এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > কংগ্রেস > গ্রেফতার হতে চলেছেন সহধর্মিনী? ব্যাপক চাপে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী!

গ্রেফতার হতে চলেছেন সহধর্মিনী? ব্যাপক চাপে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বিজেপির পক্ষ থেকে নানা সময়ে দেশের এক সময়কার শাসকবর্গ কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগ তোলা হয়। তবে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে সেই অভিযোগকে বারবার অস্বীকার করা হয়েছে। কিন্তু এবার হেভিওয়েট কংগ্রেস নেতা তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সলমান খুরশিদ ব্যাপক চাপের মুখে পড়ে গেলেন। যেখানে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের জন্য কেন্দ্রের পক্ষ থেকে অনুদান দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সেই অনুদানের টাকা তছরুপ করার অভিযোগ উঠল এই হেভিওয়েট কংগ্রেস নেতার সহধর্মিনীর বিরুদ্ধে। যেখানে তার সহধর্মিনী গ্রেপ্তার হতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে। স্বাভাবিকভাবেই গোটা ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাপে পড়ে গিয়েছেন হেভিওয়েট কংগ্রেস নেতা সলমন খুরশিদ বলেই দাবি একাংশের।

সূত্রের খবর, প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সলমন খুরশিদের সহধর্মিণী লুইসের বিরুদ্ধে একটি জামিন অযোগ্য পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত 2010 সালে তৎকালীন ইউপিএ সরকার একটি ট্রাস্টকে 71.5 লক্ষ টাকা অনুদান দিয়েছিল। যেখানে সেই ট্রাস্টকে বাচ্চাদের হুইল চেয়ার থেকে শুরু করে শ্রবণযন্ত্র বিক্রি করার জন্য সেই টাকা দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সেই টাকা তছরুপ করা হয়েছে বলে অভিযোগ। যার পরিপ্রেক্ষিতে সেই সময়কার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা কংগ্রেস নেতা সালমান খুরশিদের সহধর্মিণী ট্রাস্টের অন্যতম প্রধান দায়িত্বে ছিলেন। তাই তিনি অনেকটাই চাপে পড়ে গিয়েছেন।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

স্বাভাবিকভাবেই এখন সেই কংগ্রেস নেতা সালমান খুরশিদের স্ত্রীর নামে জামিন অযোগ্য পরোয়ানা জারি করার কথা জানিয়ে দিয়েছেন মুখ্য বিচারবিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেট। স্বভাবতই ইউপিএ সরকারের আমলে এই ঘটনা ঘটার কারণে ব্যাপক চাপে পড়ে পড়ে যাবে কংগ্রেস বলেও দাবি করছেন একাংশ।  পর্যবেক্ষকদের মতে, এমনিতেই মাঝে মধ্যে কংগ্রেসের বিরুদ্ধে সরব হতে দেখা যায় ভারতীয় জনতা পার্টিকে।

শুধু তাই নয়, বর্তমানে বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে যখন সোচ্চার হয় কংগ্রেস, তখন পাল্টা কংগ্রেসকে চাপে ফেলে তাদের আমলের দুর্নীতির কথা তুলে ধরে বিজেপির কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা। যার জেরে এমনিতেই ব্যাকফুটে পড়ে যায় হাত শিবির। আর এবার সেই কংগ্রেস আমলের প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সহধর্মিনী ট্রাস্টের দুর্নীতির ঘটনা প্রকাশ্যে চলে আসায় ব্যাপক চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে। সব মিলিয়ে হেভিওয়েট কংগ্রেস নেতার সহধর্মিনীর বিরুদ্ধে কি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয় এবং তাকে কেন্দ্র করে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!