এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > বিজেপি > একদা সিএএ বিরোধী আন্দোলনের সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়া নেতা জানালেন, বিজেপি মুসলমানদের শত্রূু নয়!

একদা সিএএ বিরোধী আন্দোলনের সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়া নেতা জানালেন, বিজেপি মুসলমানদের শত্রূু নয়!



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – করোনা‌ ভাইরাস আগমনের আগে পশ্চিমবঙ্গ তথা গোটা ভারতবর্ষে বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর কাছে প্রধান ইস্যু ছিল সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন। যে আইনের পরিপ্রেক্ষিতে সংখ্যালঘুদের বিজেপি ভারত ছাড়া করতে চাইছে বলে অভিযোগ করেছিলেন বিরোধীদের অনেকে। এমনকি গোটা পশ্চিমবঙ্গ জুড়েই ব্যাপারে বিজেপির বিরুদ্ধে তীব্র আন্দোলন গড়ে তুলেছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুধু তাই নয়, এক সময় নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনএর বিরুদ্ধে সামনে থেকে বিজেপির বিরুদ্ধে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন সমাজকর্মী শাহজাদ আলি‌। কিন্তু সেই তিনিই রবিবার 180 ডিগ্রি ঘুরে গিয়ে “বিজেপি মুসলমানদের শত্রু নয়” বলে যোগদান করলেন ভারতীয় জনতা পার্টিতে।

স্বাভাবিকভাবেই এই ঘটনায় মুসলমান মুখ তথা বিশিষ্ট সমাজকর্মী ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগদান করায় বিরোধীদের বিজেপির বিরুদ্ধে তোলা অভিযোগ অনেকটাই ধাক্কা খেল বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। যে সংখ্যালঘু ব্যক্তি সামনে থেকে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে বিজেপির বিপক্ষে লড়াই করেছিলেন, সেই তিনিই এবার গেরুয়া শিবিরে যোগদান করায় বিরোধীরা যে অনেকটাই চাপে পড়বে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। জানা যায় এদিন রাজ্য বিজেপি সভাপতি আদেশ গুপ্তা এবং শ্যাম জাজুর উপস্থিতিতে বিজেপির পতাকা হাতে তুলে নেন সমাজকর্মী শাহজাদ আলী।

আর তারপরেই বিজেপি মুসলমানদের শত্রু নয় বলে দাবি করেন তিনি। এদিন তিনি বলেন, “মুসলিমদের মধ্যে যারা বিজেপির বিরুদ্ধে খারাপ ধারণা রয়েছে, তাদের ভুল প্রমাণ করতেই আমি বিজেপিতে যোগ দিলাম। বিজেপি আমাদের শত্রু নয়। একসঙ্গে বসেই নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে আলোচনা করা হবে।” কিন্তু যেভাবে এতদিন বিরোধীরা বিজেপিকে মুসলমানদের শত্রু বলে আক্রমণ করেছে, তাতে বিজেপি এদিনের এই যোগদানের মধ্য দিয়ে বিরোধীদের অনেকটাই চাপে ফেলে দিল বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এদিন এই প্রসঙ্গে রাজ্য বিজেপির সভাপতি আদেশ গুপ্তা বলেন, “আমরা মুসলমানদের উন্নতি করতে চাই। তাদের প্রতি আমাদের কোনো বিদ্বেষ নেই। আর সেটা বুঝতে পেরেই শয়ে শয়ে মুসলিম ভাই বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তিন তালাক রোধ করতে যে পদক্ষেপ নিয়েছেন, তারপরও অনেক মুসলিম মহিলা বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। আমি তাদের অভিনন্দন জানাই।”

অন্যদিকে এদিন এই প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা শ্যাম জাজু বলেন, “সংশোধনী আইন নিয়ে আলোচনা হচ্ছিল, তখন কিছু রাজনৈতিক দল মুসলিমদের ভুল পথে পরিচালিত করে। এখন তারা বুঝেছে তাদের নাগরিকত্ব যাবে না। তাই শাহীনবাগের প্রতিবাদে উপস্থিত মানুষরা বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন।” সব মিলিয়ে একসময় নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়া শাহজাদ আলী এবার গেরুয়া শিবিরে যোগ দিয়ে বিজেপির ভাবমূর্তি অনেকটাই গ্রহণযোগ্য করে তুললেন বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল। তবে এই গোটা ঘটনায় বিরোধীরা ঠিক কতটা চাপে পড়ে, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!