এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > হেভিওয়েট তৃণমূল বিধায়ক আর নির্বাচনে না লড়ার কথা জানাতেই তীব্র জল্পনা শুরু শাসকদলের অন্দরে

হেভিওয়েট তৃণমূল বিধায়ক আর নির্বাচনে না লড়ার কথা জানাতেই তীব্র জল্পনা শুরু শাসকদলের অন্দরে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – আগামী বছরের বিধানসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে এখন সাজো সাজো রব। তবে রাজ্যের করোনা পরিস্থিতির কারণে দীর্ঘ সময় ধরে রাজ্যে বন্ধ ছিল সমস্ত রকম রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড। বর্তমানেও অবশ্য রাজ্যে করোনা সংক্রমণের কারণে সামাজিক দূরত্বর বিধি বলবৎ থাকার কারণে কোনো রকম জমায়েত রাজ্যে অনুমোদিত নয়।

তবু এরমধ্যেও সামাজিক দূরত্ব মেনেই রাজ্যের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলো নিজেদের রাজনৈতিক সংগঠন মজবুত করার কাজে নেমে পড়েছে। নিজেদের রাজনৈতিক সংগঠনকে শক্তিশালী করার পাশাপাশি বিভিন্ন দলের রাজনৈতিক কর্মীদের নিজেদের দলে ভাঙিয়ে এনে দলের উদরপূর্তির কাজও চলছে পুরোদমে। শাসক দল, বিরোধী দল কেউই এই কাজ থেকে পিছিয়ে নেই।

সম্প্রতি উত্তরবঙ্গের কোচবিহার জেলায় শাসক দল ও বিরোধী দল সকলেই আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের আগাম প্রস্তুতি গ্রহণ করতে শুরু করে দিয়েছে। এ কারণে রাজনৈতিক দলগুলির মধ্যে একাধিক কর্মী সভা আয়োজিত হয়েছে, অন্যদিকে তেমনি চলছে নিজেদের সদস্য বৃদ্ধির কাজ। আবার আগামী নির্বাচনে কে কোন আসনে প্রার্থী হবেন, তাই নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে শুরু হয়ে গেছে বিরাট চর্চা ও আলোচনা।

এবারের বিধানসভা নির্বাচনে কোচবিহার জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের তরফ থেকে জানানো হয়েছে কে, কোন আসনে কে প্রার্থী হবেন তা নির্ধারণ করবেন মুখ্যমন্ত্রী। মুখ্যমন্ত্রী যাদের নামের তালিকা পাঠাবেন তালিকায় তাদেরকেই সংশ্লিষ্ট এলাকার প্রার্থী করা হবে।

প্রসঙ্গত, কোচবিহার জেলার মোট নটি বিধানসভা কেন্দ্রের মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র হলো দিনহাটা বিধানসভা কেন্দ্রটি। এই বিধানসভা আসনে গতবার প্রার্থী হয়েছিলেন তৃণমূল বিধায়ক উদয়ন গুহ । গতবার তিনি এই আসনে প্রার্থী হয়ে সহজেই জয়লাভ করেছিলেন। কিন্তু এবার তিনি বিধানসভা ভোটে প্রার্থী না হবার বিশেষ ইচ্ছার কথা জানিয়ে দিয়েছেন।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

আর এটা নিয়ে দলের মধ্যে শুরু হয়েছে ধন্দ । কারণ তাঁর অসম্মতির কারণে তাঁকে প্রার্থী না করে যদি অপর কোন ব্যক্তিকে প্রার্থী করা হয় তবে এই আসনে তৃণমূলের জয়লাভ কতটা সম্ভব হবে সেটা নিয়ে দলের মধ্যে নানা প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

এর ওপর অন্তর্দ্বন্দ্বের ক্ষত। ইতিপূর্বে তৃনমুল দলে গুঞ্জন উঠেছিল যে, এই অন্তর দ্বন্দ্বের কারণেই এবার নির্বাচনের টিকিট নাও পেতে পারেন উদয়ন বাবু। এই অবস্থার মধ্যেই এবারের ভোটে নিজের অংশগ্রহণ না করবার বিশেষ ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন উদয়ন বাবু।

প্রসঙ্গত দিনহাটায় তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব যথেষ্টভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে বলে বিভিন্ন রাজনৈতিক মহলের অভিমত। বিধানসভা ভোটের আগে কতটা মেরামত করা যাবে এই গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব তা নিয়ে সন্দিহান আছেন অনেকেই। আর আগামী নির্বাচনে এই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের বিষয়ের কথা চিন্তা করেই একদা বাম ঘরানার এই রাজনীতিবিদ এবারের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা থেকে সরে আসার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন অনেকে মনে করছেন। এই কেন্দ্রে তিনি বিরোধী শিবিরের কোন নেতাকে প্রার্থী করার নিদানও দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত গত লোকসভা ভোটে দিনহাটা কেন্দ্রে বিজেপির কাছ থেকে ১৬০০০ এর বেশি বেশি ভোটের ব্যবধানে পেছনে পড়ে ছিল তৃণমূল । সেইসঙ্গে দিনহাটা পৌরসভা এলাকাতেও প্রায় ১০০০০ ভোটে বিজেপির থেকে ব্যাকফুটে ছিল তৃণমূল । তাই আগামী বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপিকে পরাস্ত করে, তাদের জয় অব্যাহত রাখা কতদূর সম্ভব হবে রাজ্যের শাসকদলের পক্ষে? সেটা নিয়েও নানা প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে বিভিন্ন মহল থেকে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!