এখন পড়ছেন
হোম > অন্যান্য > চাকরি > খুশির খবর! এবার প্রায় ১২ হাজার কর্মী নিয়োগ করতে চলেছে স্বাস্থ্য দপ্তর

খুশির খবর! এবার প্রায় ১২ হাজার কর্মী নিয়োগ করতে চলেছে স্বাস্থ্য দপ্তর

Priyo Bandhu Media


প্রায় ১২হাজার ডাক্তার-নার্স-টেকনিশিয়ান এবং বিভিন্ন ধরণের কর্মী নিয়োগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্বাস্থ্য দপ্তর।সামনেই পঞ্চায়েত ভোট এমন সময়ে সরকারের এই সিদ্ধান্তকে ভোটের রাজনীতির একটা অংশ বলেই মনে করছে বিরোধীরা।
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে গঠিত কর্মী নিয়োগকারী সংস্থা ওয়েস্ট বেঙ্গল হেলথ রিক্রুটমেন্ট বোর্ড (ডব্লুবিএইচআরবি) রাজ্যে ১২হাজারের বেশি কর্মী নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরু করেছে। প্রসঙ্গত,এই বোর্ড চালু হওয়ার পর গত চার বছরে প্রায় ১৩হাজার চিকিৎসক ও কর্মী নিয়োগ করে ফেলেছে।ল্যাব টেকনিশিয়ান,ফার্মাসিস্ট,চিকিৎসক,নার্স,ফেসিলিটি ম্যানেজার ,সাইকোলজিস্ট,ফুড সেফটি অফিসার,লাইব্রেরিয়ান-এর মত পদে নিয়োগ করা হবে কর্মী।

যা এর আগে বাম জামানায় হয়েছিল কিনা সেই নিয়ে প্রশ্ন তোলেন রাজ্যের স্বাস্থ্য অধিকর্তা ডাঃ বিশ্বরঞ্জন শতপথী। তিনি আরও বলেন,”রাজ্যে কখনও পতঙ্গবিদ্যা বা এনটেমোলজিকে যথাযোগ্য গুরুত্ব দিয়ে পদ তৈরি হয়েছে? এবং সেইসব পদে নিয়োগও হয়েছে?এই সময়ে হয়েছে।এর আগে কেউ কোনও দিন ভাবতে পেরেছেন এসব?এই ক’বছরে ভাবা যেমন হয়েছে,কাজও তেমন হয়েছে।জনস্বার্থে নিয়োগ প্রক্রিয়া চলতেই থাকবে।যাঁরা এর মধ্যে ভোটের গন্ধ পাচ্ছেন,পান।কিছু বলার নেই।” দপ্তর সূত্রে খবর,সম্প্রতি রাজ্যের বিভিন্ন সরকারি হাসপাতাল ও মেডিক্যাল কলেজের জন্য ডব্লুবিএইচআরবিকে ৬হাজার নার্স নিয়োগ করতে বলেছিল দপ্তর।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এছাড়াও স্বাস্থ্যভবনের নার্সিং শাখা থেকে আরও ১২০০নার্স নিয়োগ করতে অর্থাৎ মোট ৭২০০নার্স নিয়োগ করার জন্য বোর্ডের কাছে আবেদন জানানো হয়েছিল।বোর্ড সেই অনুযায়ী নার্স নেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছে।সরকারের পরবর্তী লক্ষ্য,দ্রুত পাঁচটি মেডিক্যাল কলেজ চালু করা। সরকারের এই সিদ্ধান্ত জনস্বার্থে নেওয়া হয়েছে দাবি করলেও বিরোধীদের কটাক্ষ শুরু হয়েছে ইতিমধ্যেই।তাঁরা এই সিদ্ধান্তকে শুধুমাত্র পঞ্চায়েত ভোটে মানুষকে বিভ্রান্ত করতেই নেওয়া হয়েছে বলে মনে করছেন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য ,শুধুমাত্র ডাক্তার বা নার্স নয়,হাসপাতালের জুতো সেলাই থেকে চণ্ডীপাঠে যে ক্যাডার এককথায় অপরিহার্য্য,সেই ৭০০জন ওয়ার্ডমাস্টার বা নতুন নামে ফেসিলিটি ম্যানেজার নিয়োগের জন্যও সরকারি সুপারিশ এসেছে।

এছাড়াও ৮০০জন ফার্মাসিস্ট,জরুরি যন্ত্রপাতি চালানোর জন্য প্রায় ৭০০ টেকনিশিয়ানও নিয়োগ করা হবে। তবে সমালোচকদের কটাক্ষ ,”শুধু বাড়ি বানালেই তো হবে না,লোক কই!” সেই প্রশ্নের উত্তরেই কি বিপুলসংখ্যক কর্মী নিয়োগ?নাকি এই সিদ্ধান্ত নিছকই শাসকদলের ভোটবৃদ্ধির কৌশল? এই বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে বোর্ডের চেয়ারম্যান ডাঃ রাজেন পান্ডে বলেন,”স্বাস্থ্য দপ্তরের চাহিদা অনুযায়ী দ্রুত নিয়োগ করতে আমরা বদ্ধপরিকর।”

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!