহন বসুর এভাবে সক্রিয় হয়ে ওঠাতে রীতিমতো উজ্জীবিত তার অনুগামীরা। অনেকে বলছেন, জলপাইগুড়ি পৌরসভার তৃণমূলের বর্তমান চেয়ারম্যান মোহন বসুর এভাবে সক্রিয় হয়ে ওঠার পেছনে অন্য কারণ রয়েছে। তিনি ভালোই আচ করতে পারছেন, তার অবর্তমানে তার বিরোধী গোষ্ঠির নেতারা শক্তিশালী হয়ে উঠছেন। তাই সেদিক থেকে দলের অন্দরে তার বিরুদ্ধ গোষ্ঠীর নেতাদের বিপাকে ফেলতে এবার ময়দানে নেমে ক্রমশ সক্রিয় হয়ে উঠছেন তিনি। তাহলে কি তিনি এখন পুরোপুরি সুস্থ?


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে জলপাইগুড়ি পৌরসভার তৃণমূলের চেয়ারম্যান মোহন বসু বলেন, “এখন অনেকটাই সুস্থ আছি। তাই প্রতিদিন কোনো না কোনো জায়গায় যাচ্ছি। আমরা সকলেই একটা কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে চলেছি। অনেকেই কর্মহীন হয়ে আছেন। বাড়িতে খাবার নেই। সঠিকভাবে ত্রাণ পৌঁছেছে কিনা দেখছি। শহর পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন আছে কিনা তাও দেখছি। জলপাইগুড়ি শহরের প্রতিটি স্তরের মানুষের সঙ্গে আমার সুসম্পর্ক আছে। তবে নির্বাচন নিয়ে তেমন মাথাব্যথা নেই। মানুষ সমস্যায় পড়লে আমাকে টেলিফোনে জানাচ্ছেন। আমি যতটা পারছি, সেখানে যাচ্ছি। মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করছি।” আর এখানেই একাংশের প্রশ্ন, তাহলে কি মোহন বসু সামনের নির্বাচনে আবার জলপাইগুড়ি পৌরসভায় তৃণমূলের মুখ হতে চলেছেন? তাহলে কি তিনিই হবেন তৃণমূলের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী?

এদিন এই প্রসঙ্গে জলপাইগুড়ি জেলা তৃণমূলের সভাপতি কিষান কল্যাণী বলেন, “আমাদের মাথায় এখন ভোট সংক্রান্ত কিছু নেই। কবে নির্বাচন হবে, তার কোনো ঠিক নেই। মানুষ যা চাইবে, তার ওপরেই আমরা সবকিছু ঠিক করব। এখন মানুষ কিভাবে করোনা থেকে মুক্তি পায়, সেটা নিয়েই ব্যস্ত আছি। এরপর রাজ্য থেকে যেমন নির্দেশ আসবে, তেমনটা করা হবে।”

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যেভাবে এতদিন অসুস্থতার কারণে মোহন বসু নির্বাচনে দাঁড়াবেন কিনা, তা নিয়ে জল্পনা তৈরি হয়েছিল, তাতে তার অনুগামীদের মধ্যে কিছুটা হলেও আনন্দে ভাটা পড়েছিল। তবে এবার সেই মোহনবাবু ময়দানে নামতেই তার অনুগামীরা উজ্জীবিত হতে শুরু করেছেন। এখন গোটা পরিস্থিতি কোনদিকে গড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে রাজনৈতিক মহলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!