এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিজেপিতে যোগ দিয়েও রেহাই নেই? সিবিআইয়ের ডাক পেতে চলেছেন বঙ্গের নেতারা?

বিজেপিতে যোগ দিয়েও রেহাই নেই? সিবিআইয়ের ডাক পেতে চলেছেন বঙ্গের নেতারা?



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া এক্সক্লুসিভ – পথটা দেখিয়েছিলেন মুকুল রায় – আর তারপর তাঁর দেখানো পথে লোকসভা নির্বাচনের আগেই একে একে গেরুয়া শিবিরে গিয়ে নাম লিখিয়েছেন শঙ্কুদেব পণ্ডা, সৌমিত্র খাঁ, অনুপম হাজরা বা অর্জুন সিংরা। আর লোকসভা নির্বাচনে টীম মুকুল তৃণমূল কংগ্রেসের নাভিশ্বাস তুলে দিতেই শাসকদলের নীচুতলা থেকে শুরু করে শীর্ষস্তর পর্যন্ত তীব্র ভাঙনের প্রবণতা দেখা দিয়েছে। আর সেই প্রবণতা এতই প্রবল যে মুকুল রায় দাবি করেছেন আগামী কয়েকমাসের মধ্যেই তৃণমূল কংগ্রেস দলটি নাকি বিপ্লবী বাংলা কংগ্রেসের মত অস্তিত্বহীন হয়ে পড়বে!

কিন্তু ভবিষ্যতের কথা ভবিষ্যতে! মুকুল রায় বা শঙ্কুদেব পণ্ডারা যখন তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে নাম লিখিয়েছিলেন, তখন তৃণমূল কংগ্রেস নেতা-কর্মীরা অভিযোগ তুলেছিলেন যে সিবিআই তদন্তের হাত থেকে রেহাই পেতেই নাকি তাঁরা দলত্যাগ করেছিলেন! কেননা এই দুই নেতার নামই অন্যতম বিতর্কিত নারদ স্টিং অপারেশন কেলেঙ্কারিতে জড়িয়েছিল! যদিও এর আগে, এই দুই নেতাকে দীর্ঘক্ষণ জেরা করে সিবিআই এবং দিনের শেষে তাঁদের ছেড়েও দেন। যা দেখিয়ে মুকুলবাবুরা সেই সময় দাবি করেছিলেন, সিবিআই যতবার খুশি ডাকতে পারে তদন্তে পূর্ন সহযোগিতা করব।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে, বিজেপি স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছিল যে, কারোর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠলেই তিনি দোষী হয়ে যান না। রাজনীতি করতে গেলে অনেক সময়েই মিথ্যা অভিযোগের কালী গায়ে লাগে! ফলে এখনও যেহেতু ‘অভিযুক্তরা দোষী সাব্যস্ত’ হন নি, তাই তাঁদের দলে নেওয়া হয়েছে। কিন্তু তার মানে কোনো সময়েই তাঁদের তদন্তের হাত থেকে আড়াল করা হবে না। সিবিআই বা অন্য তদন্তকারী সংস্থা যদি মনে করে তাহলে এই নেতাদের যতবার খুশি সমন পাঠাতে পারে। আর পরবর্তীকালে কোনোদিন যদি কোনো নেতা দোষী সাব্যস্ত হন, তাহলে দল তখন ব্যবস্থা নেবে।

কিন্তু, এরপরেও তৃণমূল সমর্থকদের এই নিয়ে খোঁচা একটুও কমে না! কেননা বাস্তবিকই বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর এইসব নেতাদের সেভাবে সিবিআইয়ের মুখোমুখি হতে হয় নি। যেখানে তৃণমূলে থাকা একাধিক নেতা বা তৃণমূল নেত্রীর ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত একাধিক প্রভাবশালীকে শুধু সিবিআই জেরার মুখোমুখিই হতে হয় নি, যেতে হয়েছে জেলেও। আর তাই, যখন তৃণমূল সমর্থকদের দাবি কোথাও গিয়ে মান্যতা পাচ্ছিল, ঠিক সেই মূহূর্তেই সামনে এল বড় খবর। আমাদের গোপন সূত্রের খবর অনুযায়ী, আগামী সপ্তাহেই সিবিআইয়ের ডাক পেতে চলেছেন বিজেপিতে যোগ দেওয়া একাধিক প্রাক্তন তৃণমূল নেতা। প্রসঙ্গত, সিবিআই বাংলায় সারদা বা নারদ তদন্ত নিয়ে উঠেপড়ে লেগেছে এবং যা জানা যাচ্ছে, সেই তদন্তে জড়িত কেউই নাকি এবার রেহাই পাবেন না, তা তিনি যে দলেরই হন না কেন!

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!