এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > গুড়-বাতাসা এখন অতীত, এসে গেল অনুব্রতর নয়া নিদান

গুড়-বাতাসা এখন অতীত, এসে গেল অনুব্রতর নয়া নিদান



রাজ্য রাজনীতিতে এ এক অদ্ভুত চরিত্র। কখনও গুড় বাতাসা, কখনও চড়াম-চড়াম ঢাক, আবার কখনও বা পাচনের বাড়ি দেওয়ার কথা বলে খবরের শিরোনামে চলে এসেছিলেন বীরভূম জেলা তৃণমূলের সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল।

আর এবার আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে সকলকে “নকুল দানা” খাওয়ানোর নিদান নিয়ে নির্বাচন কমিশনের কাছে শোকজও খেয়েছিলেন তিনি। বিরোধীরা বারেবারেই অনুব্রত মন্ডলের এহেন ইঙ্গিত মন্তব্যের পেছনে প্রচ্ছন্ন হুমকির অভিযোগ তুলেছে। কিন্তু কোনো কিছুতেই পাত্তা দিতে রাজি নন তিনি।

আর তাইতো এদিন বোলপুরের ডাকবাংলো মাঠের সভা থেকে ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য করলেন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। সূত্রের খবর, দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, যারা বুথ কর্মী আছেন, তারা বাইরে দাঁড়িয়ে থাকবেন। শলাকা দিয়ে ভোট করিয়ে নেবেন। ওটা কিভাবে ব্যবহার করবেন, সেটা আপনারা আমার চেয়ে ভালো জানেন।”


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

কিন্তু “শলাকা” বলতে ঠিক কি বোঝাতে চাইলেন অনুব্রত মণ্ডল, তা অবশ্য খোলসা করেননি তিনি। উল্টে এই প্রসঙ্গে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে বীরভূমে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রিয় অনুব্রত মণ্ডল ওরফে কেষ্ট বলেন, “শলাকা মানে কাঠি। কিসের কাঠি বলতে পারব না। আপনারা ডিকশনারি খুলে বের করুন।”

সব মিলিয়ে লোকসভা নির্বাচনের আগে নকুলদানার দাওয়াই দেওয়ার পর “শলাকা” দিয়ে দলীয় কর্মীদের ভোট করার দাওয়াই দিয়ে ফের খবরের শিরোনামে চলে আসলেন বীরভূম জেলা তৃণমূলের সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!