এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > শিয়রে শুক্রবার! আদালতের ‘ধাঁতানি’ খেয়ে রাজ্য সরকারের চাপ উড়িয়ে মেপে পা কমিশনের

শিয়রে শুক্রবার! আদালতের ‘ধাঁতানি’ খেয়ে রাজ্য সরকারের চাপ উড়িয়ে মেপে পা কমিশনের



শিয়রে শুক্রবার! আদালতের ‘ধাঁতানি’ খেয়ে রাজ্য সরকারের চাপ উড়িয়ে মেপে পা কমিশনের। আগামী শুক্রবার শীর্ষ আদালতের প্রধান বিচারপতি জ্যোতির্ময় ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চে পঞ্চায়েত নির্বাচন মামলা উঠতে চলেছে। আর তাই এই মুহূর্তে পুনর্নির্বাচন ও ভোট গণনার দিন ঘোষণা না করে আদালতের পরবর্তী নির্দেশ মেনেই সিদ্ধান্ত নেবে রাজ্য নির্বাচন কমিশন। জানা গেছে মোট ৫৮,৪৬৭ টি বুথে ভোট হওয়ার কথা ছিল কিন্তু মনোনয়ন প্রত্যাহারের পর ৪৭,৪৫১ টি বুথে ভোট হবে। আদালতের নির্দেশ মেনে নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে নির্বাচন কমিশন ইতিমধ্যেই রাজ্যের সাথে কথা বলে প্রতিটি বুথে সশস্ত্র পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করতে সচেষ্ট হয়েছে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

রাজ্য পুলিশের এক কর্তার দাবি অনুযায়ী কলকাতা ও রাজ্য মিলিয়ে প্রায় ৬০ হাজার সশস্ত্র বাহিনী রয়েছে ফলে প্রতি বুথে একাধিক সশস্ত্র বাহিনী মোতায়েন করতে কোনো সমস্যা হবে না। এমনকি নিরাপত্তা আরো শক্ত করতে ভিন্ন রাজ্য থেকেও সশস্ত্র বাহিনী আনার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। নিরাপত্তা বিষয়ক এই তথ্য কমিশন আদালতে জানাবে বলে জানা গেছে। কমিশনের এক মুখপাত্রের কথায়, ”১১ হাজার বুথে ভোট না হওয়াটা আমাদের কাছে শাপে বর হয়েছে। আশা করছি, এখন আর সমস্যা হবে না।” তাছাড়া ‘পর্যাপ্ত’ নিরাপত্তা দিয়ে ভোট করানোর আত্মবিশ্বাস ফুটে উঠেছে এক কর্তার কথায়। তবে বিরোধী দলগুলি আদালতে কি মতব্য প্রকাশ করে, আদেও কি এতে সন্তুষ্ট হবে নাকি ফের কেন্দ্রিয়বাহিনীর দাবি তুলবে তা দেখার জন্যও মুখিয়ে আছে কমিশন। তবে নবান্নের মোট অনুযায়ী মনোনয়ন জমা, প্রত্যাহার ,প্রচার সমস্ত কিছুর পরেও নির্বাচনের দিন না পেছানোরই সম্ভাবনা রয়েছে। অবশ্য আগামী শুক্রবারই আদালতের সিদ্ধান্তের ওপরেই পঞ্চায়েত ভোটের ভবিষ্যৎ নির্ভর করে রয়েছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!