এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > “এখানে দিদির লুঠ, ওখানে মোদির লুঠ, লুঠেরা কখনও লুঠেরাকে ধরে না” – বিস্ফোরক মহম্মদ সেলিম

“এখানে দিদির লুঠ, ওখানে মোদির লুঠ, লুঠেরা কখনও লুঠেরাকে ধরে না” – বিস্ফোরক মহম্মদ সেলিম



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – আজ বামেদের ব্রিগেড সমাবেশে বক্তব্য রাখলেন বামপন্থী নেতা মহম্মদ সেলিম। সভামঞ্চ থেকে দুই প্রতিপক্ষ তৃণমূল ও বিজেপিকে একযোগে কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন তিনি। তৃণমূলকে কটাক্ষ করে তিনি জানালেন, কেউ কেউ বলে খেলা হবে, অন্যদিকে বিজেপিকে কটাক্ষ করে তিনি জানালেন যে, মোদীজি স্টেডিয়ামই দখল করেছেন। বসন্ত এসে গেছে কেউ আটকাতে পারবেন না লাল ফুল ফোটা।

মহম্মদ সেলিম জানান, মইদুল, সুদীপ্তকে খুন করা হয়েছে। ১০ বছরে আড়াইশো জন কমরেডকে হত্যা করা হয়েছে। এরপর বিজেপিকে কটাক্ষ করে তিনি জানালেন যে, ব্রিগেড সমাবেশে আসার জন্য বিজেপির চার্টার্ড প্লেনের প্রয়োজন হয় না। তাঁরা এখানে খেলা করতে আসেন নি। মুখ্যমন্ত্রীকে দিদিমনি বলে সম্বোধন করে তিনি জানালেন যে, তাঁকে মাঠ থেকে নক আউট করে দিতে হবে।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এরপর বিজেপিকে কটাক্ষ করে তিনি জানালেন যে, বামেরা শিল্প আনার জন্য চেষ্টা করে, আর বিজেপি শিল্প বিক্রির চেষ্টা করে। বিজেপি সব সময় কি কি বিক্রি করা যাবে, তাই খোঁজে। একদিকে যেমন চলছে দলবদল, অন্যদিকে তেমনি চলছে দিনবদলের লড়াই। বিজেপি মানুষের মধ্যে ভাগ করতে চাইছে। যারা দেশজুড়ে অন্যায় করে, তারাই এখানে এসে মুখ্যমন্ত্রীর কল্যাণে বলছে যে, অন্যায় রুখে দেবেন। চিটফান্ডের টাকা লুট করেছেন যিনি, তিনিই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর পাশে বসে বলছেন যে, চিটফান্ডের অপরাধীদের গ্রেপ্তার করা হবে।

মহম্মদ সেলিম জানান, লকডাউনের সময় তাঁরা টোয়েন্টি-টোয়েন্টি খেলেছেন। এখন তৃণমূল বলছে খেলা হবে। ভোট এলেই সব কাজ করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়। তৃণমূলকে কটাক্ষ করে তিনি জানালেন, ভোটের সময় কাজী, আর কাজ ফুরালে করা হয় কিষেনজি। তিনি জানালেন, বিজেপি ও তৃণমূল সরকার শিক্ষা ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। এজন্যই তাঁরা জেএনইউতে হামলা চালিয়েছিল। যারা একসময় তৃণমূলে লুট করেছিল। এখন তারাই বিজেপিতে নাম লিখিয়েছে। তাঁর কটাক্ষ, ” এখানে দিদির লুঠ, ওখানে মোদির লুঠ,লুঠেরা কখনও লুঠেরাকে ধরে না।”

তৃণমূলকে কটাক্ষ করে তিনি জানালেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের পাঠশালা থেকেই বিভাজন করতে শিখেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। চিটফান্ডের টাকা যে লুট করেছিল, সেই তৃণমূল ছেড়ে যোগদান করেছে বিজেপিতে। যারা চিটফান্ডের টাকা নিয়েছে, তাদের সম্পত্তি নিলাম করে টাকা ফেরত দেওয়ার দাবি জানালেন তিনি। তিনি জানান, বাম সরকার ক্ষমতায় এলে বছর বছর এসএসসিতে নিয়োগ করা হবে, নিয়মিত চাকরি দেয়া হবে। তিনি জানালেন, বুথ থেকে ভূত তাড়াতে হবে।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!