এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > ছোট ব্যাবসায়ী ও সাধারন মধ্যবিত্তের হাসি ফোটাতে বিশেষ নির্দেশ ভারপ্রাপ্ত অর্থমন্ত্রীর

ছোট ব্যাবসায়ী ও সাধারন মধ্যবিত্তের হাসি ফোটাতে বিশেষ নির্দেশ ভারপ্রাপ্ত অর্থমন্ত্রীর



জুলাই মাসের মধ্যে আয়করদাতাদের বিগত আর্থিক বছরের যাবতীয় আয়ের হিসেব জমা দেওয়াই নিয়ম। যদি কেউ তা না করেন তাহলে সেই করখেলাপ ব্যাক্তিদের ঠিকানায় আসে নোটিস। আর যেই নোটিশের জেরে ভীত হয়ে পড়েন অনেকেই। তবে শুধু সাধারন মানুষ নয়, এবার এই আয়কর দপ্তরের নোটিস নিয়ে চরম উদ্বেগ প্রকাশ করলেন কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত অর্থমন্ত্রী পীযুশ গোয়েল। সম্প্রতি তাঁর স্ত্রীর কাছে এরুপ একটি নোটিস আসাতেই তাঁর এই উদ্বেগ বলে জানান তিনি। এদিন এ প্রসঙ্গে তাঁর স্পষ্ট নির্দেশ, “আয়কর, জিএসটি, কাষ্টমসের মত সংস্থাকে আরও নমনীয় হতে হবে। করখেলাপিদের কাছে প্রথমে নোটিস পাঠিয়ে যদি তাতে কাজ না হয় তবে ফের সেই করপ্রাপকের কাছে আবেদন পত্র পাঠিয়ে তাতেও যদি কাজ না হয় তবে আইনি ব্যাবস্থা নেওয়া উচিত।” অন্যদিকে এদিন কোলকাতার একটি অনুষ্টান থেকে জিএসটি কাউন্সিলের এক অভিনব সিদ্ধান্ত জানিয়ে ছোট ব্যাবসায়ীদের মুখে হাসি ফোটাতে তৎপর ছিলেন পীযুশ গোয়েল।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

জানা গেছে, অর্থমন্ত্রীর ঘোষনা অনুযায়ী এতদিন ধরে কম্পোজিট স্কিমে উৎপাদনশীল যে স ছোট শিল্প সংস্থার বাৎসরিক টার্নওভার 20 লক্ষ টাকা থেকে 1 কোটি টাকা-তারা 1% যে কর দিত এবার থেকে এই সীমা 1 কোটি থেকে বাড়িয়ে দেড় কোটি করা হবে। অন্যদিকে রাজ্যের অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র দীর্ঘদিন ধরেই কেন্দ্রের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে আসছিলেন, “কেন্দ্রীয় সরকার জিএসটি রিটার্নের টাকা আটকে রাখায় এই টাকা হাওয়ালায় চলে যাচ্ছে। মূলধন আটকে যাচ্ছে ব্যাবসায়ীদের।” এদিন সেই বাংলাতেই এসে রাজ্যের অর্থমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে পীযুশ গোয়েল বলেন, “উনি যখন জানেন,তাহলে উনি আটকান।” একই সঙ্গে কেন্দ্রের পূর্বতন ইউপিএ সরকারের অর্থমন্ত্রীকে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি কেন্দ্রের এই ভারপ্রাপ্ত অর্থমন্ত্রী। পীযূশ গোয়েল বলেন, “কেন্দ্রীয় বিক্রয় করের সংস্কার বাবদ রাজ্যগুলিকে ক্ষতিপূরনের প্রতিশ্রুতি দিলেও দুবছল দেওয়ার পর তা তৃতীয় বছরে বন্ধ করে দিয়েছিল মনমোহন সিং সরকার। তাই এই বকেয়া 37 হাজার কোটি টাকা রাজ্যগুলিকে মিটিয়ে দেবে মোদী সরকার।” সব মিলিয়ে জিএসটিতে যে ছোট ব্যাবসায়ীদের ক্ষতির অভিযোগ তুলে সরব হয়েছিল বাংলার সরকার এদিন সেই বাংলা থেকেই ছোট ব্যাবসায়ীদের মুখে হাসি ফোটাতে উদ্যোগী হলেন কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত অর্থমন্ত্রী পীযুশ গোয়েল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!