এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > একই মাঠে প্রথম দফায় বিজেপির জনসভার ভিড় টেক্কা দিল তৃণমূলকে, প্রধানমন্ত্রীর শাবাসি কুড়োলেন লকেট চ্যাটার্জ্জী

একই মাঠে প্রথম দফায় বিজেপির জনসভার ভিড় টেক্কা দিল তৃণমূলকে, প্রধানমন্ত্রীর শাবাসি কুড়োলেন লকেট চ্যাটার্জ্জী



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – রাজ্যজুড়ে ভোটের উত্তাপ যতই বাড়ছে, ততই রাজ্যের প্রধান দুই যুযুধান রাজনৈতিক শিবির তৃণমূল এবং বিজেপির মধ্যে পাল্লা দিয়ে রাজনৈতিক লড়াই বেড়ে চলেছে। গতকালই ডানলপে হয়ে গেল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বড়সড় জনসভা। আর এই জনসভাকে ঘিরে বড়োসড়ো চ্যালেঞ্জ জমে উঠেছে তৃণমূল এবং বিজেপি শিবিরের। প্রসঙ্গত, ডানলপে একই মাঠে তৃণমূল এবং বিজেপির জনসভা ঘিরে জমে উঠেছে রাজনৈতিক তরজা। একই মাঠে বিজেপি এবং তৃণমূলের পর পর সভা হতে চলেছে। সে জায়গায় রাজ্যের শাসক শিবিরকে বড় চ্যালেঞ্জ জানিয়ে দিল এদিন গেরুয়া শিবির। ডানলপে প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় এদিন বিশাল জনসমাগম চোখে পড়ে।

ভিড় জমানোর এই কৃতিত্ব প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী দিয়েছেন গেরুয়া শিবিরের অন্যতম নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়কে। সূত্রের খবর, এদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি লকেট চট্টোপাধ্যায়ের বহুল প্রশংসা করেছেন জনসভার শেষে। প্রসঙ্গত, ডানলপে বিজেপির জনসভায় গতকাল যেরকম জনসমাগম দেখা গিয়েছে, তা এযাবৎকালে গেরুয়া শিবিরের কোন জনসভাতেই হয়নি বলে মনে করছেন ওয়াকিবহাল মহলের অনেকেই। আর এর জন্য হুগলির সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়ের যে অন্যতম ভূমিকা ছিল, সেকথা এক বাক্যে স্বীকার করে নিচ্ছেন গেরুয়া শিবিরের প্রায় প্রত্যেকেই। সূত্রের খবর, এদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জানান, তিনি হেলিকপ্টারে আসার সময় হুগলির জনসভায় ব্যাপক ভিড় দেখেছেন।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

শুধু তাই নয়, আশেপাশের রাস্তাতেও প্রবল ভিড় চোখে পড়ার মতন ছিল বলে জানান তিনি। যথারীতি এর জন্য লকেট চট্টোপাধ্যায় পেয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর বহুল প্রশংসা ও সাধুবাদ। উল্লেখ্য, হুগলি জেলায় কিন্তু বরাবরই তৃণমূল নেত্রীর ব্যাপক ব্যাপক দাপট ছিল। কারণ সিঙুরের লড়াই থেকেই তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উত্থান। কিন্তু 2019 এর লোকসভা নির্বাচনে এই হুগলী জেলাতেই তৃণমূল শিবিরে ধ্বস নামিয়ে দেন বিজেপি নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়। এবং তখন থেকেই তিনি দলীয় নেতৃত্ত্বের কাছে আস্থাভাজন হয়ে ওঠেন বলে মত রাজনৈতিক মহলের।

আর সেই জায়গা থেকেই হুগলির ডানলপে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সভায় মমতা ব্যানার্জ্জীর সভার থেকেও বেশি জনসমাগম যাতে হয়, তা অন্যতম চ্যালেঞ্জ ছিল হুগলির সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যা্যের কাছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, গতকালের সভার পর লকেট যে চ্যালেঞ্জের প্রথম দফায় এখনো পর্যন্ত এগিয়ে রয়েছেন, তা নিঃসন্দেহে বলা যায়। এবার একই মাঠে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সভায় জনসমাগম গেরুয়া শিবিরকে টেক্কা দিতে পারে কিনা সেটাই এখন দেখার। পাশপাশি গতকালের সভার পরিপ্রেক্ষিতে লকেট চট্টোপাধ্যায় যে প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির অন্যত আস্থাভাজন হয়ে উঠলেন, তা এককথায় বলা যায়।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!