এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুরুলিয়া-ঝাড়গ্রাম-বাঁকুড়া > নতুন তালিকা ঘিড়ে বিজেপিতে তীব্র গোষ্ঠীকোন্দল! আঙুল উঠছে তৃণমূলের দিকে! ফুৎকারে ওড়াল শাসকদল

নতুন তালিকা ঘিড়ে বিজেপিতে তীব্র গোষ্ঠীকোন্দল! আঙুল উঠছে তৃণমূলের দিকে! ফুৎকারে ওড়াল শাসকদল



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – গত শনিবার বিজেপি দলের কেন্দ্রীয় পদাধিকারীদের নতুন তালিকা প্রকাশ করা হয়। এই তালিকা প্রকাশের পর থেকেই বিজেপি দলে শুরু হয় ব্যাপক গোষ্ঠী কোন্দল, চলে ভাংচুর, মারামারি। আবার এই শনিবারেই বাঁকুড়া জেলায় বিজেপির সাংগঠনিক জেলা সভাপতি বিবেকানন্দ পাত্র এই জেলার ছাতনা ৩ মণ্ডল সভাপতি সিদ্ধেশ্বর কুণ্ডু ও ইন্দপুর ১ মণ্ডল সভাপতি বিবেক সাহানাকে মন্ডল সভাপতির পদ থেকে অপসারণের সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেছিলেন।

এই ঘোষণার পর থেকেই বাঁকুড়া জেলায় বিজেপি দলের মধ্যে শুরু হলো ব্যাপক গোষ্ঠী কোন্দল। বিক্ষোভকারী গোষ্ঠীর অভিযোগ, দলের পুরোনো পদাধিকারীদের অপসারিত করে, অন্যদল দল থেকে সদ্য আসা নবাগতদের স্থান দেওয়া হচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ পদে। অপসারিত বিজেপি পদাধিকারীরা প্রচন্ডভাবে ক্ষুব্ধ হয়েছেন দলের প্রতি। গত রবিবার বাঁকুড়ার ইন্দপুরের বাংলা মোড়ে বেশ কিছু স্থানীয় বিজেপি সদস্য মন্ডল সভাপতি বিবেক সাহানাকে মন্ডল সভাপতির পদ থেকে অপসারনের ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানালেন।

জেলা সভাপতির এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়ে তাঁরা জেলা সভাপতি বিবেকানন্দ পাত্রের কুশপুতুল পোড়ালেন। পরদিন সোমবার সন্ধ্যাবেলায় ছাতনার হরিগ্রাম মোড়ে মন্ডল সভাপতিকে অপসারনের সিদ্ধান্তের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে পুনরায় কুশপুতুল পোড়ানো হলো বিজেপির জেলা সভাপতির। এই ঘটনা প্রসঙ্গে ছাতনা ৩ মণ্ডলের বিদায়ী সভাপতি সিদ্ধেশ্বর কুণ্ডু জানালেন যে, তাঁকে সভাপতির পদ থেকে অপসারনের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদেই বেশকিছু বিজেপি সদস্য জেলা সভাপতির কুশপুতুল পুড়িয়েছেন।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

গতকাল মঙ্গলবার বিকালে ছাতনার রঘুনাথপুরে আবার বেশকিছু বিজেপি সদস্য মন্ডল সভাপতিকে অপসারণ করার প্রতিবাদে বিক্ষোভ জানালেন। জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে তাদের অভিযোগ, দলীয় কর্মীদের সঙ্গে কোনো রকম আলোচনা না করেই জেলা সভাপতি নিজের স্বার্থসিদ্ধির জন্য এই ধরণের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন একতরফাভাবে। দলের পুরোনো কর্মীদের অপসারিত করে বিভিন্ন দল থেকে আসা নতুন সদস্যদের বিভিন্ন পদে বসিয়েছেন। গতকাল এই ঘটনার প্রতিবাদে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ জানান তাঁরা।

বিজেপি দলের সদস্যদের এমন প্রতিবাদ-বিক্ষোভ সম্পর্কে বিজেপির জেলা সভাপতি বিবেকানন্দ পাত্রকে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানালেন যে, যারা এভাবে বিক্ষোভ করছেন তারা কেঊ বিজেপির লোক নন। শাসকদল তৃণমূল নিজের কিছু লোককে দিয়ে বিজেপি দলের মধ্যে বিক্ষোভ, গন্ডগোল তৈরি করে রাজনৈতিক ফায়দা তোলার চেষ্টা করছে।

তবে বাঁকুড়া জেলা তৃণমূল সভাপতি শ্যামল সাঁতরা বিজেপি জেলা সভাপতি বিবেকানন্দ পাত্রর এই অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছেন। এ প্রসঙ্গে তিনি জানালেন যে, নিজেদের গোষ্ঠী কোন্দলকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না বলেই, বিজেপি তৃণমূলের কাঁধে চাপিয়ে দিয়ে নিজেদের পিঠ বাঁচাতে চাইছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!