এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুরুলিয়া-ঝাড়গ্রাম-বাঁকুড়া > গাদ্দারদের গুলি মারার নিদান! বিজেপির কর্মসূচি নিয়ে তীব্র বিতর্ক শুরু বিতর্ক শুরু রাজ্য জুড়ে

গাদ্দারদের গুলি মারার নিদান! বিজেপির কর্মসূচি নিয়ে তীব্র বিতর্ক শুরু বিতর্ক শুরু রাজ্য জুড়ে



আপনাদের সুবিধার্থে খবরের শেষে বিধানসভা ২০২১ উপলক্ষে আমাদের করা সর্বশেষ সমীক্ষার প্রতিটির লিঙ্ক দেওয়া আছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বাংলার বিধানসভা নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে, ততই একের পর এক বিতর্কিত স্লোগান শোনা যাচ্ছে রাজনীতির ময়দানে। কখনো তৃণমূল শিবিরের নেতারা বাছা বাছা বিশেষণ প্রয়োগ করছেন, আবার কখনও গেরুয়া শিবিরের নেতারা মারমার কাটকাট বার্তা দিচ্ছেন। সেরকমই শোনা গেল এবার গেরুয়া শিবিরের মিছিলে। ‘আর নয় অন্যায়’ কর্মসূচির প্রচারে সম্প্রতি তৃণমূলের অত্যাচারের প্রতিবাদে গেরুয়া শিবির শুরু করেছে তাঁদের প্রতিবাদ কর্মসূচী ‘আর নয় অন্যায়’। আর সেই কর্মসূচির প্রচারেই এবার অন্যায়ের কথা শোনা গেল। এই নিয়ে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে রাজ্যজুড়ে বিতর্ক।

শুক্রবার পুরুলিয়ার বরাবাজার এলাকায় গেরুয়া শিবিরের পক্ষ থেকে একটি বাইক মিছিলের আয়োজন করা হয়। মিছিলে অনেক বড়, ছোট নেতা অংশগ্রহণ করেছিলেন। মিছিলটি ‘আর নয় অন্যায়’ কর্মসূচির অভিযান মিছিল বলেই অভিহিত করা হয়েছে গেরুয়া শিবির থেকে। কিন্তু এই মিছিল থেকেই শ্লোগান শোনা যায়, ‘দেশ কি গদ্দারোকো গোলি মারো সালোকো’। এই সংক্রান্ত একটি ভিডিও সম্প্রতি ছড়িয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। যেখান থেকে সবার নজরে পড়েছে এই ঘটনাটি। এবং ভিডিওটি যথারীতি ভাইরাল হয়ে গিয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। এই ঘটনা প্রসঙ্গে তৃণমূলের মুখপাত্র নবেন্দু মাহালী ইতিমধ্যেই জানিয়েছেন, বিজেপি বরাবরই দেশাত্মবোধের নাম নিয়ে দাঙ্গা, হিংসার রাজনীতি চালিয়ে এসেছে।

বাংলাতেও তাঁরা এবার সেই রীতি মেনে ঝামেলা শুরু করছে। পুরুলিয়ার বরাবাজারের মতন জায়গায় গেরুয়া শিবির অশান্তির উস্কানি দিচ্ছে বলে দাবি করেন নবেন্দু। প্রসঙ্গত, পুরুলিয়া জেলার সাতটি বিধানসভায় ‘আর নয় অন্যায়’ কর্মসূচি নিয়ে গেরুয়া শিবির একটি মোটরবাইক মিছিলের আয়োজন করে। সেই মিছিলের নেতৃত্ব ছিলেন জেলা বিজেপি সভাপতি বিদ্যাসাগর চক্রবর্তী। সূত্রের খবর, যখন বরাবাজার থানার কাছে এই মিছিল পৌঁছায়, তখন মিছিলে থাকা কয়েকজন যুবক এ ধরনের স্লোগান দেয়। যদিও এ ব্যাপারে জেলা বিজেপি সভাপতি বিদ্যাসাগর চক্রবর্তীকে প্রশ্ন করলে তিনি বিষয়টি পুরোপুরি অস্বীকার করেন এবং জানান, এটি বাংলার কোন ভিডিও নয়। বিজেপি এই ধরনের কাজ করে না।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এরপরে তৃণমূলকে কটাক্ষ করে বিদ্যাসাগর চক্রবর্তীর দাবী, তৃণমূল নেতারা খোঁচানোর জন্য এধরনের দোষারোপ করেছে। অন্যদিকে ইতিমধ্যেই পুরুলিয়া জেলা পুলিশের তথ্যপ্রযুক্তি সেল এই ভিডিও সংগ্রহ করেছে বলে জানা গিয়েছে। জেলার পুলিশ সুপার এস সেলভা মুরুগান জানান, ভিডিওটি পরীক্ষা করা হচ্ছে। যদি ভিডিওটিতে আপত্তিজনক কিছু প্রমাণিত হয়, তাহলে দোষীদের খুঁজে বার করে শাস্তি দেওয়া হবে। প্রসঙ্গত, তৃণমূল থেকে বরাবরই গেরুয়া শিবিরকে সাম্প্রদায়িক অশান্তি ছড়ানোর কারিগর বলে অভিহিত করা হয়। বিজেপি শিবিরের প্রচারে যে ধরনের স্লোগান শোনা গেছে বলে জানা যাচ্ছে, তাতে কিন্তু এই দাবি মান্যতা পেল বলে মনে করা হচ্ছে।

এবং এই ঘটনা একুশের বিধানসভা নির্বাচনের নিরিখে গেরুয়া শিবিরকে যে যথেষ্ট অস্বস্তির মুখে ফেলল, সে কথা বলাই বাহুল্য। তবে প্রশ্ন উঠেছে, এখানে গদ্দার বলতে কাদের অভিহিত করা হয়েছে? তাহলে কি গেরুয়া শিবির প্রতিশোধের রাজনীতি করার ইঙ্গিত দিচ্ছে? এসবের উত্তর অবশ্য পুলিশি তদন্তের পরেই পাওয়া যাবে। তবে বিজেপির কর্মসূচি থেকে বিতর্কিত স্লোগান নিয়ে রাজ্যজুড়ে যে বিতর্কিত আলোচনা শুরু হয়েছে, তার রেশ যে বহুদূর গড়াবে সেকথা এককথায় মেনে নিচ্ছেন রাজনৈতিক মহলের অনেকেই।

আপনার মতামত জানান -

 

একনজরে দেখে নিন আমাদের সর্বশেষ বিধানসভা ২০২১ ওপিনিয়ন পোল –

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – দ্বিতীয় পর্ব – 

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – প্রথম পর্ব – 

# মালদহ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# উত্তর দিনাজপুরে জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# জলপাইগুড়ি ও কালিম্পঙ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# আলিপুরদুয়ার ও দার্জিলিং জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# কুচবিহার জেলার ওপিনিয়ন পোল –

আপনার মতামত জানান -
আপনার মতামত জানান -

ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!