এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > অনুব্রতকে শোকজ করলে ঘাবড়াই না, বিজেপি “সন্ত্রাসবাদি দল”, নিষিদ্ধ ঘোষণা হোক: ফিরহাদ হাকিম

অনুব্রতকে শোকজ করলে ঘাবড়াই না, বিজেপি “সন্ত্রাসবাদি দল”, নিষিদ্ধ ঘোষণা হোক: ফিরহাদ হাকিম



রাজ্য জুড়ে ক্রমশ বাড়ছে নির্বাচনী উত্তাপ – রাজনৈতিক দলগুলির প্রচার অভিযানে রোজই নতুন নতুন বাকযুদ্ধ শুরু হচ্ছে। আসন্ন নির্বাচনে বাংলায় ৪২ এ ৪২ করার লক্ষ্য নিয়ে নির্বাচনী যুদ্ধে অবতীর্ন হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস – আর সেই লক্ষ্যে দলীয় প্রচার মঞ্চ থেকে বিজেপিকে তীব্র আক্রমনের নিশানা করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ তাঁর বিস্বস্ত সেনাপতিরা। আর এবার লোকসভা নির্বাচনে প্রচারে গিয়ে বিজেপিকে সন্ত্রাসবাদি দল হিসেবে আখ্যা দিলেন কলকাতা পৌরসভার মেয়র তথা রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। সূত্রের খবর, শনিবার সাঁইথিয়া নতুন বাসস্ট্যান্ডে বীরভূম লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী শতাব্দী রায়ের সমর্থনে উপস্থিত হন পুরমন্ত্রী।

আর সেখানেই বক্তব্য রাখতে গিয়ে গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন তিনি। জানা গেছে, এদিনের সভায় সাধ্বী প্রজ্ঞা সিং ঠাকুরকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, “মালেগাঁও বিস্ফোরণে জড়িত সন্ত্রাসবাদীদের যে দল নেবে, তাকে কেন নিষিদ্ধ করা হবে না! সাধ্বী প্রজ্ঞা নিজেই একজন সন্ত্রাসবাদ।” প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, মালেগাঁও বিস্ফোরনের ঘটনায় নাম জড়িয়ে যাওয়া সাধ্বী প্রজ্ঞাকে এবার মধ্যপ্রদেশের ভোপাল কেন্দ্র থেকে দলীয় প্রার্থী করেছে বিজেপি, যা নিয়ে জাতীয় রাজনীতিতে শুরু হয়েছে তীব্র বিতর্ক। তার উপরে ২৬/১১ মুম্বাই হামলায় শহীদ হওয়া হেমন্ত কারবারকে নিয়েও বিরুপ মন্তব্য করে দলকে আরও বিপাকে ফেলে দিয়েছেন সাধ্বী প্রজ্ঞা সিং।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

আর তাই এই ইস্যু তুলে ধরে বীরভূমে দলীয় প্রার্থীর সমর্থনে এসে গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন ফিরহাদ হাকিম বলে মত বিশেষজ্ঞদের। অন্যদিকে এদিন লাভপুরের সভা থেকে নির্বাচন কমিশনকেও তীব্রভাবে আক্রমন করেন রাজ্যের পুরমন্ত্রী। এদিন তিনি বলেন, “অনুব্রত মণ্ডলকে অনেক শোকজ করা হয়েছে। আমি আর এসবে ঘাবড়াই না। ভারতীয় সেনাকে ব্যবহার করার জন্য মোদিকে নিষিদ্ধ করার কথা ছিল। কিন্তু সে ক্ষমতাও নির্বাচন কমিশনের হয়নি। নরেন্দ্র মোদী আর আসবেন না। তাই সকলকে বলছি নিরপেক্ষভাবে কাজ করুন।”

এদিকে ববি হাকিম তৃণমূলের সভামঞ্চ থেকে যখন বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ দাগছেন, ঠিক তখনই বীরভূমে বিজেপির বিশাল বড় এক মিছিল বের হতে দেখা যায়। ফলে দুই দলের সমর্থকদের মধ্যে তীব্র উত্তেজনার পরিস্থিতি তৈরী হলেও, পরবর্তীকালে পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে যায় নি। কিন্তু, ফিরহাদ হাকিম গেরুয়া শিবিরকে ‘সন্ত্রাসবাদী দল’ বলে কটাক্ষ করলে পাল্টা তাঁকে কটাক্ষ করে বিজেপির তরফে ‘মিনি পাকিস্তান’ বলে আক্রমন শানানো হয়। আর তাই, পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি আপাতত শান্ত হলেও, বীরভূমের রাজনৈতিক উত্তাপ আগামীদিনে আরও বাড়বে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!