এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > রাজ্যের মন্ত্রীর সামনেই পুলিশ কর্তাকে কড়া ধমক রাজ্যপালের, তুলকালাম রাজ্য জুড়ে

রাজ্যের মন্ত্রীর সামনেই পুলিশ কর্তাকে কড়া ধমক রাজ্যপালের, তুলকালাম রাজ্য জুড়ে



রাজ্যের রাজ্যপাল হওয়ার পর থেকেই রাজ্য সরকারের সঙ্গে ক্রমশ বিবাদ তৈরি হয় রাজ্যপাল জগদীপ ধনকারের। সাম্প্রতিককালে 26 শে জানুয়ারি প্রজাতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানে রাজ্যপাল ও মুখ্যমন্ত্রী মুখোমুখি হওয়ায় সেই সমস্ত দ্বন্দ্ব মিটে যাবে বলে আশা করেছিলেন অনেকে। কিন্তু না, তা তো মিটলই না। উল্টে এবার রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা নিয়ে ফের স্বর্গতে দেখা গেল রাজ্যপাল জগদীপ ধনকারকে।

সূত্রের খবর, আজ মহাত্মা গান্ধীর 72 তম বার্ষিকীতে শ্রদ্ধা জানাতে বৃহস্পতিবার সকালে ব্যারাকপুর গান্ধীঘাটে যান রাজ্যপাল। যেখানে উপস্থিত থাকতে দেখা যায়, রাজ্যের বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় সহ প্রশাসনিক কর্তাদের। আর সেখানেই শ্রদ্ধাঞ্জলি পর্ব শেষে পুলিশ প্রশাসনের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন রাজ্যপাল।

উপস্থিত ব‌্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনারেট মনোজ বর্মাকে রীতিমতো ধমক দেন জগদীপ ধনকার। গাড়িতে উঠতে কমিশনারকে ধমক দিয়ে রাজ্যপাল বলেন, “আজ শহীদ দিবস। আর আপনি সামনের সারিতে বসে খবরের কাগজ পড়ছেন! এতটাই হেলদোলহীন আপনি! অনুষ্ঠানের গুরুত্বের নিরিখে আপনার আচরণ অনুপযুক্ত।”

আর এরপরই রীতিমত নিজের তর্জমা উঠিয়ে রাজ্যপাল বলেন, “এটা মারাত্মক গাফিলতি। আমার খুব বিরক্ত লেগেছে। আমার মনে হয় না এই রাজ্যে যেখানে আমরা বাস করছি, সেখানে আইনের শাসন আছে।” এদিকে রাজ্যপাল যখন এহেন আক্রমণ করছেন, তখন তাকে বোঝানোর চেষ্টা করেন ব্যারাকপুরে পুলিশ কমিশনারেট। কিন্তু তাতেও পুলিশ কমিশনার ব্যর্থ হন।


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

আর এরপরই লোকসভা ভোটের সময় ব্যারাকপুরে রাজনৈতিক হিংসা নিয়ে পুলিশ কমিশনারকে প্রশ্ন করেন রাজ্যপাল। তিনি বলেন, “ওদের নামের তালিকা আমাকে পাঠাবেন। আমি কোনো ফাইল খুললে, শেষ পর্যন্ত না দেখে সেই ফাইল বন্ধ করি না। আপনার মত উর্দিধারীরা যদি এইরকম আচরণ করে, তাহলে আমরা কোন দিকে এগোচ্ছি।”

এদিকে পুলিশ কমিশনার সম্পর্কে রাজ্যপাল যখন এই ধরনের মন্তব্য করছেন, তখন সেখানে উপস্থিত রাজ্যের বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। এদিন রাজ্যপালের মুখে এই কথা শুনে পরবর্তীতে তার আচরনের কড়া নিন্দা করেন শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেন, “স্বরাষ্ট্র সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে আমি নিজে রাজ্যপালকে স্বাগত জানাতে উপস্থিত ছিলাম।”

তিনি আরও জানান, “আমরা তাকে হাতজোড় করে নমস্কার জানালেও তিনি প্রতি নমস্কার পর্যন্ত জানাননি। আমি আমার জীবনে কোনো রাজ্যপালকে এই ধরনের ব্যবহার করতে দেখিনি। তিনি একটা উদ্দেশ্য নিয়ে এসেছেন। তিনি রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান হিসেবে আসেননি। তিনি একটা রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিত্ব করছেন।”

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, রাজ্যপাল বনাম রাজ্য সরকারের মধ্যেকার দ্বৈরথ মিটে যাবে বলে অনেকে মনে করেছিল। কিন্তু এদিনের অনুষ্ঠানে যেভাবে পুলিশ প্রশাসনকে নিয়ে কটাক্ষ করলেন রাজ্যপাল, তাতে রাজ্য ও রাজ্যপালের সম্পর্কে বড় ফাটল ধরল বলেই মত ওয়াকিবহাল মহলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!