এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > হেভিওয়েট বিজেপি নেতার সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্টের কারণ ব্যাখ্যা করলেন এবার তৃণমূল বিধায়ক, জল্পনা তুঙ্গে

হেভিওয়েট বিজেপি নেতার সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্টের কারণ ব্যাখ্যা করলেন এবার তৃণমূল বিধায়ক, জল্পনা তুঙ্গে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট356 ধারা জারি নিয়ে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ফেসবুক পোস্ট এই মুহূর্তে প্রবল চর্চায়। অনেকেই মনে করছেন, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় এ ধরনের মন্তব্য করে তৃণমূলে ফেরত আসার রাস্তা পরিষ্কার করতে চাইছেন। একই সুর ডোমজুড়ের বর্তমান বিধায়ক কল্যাণ ঘোষের গলাতেও। শুভেন্দু অধিকারীর মতোই হাওড়া জেলার তৃণমূলের অন্যতম নেতা তথা প্রাক্তন মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেন। রীতিমতো স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বাড়িতে গিয়ে তিনি গেরুয়া পতাকা হাতে তুলে নেন। তৃণমূল ছেড়ে আসার জন্য বিজেপির তরফ থেকে পুরস্কার স্বরূপ ডোমজুড়ে বিজেপির টিকিটে তিনি লড়াইতে নামেন।

কিন্তু নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশে দেখা যায়, ডোমজুড়ের মানুষ তাকে ছুঁড়ে ফেলে দিয়েছে। নিজের এবং দলের হার সামনে আসার পর রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় পুরোপুরি অন্তরালে চলে গিয়েছিলেন। তবে সাম্প্রতিককালে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় আবার সংবাদ শিরোনামে। 356 ধারা জারি নিয়ে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ফেসবুক পোস্ট নিয়ে এবার নিজস্ব যুক্তি সাজালেন ডোমজুড়ের বর্তমান বিধায়ক কল্যাণ ঘোষ। তাঁর মতে, সেচ তদন্তের হাত থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় সহানুভূতি কুড়াতে এধরনের পোস্ট করেছেন। প্রসঙ্গত, রাজ্যে ইয়াস দুর্যোগে দেখা গিয়েছে, একের পর এক বাঁধ ভেঙে পড়েছে যা গত বছরেই সারাই করা হয়েছিল।

স্বাভাবিকভাবেই এই ব্যাপার নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী সন্দেহ প্রকাশ করেছেন এবং তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। রাজনৈতিক মহলের অনেকেই দাবি করেছেন, এই তদন্ত হলে সবথেকে চাপে পড়বেন শুভেন্দু অধিকারী এবং রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। শুভেন্দু যদিও এই মুহূর্তে রাজ্যের বিরোধী দলনেতা, কিন্তু রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় এই মুহূর্তে শুধুমাত্র একজন বিজেপি নেতা ছাড়া কিছুই নন। অন্যদিকে ডোমজুড়ের বিধায়ক কল্যাণ ঘোষ নাম না করে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে ইঙ্গিত করে তীব্র কটাক্ষ করে বলেন, যিনি নির্বাচনের আগে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের ছবি আঁকড়ে ধরে কাঁদতে কাঁদতে বেরিয়ে যান, ঠিক তারপরের দিন তিনি অমিত শাহের কাছে গিয়ে বিজেপিতে যোগদান করেন।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

খুব স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনা মুখ এবং মুখোশকে আলাদা করে দিয়েছে। তবে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে দলে নেওয়া হবে কি হবে না সে ব্যাপারে একমাত্র দলনেত্রীর নির্দেশ যে মানা হবে সে সেকথাও জানান তিনি। ইতিমধ্যেই রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে দলে না নেওয়ার দাবি জানিয়ে ডোমজুড় এলাকায় তৃণমূলের পক্ষ থেকে পোস্টার পড়েছে। যেখানে এবার রাজীবকে গদ্দার বলে অভিহিত করা হয়েছে। অনেকেই এই পোস্টারের সঙ্গে কয়েক মাস আগের দাদার অনুগামী পোস্টারের মিল পাচ্ছেন।

এ প্রসঙ্গে বিধায়ক কল্যাণ মন্ডল জানিয়েছেন, যেভাবে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় নির্বাচনী প্রচারে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এর বিরুদ্ধে একের পর এক মন্তব্য করেছেন, তা নিয়ে কিন্তু হাওড়া জেলার তৃণমূল কর্মীরা অত্যন্ত ক্ষুব্ধ। আর তা থেকেই হয়তো ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ হিসেবে এ ধরনের পোস্টার সামনে আসছে বলে বিধায়কের দাবী।

প্রসঙ্গত, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিজেপির হেস্টিংসের বৈঠকেও দেখা যায়নি। তা নিয়েও জল্পনা শুরু হয়েছে। তবে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় কিন্তু এখনও পর্যন্ত বিজেপি ছেড়ে বেরোনোর কোন ইঙ্গিত দেননি। দলে থেকেও রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় যে গেরুয়া শিবিরের অন্যতম অস্বস্তির কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছেন, সে ব্যাপারে নিশ্চিত বিশেষজ্ঞরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!