এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > ফাইনাল কাউন্টডাউন শুরু, নির্বাচনের খুঁটিনাটি প্রকাশ করল কমিশন

ফাইনাল কাউন্টডাউন শুরু, নির্বাচনের খুঁটিনাটি প্রকাশ করল কমিশন



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর অবশেষে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে ভোটের দিন জানিয়ে দেওয়া হয়েছে আজ। এবারের নির্বাচন হবে আট দফায়। পাশাপাশি একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বেশ কয়েকটি কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছে কমিশন। 2021 এ বাংলার সাথে সাথে বিধানসভা নির্বাচন হতে চলেছে আসাম, কেরালা, তামিলনাড়ু এবং পুদুচেরিতে। কমিশনের ঘোষণা অনুযায়ী কিন্তু বোঝা যাচ্ছে বাংলার দিকে কড়া নজর রাখছে এবার নির্বাচন কমিশন। প্রসঙ্গত, বাংলায় ইতিমধ্যেই জমে উঠেছে নির্বাচনী লড়াই। মূল প্রতিপক্ষ হিসেবে ময়দানে নেমেছে তৃণমূল বিজেপি। পাশাপাশি বাম এবং কংগ্রেস জোট বেঁধে চালাচ্ছে প্রচার।

প্রচার চালাতে একদিকে যেমন জেলায় জেলায় ছুটে বেড়াচ্ছেন তৃণমূল নেত্রী, তেমনি অন্যদিকে রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বের সাথে কেন্দ্রীয় বিজেপি নেতা নেত্রীরাও ঝাঁপিয়ে পড়েছে এ রাজ্যের দখল পেতে। এদিকে করোনা পরিস্থিতি কিন্তু রাজ্যে এখনো বর্তমান। তাই মুখ্য নির্বাচন কমিশনার জানিয়ে দিলেন, করোনা পরিস্থিতি মাথায় রেখে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের কঠোর নির্দেশ মেনে চলা হবে। কমিশন সূত্রে জানা গিয়েছে, মনোনয়ন জমা দেওয়ার সময় এবার প্রার্থীসহ দুজন মাত্র ভেতরে উপস্থিত থাকতে পারবেন। পাশাপাশি বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচারের ক্ষেত্রে রাশ টানা হয়েছে। বলা হয়েছে, একসঙ্গে পাঁচ জনের বেশি কারোর বাড়িতে গিয়ে প্রচার কিংবা গাড়িতে করে প্রচার চালাতে পারবেন না।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে মনোনয়ন জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে এবার অনলাইনের ব্যবস্থা করেছে কমিশন। বাংলার রাজনৈতিক পরিস্থিতি যাতে কোনোভাবেই হিংসাজনক না হয়ে ওঠে, তার জন্য নির্বাচন কমিশন নির্দেশ দিয়েছে প্রতিটি স্পর্শকাতর বুথে সিআরপিএফ রেখেই ভোট হবে। ইতিমধ্যেই জানা গেছে, পশ্চিমবঙ্গ সহ বাকি চারটি রাজ্যে কয়েকদফায় সিআরপিএফ জওয়ানরা পৌঁছে গিয়েছে। অন্যদিকে বয়স্ক এবং করোনা আক্রান্ত হয়েছেন যারা ইতিমধ্যেই, তাঁদের জন্য বুথে থাকবে বিশেষ ব্যবস্থা। পাশাপাশি ভোট-পরবর্তী হিংসা রুখতে কমিশন এবার বিশেষ কিছু পদক্ষেপ নিচ্ছে। জানা গিয়েছে, এবার কোন বুথে কোন দল কত ভোট পেয়েছে তা আর ভোট গণনার সময় বা পরবর্তীতে জানা যাবেনা।

পাশাপাশি একাধিক ইভিএম এবার একসাথে মিশিয়ে গণনা করা হবে। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, নির্বাচন কমিশনের উদ্দেশ্য এবারের ভোটে যাতে কোনো রকম রাজনৈতিক হিংসা না ছড়ায়, আর সে কারণেই এই কড়া পদক্ষেপ। প্রসঙ্গত, গত বিধানসভা নির্বাচনে কিন্তু তৃণমূল প্রতিকূলতা সত্ত্বেও জয়যুক্ত হয়েছিল 294 টি আসনের মধ্যে 211 টি তে। কংগ্রেস পেয়েছিল 44 টি আসন, বামেরা পেয়েছিল 26 টি আসন এবং বিজেপি পেয়েছিল 3 টি আসন. কিন্তু এবার রাজ্যের শাসক শিবিরকে রীতিমতো কড়া চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলেছে গেরুয়া শিবির বলে মনে করা হচ্ছে। আর তাই একুশের বিধানসভার নির্বাচন পুরোটাই স্পর্শকাতর বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। আপাতত ফাইনাল কাউন্টডাউন শুরু।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!