এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > ফালাকাটা নিয়ে কোমর বাধা মাঠে নেমেছে বিজেপি, চাপ বাড়লো কি পিকের ? জোর শোরগোল!

ফালাকাটা নিয়ে কোমর বাধা মাঠে নেমেছে বিজেপি, চাপ বাড়লো কি পিকের ? জোর শোরগোল!



 

বিজেপির অন্তরাত্মা যে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ, তা জানেন প্রত্যেকেই। বর্তমানে ভারতবর্ষের রাজনীতিতে বিজেপির শীর্ষপদে যে সমস্ত ব্যক্তিরা রয়েছেন, তাদের প্রায় প্রত্যেকেই যে সেই রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের দীক্ষাপ্রাপ্ত, তা কারোই অজানা নয়। তবে বিজেপিকে অক্সিজেন যোগাতে যেমন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ কাজ করে চলে, ঠিক তেমনই গত লোকসভা নির্বাচনের পর থেকে তৃণমূল কংগ্রেসকে উজ্জীবিত করতে ময়দানে নেমে পড়েছে বিখ্যাত নির্বাচনী রণনীতিকার প্রশান্ত কিশোরের টিম।

বিভিন্ন জায়গায় তৃণমূলের কাজকর্ম থেকে শুরু করে কোন জায়গায় কে প্রার্থী হলে ভালো হবে, তার সমস্ত গোপন কাজ সেই প্রশান্ত কিশোরের টিম করছে বলেই খবর। আর এমত পরিস্থিতিতে ফালাকাটা বিধানসভা উপনির্বাচনে তৃণমূল বনাম বিজেপির মধ্যে লড়াই হবে বলে মনে হলেও আসল লড়াই আরএসএস এবং প্রশান্ত কিশোরের টিমের মধ্যে হবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। কিন্তু হঠাৎ এমনটা মনে করা হচ্ছে কেন?

জানা গেছে, ফালাকাটা বিধানসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা না হলেও, প্রচারে পিছিয়ে নেই কোনো পক্ষই। তৃণমূল থেকে বিজেপি, প্রায় প্রত্যেকেই চেষ্টা করছে, এই বিধানসভা কেন্দ্র দখল করার। সেদিক থেকে প্রশান্ত কিশোরের টিম যেমন অনেকদিন আগে ময়দানে নেমে দলের কর্মসূচি ঠিক করে দিতে শুরু করেছে, ঠিক তেমনই বর্তমানে আরএসএস নেতারা পাড়ায় পাড়ায় গিয়ে বৈঠক করে বিজেপির পক্ষে জনজোয়ার আনার চেষ্টা করছেন।

সূত্রের খবর, ফালাকাটার বিভিন্ন পঞ্চায়েত থেকে ইতিমধ্যেই খবর আসতে শুরু করেছে যে, আরএসএস এই উপনির্বাচনে যুবকদের কাছে গিয়ে জাতীয়তাবাদী ও দেশাত্মবোধক ভোট করার জন্য দাবি জানাচ্ছে। আর সেদিক থেকে তারা বিজেপিকে সামনের সারিতে তুলে ধরতে শুরু করেছে।


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

তবে শুধু আরএসএস নয়, এই নির্বাচনে আরএসএসকে সহযোগিতা করছে তাদের ছাত্রসংগঠন অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ বলে খবর। অন্যদিকে নিজেদের মত করে সমীক্ষা চালিয়ে কিভাবে এই কেন্দ্র আবার দখল করা যায়, তার জন্য প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে তৃণমূলের রণনীতিকার প্রশান্ত কিশোরের টিম। এদিকে বিজেপির আরএসএস আর অন্যদিকে তৃণমূলের পিকের টিমের এই লড়াই দেখে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এবারে এই কেন্দ্রে তৃণমূল বনাম বিজেপির লড়াই অপেক্ষা মূল লড়াই হবে পিকের টিম বনাম আরএসএসের। তবে আরএসএসের এভাবে রাস্তায় নামা নিয়ে এদিন সরব হয়েছেন স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বরা।

এদিন এই প্রসঙ্গে ফালাকাটা ব্লক তৃণমূল সভাপতি সন্তোষ বর্মন বলেন, “আমাদের কাছে খবর আছে আরএসএস ও এবিভিপি হিন্দুত্ববাদ প্রচারের মাধ্যমে এলাকার যুবকদের মগজ ধোলাই করছে। এলাকায় হিন্দু মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে অশান্তি বাধাতে চাইছে। আমরা সাধারন মানুষকে এই বিষয়ে সতর্ক থাকার কথা বলছি।” কিন্তু তাদেরকে সাফল্য পাইয়ে দিতে তো তাদের দলের রণনীতিকার প্রশান্ত কিশোরের টিম কাজ করছে! এদিন এই প্রসঙ্গে ওই তৃণমূল নেতা বলেন, “ব্লকে ব্লকে পিকের টিমের লোকজন কাজ করছে‌। তারা তাদের মত করে কাজ করছে। আমরা আমাদের মত করে কাজ করছি।” তবে তৃণমূল যেভাবে বিজেপির হয়ে আরএসএসের রাস্তায় নামার অভিযোগ করছে, তা সম্পূর্ণরূপে অস্বীকার করেছে আরএসএস নেতৃত্ব।

এদিন এই প্রসঙ্গে আরএসএসের জেলা কার্যবাহ মিন্টু কুন্ডু বলেন, “আরএসএস একটি সামাজিক সংগঠন। রাজনীতির সঙ্গে আমাদের কোনো সম্পর্ক নেই। রাজনীতি বিজেপির বিষয়। আমাদের সংগঠন ভোট নিয়ে ফালাকাটায় কোনো বৈঠক করছে না।” তবে আরএসএস নেতৃত্ব এই কথা বললেও, ফালাকাটা বিধানসভা উপনির্বাচনে তারা যে বিজেপিকে কিছুটা হলেও সহযোগিতা করছে, তা উঠে এসেছে এবিভিপির জেলা সংযোজক বিশ্বজিৎ বিশ্বাসের গলায়।

এদিন তিনি বলেন, “বিজেপিকে উপনির্বাচনে জেতানোর জন্য আমাদের সংগঠন ফালাকাটায় প্রচার শুরু করেছে। আমরা ফালাকাটায় প্রচারে যুবকদের কাছে উপনির্বাচনে জাতীয়তাবাদী ও দেশাত্মবোধে ভোট করার আবেদন জানাচ্ছি। তবে আমাদের প্রচারের সঙ্গে আরএসএস নেই।” তবে বিজেপি নেতৃত্ব যে কথাই বলুন না কেন, রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ফালাকাটা বিধানসভা উপনির্বাচন যেদিনই হোক, সেদিন লড়াই এখানে জমজমাট হয়ে উঠবে। কেননা দুই দলের অক্সিজেন যোগানো দুটি গোষ্ঠী যেভাবে এখানে তৃণমূল এবং বিজেপিকে সাফল্য পাইয়ে দিতে তৎপর হয়ে উঠেছে, তাতে শেষ পর্যন্ত তাদের মধ্যে কারা জয়লাভ করে! সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!