এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > “গুজরাতে ট্রিপল ইঞ্জিন সরকার, চলে মার্টিন রেলের মতো ঢিমেতালে।” – কটাক্ষ রাজ্যের হেভিওয়েট মন্ত্রীর

“গুজরাতে ট্রিপল ইঞ্জিন সরকার, চলে মার্টিন রেলের মতো ঢিমেতালে।” – কটাক্ষ রাজ্যের হেভিওয়েট মন্ত্রীর



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – আজ তৃণমূল ভবনে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলন থেকে বিজেপিকে তীব্রভাবে কটাক্ষ করলেন রাজ্যের মন্ত্রী ব্রাত্য বসু। প্রসঙ্গত, বিজেপি নেতৃত্ব একাধিকবার জানিয়েছেন যে, কেন্দ্রে ও রাজ্যে এক দলের শাসন প্রতিষ্ঠিত হলে রাজ্যের উন্নতি ঘটবে। ডাবল ইঞ্জিন সরকার প্রতিষ্ঠিত হল এই রাজ্যের উন্নতি ঘটবে। এবার এই ইস্যুতেই বিজেপিকে তীব্র কটাক্ষ করলেন রাজ্যের মন্ত্রী ব্রাত্য বসু। ব্রাত্য বসু জানালেন যে, গুজরাটে ত্রিপল ইঞ্জিন সরকার চলছে। কিন্তু তা মার্টিন রেলের মত চলছে ঢিমেতালে। রাজ্যের মন্ত্রী ব্রাত্য বসু দাবি করলেন, গুজরাট, উত্তরপ্রদেশের তুলনায় সমস্ত দিক থেকে এগিয়ে আছেে পশ্চিমবঙ্গ।

রাজ্যের মন্ত্রী ব্রাত্য বসু জানালেন যে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সময়ে রাজ্যের সামাজিক ও আর্থিক নবজাগরণ ঘটেছে। কিন্তু উত্তরপ্রদেশ, গুজরাট ক্রমশই পিছিয়ে পড়ছে। তবে, পশ্চিমবঙ্গ ক্রমশ এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি জানালেন যে, তাঁরা হিন্দিভাষী মানুষের পক্ষে, কিন্তু ভয়ঙ্কর বিজেপি দলের বিরুদ্ধে। তিনি জানালেন, ২০২১ এ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জয়ের মধ্যে দিয়েই ২০২৪ এর লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির পতন সুনিশ্চিত হয়ে যাবে। এরপর জনগণের উদ্দেশ্যে তিনি জানালেন যে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জেতালেই শুধু হবে না, ২০২৪ সালে বিজেপির উৎখাতের রাস্তাও তৈরি করতে হবে সাধারণ জনগণকে।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এরপর বিভিন্ন বিষয়ে নানা খতিয়ান তুলে ধরতে দেখা গেল রাজ্যের মন্ত্রী ব্রাত্য বসুকে। তিনি জানালেন, রাজ্যের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার বারবার প্রশ্ন তুলেছে। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় করোনার সময় কি করেছেন? তা কেন্দ্র জানে না। এখন পশ্চিমবঙ্গে করোনা থেকে সুস্থতা ১০০%। রাজ্যে একজনও করোনা রোগী নেই। মধ্যপ্রদেশে শিশু মৃত্যুর হার ৪৮%, উত্তরপ্রদেশে যা হলো ৪৩%, গুজরাটে যা ২৪%। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের শিশু মৃত্যুর হার মাত্র ২২ শতাংশ।

তিনি জানালেন, রাজ্য ভিত্তিক মাতৃ মৃত্যুর হার মধ্যপ্রদেশে ১৭৩ শতাংশ, উত্তরপ্রদেশে ১৯৭ শতাংশ, কিন্তু এরাজ্যে মাত্র ৯৮ শতাংশ। এরপর তিনি জানালেন যে, গুজরাটে ত্রিপল ইঞ্জিন সরকার চলছে, কিন্তু সেই সরকার চলছে অত্যন্ত ধীরগতিতে। সরকারি হাসপাতালের বেড সংখ্যা উত্তরপ্রদেশে ৭৬ হাজার, মধ্যপ্রদেশে ৩১ হাজার, কর্নাটকে ৬৯ হাজার, গুজরাটে ২০,১২৭, কিন্তু পশ্চিমবঙ্গে সরকারি বেডের সংখ্যা ৮৫,৬২৭।

ব্রাত্য বসু দাবি করলেন, কলকাতা হলো সবচেয়ে নিরাপদ শহর। গত ২০১৯ সালে উত্তরপ্রদেশে মহিলা সংক্রান্ত অপরাধের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি ঘটেছে। তিনি অভিযোগ করলেন, মহিলাদের বিরুদ্ধে উত্তরপ্রদেশে সবচেয়ে বেশি সংঘটিত অপরাধ দেখা যায়। তবে পশ্চিমবঙ্গে যার সংখ্যা এখন কিছুটা বেড়েছে। কারণ, এখন বাইরে থেকে লোক আসছে। মহিলাদের উপর অত্যাচার বাড়ছে। রাজ্যের পুলিশ নজর রাখছে। বাইরে থেকে লোক আসা কমে গেলে অপরাধও কমে যাবে। কলকাতায় অপরাধের সংখ্যা বিজেপি শাসিত রাজ্যের চেয়ে কম বলে দাবি করলেন তিনি।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!