এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > “এই সরকার নিয়োগে দুর্নীতিকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছে।” -তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ হেভিওয়েট বিজেপি নেতার

“এই সরকার নিয়োগে দুর্নীতিকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছে।” -তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ হেভিওয়েট বিজেপি নেতার



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – আগামী বিধানসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে রাজ্যের একাধিক শিক্ষক ও মাদ্রাসা শিক্ষকদের আন্দোলন, অবস্থান-বিক্ষোভ বারবার অস্বস্তিতে ফেলে দিচ্ছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলকে। এই ইস্যুতে তৃণমূলকে একহাত নিচ্ছে একাধিক বিরোধী শিবির। আজ এ প্রসঙ্গে রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য জানালেন যে, তৃণমূল সরকার নিয়োগের ক্ষেত্রে দুর্নীতিকে প্রতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছে।

পার্শ্বশিক্ষক ইস্যুতে আজ রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় বিক্ষোভ দেখালেন বাম নেতৃত্ব। অন্যদিকে খিদিরপুরে এই ইস্যুকে কেন্দ্র করে প্রতিবাদ মিছিল চলল কংগ্রেসের। আবার আগামী ১৯ সে ফেব্রুয়ারি পার্শ্ব শিক্ষকদের নিয়ে প্রতিবাদ মিছিলের আয়োজন করতে চলেছে বিজেপি। সেদিন কলেজ স্ট্রিস্ট থেকে ধর্মতলা পর্যন্ত প্রতিবাদ মিছিলের আয়োজন করতে চলেছে বিজেপি। আজ পার্শ্বশিক্ষক ইস্যুতে রাজ্য সরকারকে একহাত নিলেন রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য।

বিজেপি নেতা শমীক ভট্টাচার্য জানালেন যে, তৃণমূল সরকার নিয়োগের ক্ষেত্রে দুর্নীতিকে এক প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দান করেছে। প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের যে মেধা তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে, তা অস্বচ্ছ। কিসের ভিত্তিতে এই মেধা তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে? তা স্পষ্ট করে জানানোর দাবি জানিয়েছেন তিনি। শমীক ভট্টাচার্য অভিযোগ করেছেন, বহু ছাত্র-ছাত্রী বিজেপির দপ্তরে এসে অভিযোগ করেছেন যাদের প্রশিক্ষণ নেই, তাদের অনেকের চাকরি হয়ে গেছে, অনেকে চাকরি পেতে চলেছেন। কিন্তু প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রার্থীরা চাকরি পাচ্ছেন না।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

বিজেপি নেতা শমীক ভট্টাচার্য দাবি করেছেন যে, কোন মেধাস্বত্বের ভিত্তিতে সরকার এই তালিকা প্রস্তুত করেছে, তার সম্পূর্ণ ফল প্রকাশ করা হোক। তিনি অভিযোগ করেছেন যে, পার্শ্বশিক্ষকদের সঙ্গে প্রতারণা করেছে রাজ্য সরকার। তিনি জানিয়েছেন, ২০১১ সালের পূর্বে একাধিক ধরনা, অবস্থান মঞ্চে গিয়ে রাজ্যের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রী প্রমুখরা অনেক প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। তৃণমূলের বহু মন্ত্রী সেসময় ধরনা মঞ্চ গুলিতে যেতেন।

কখনো তাঁরা মাদ্রাসা শিক্ষকদের ধরনা মঞ্চ, কখনো পার্শ্বশিক্ষকদের ধর্না মঞ্চে যেতেন। তাঁরা বৈঠক করেছেন, শিক্ষকদের আশ্বাস দিয়েছেন। কিন্তু তৃণমূল সরকার গঠনের পর ১০ বছর সময় চলে গেলেও, তাঁদের অবস্থার কোন উন্নতি ঘটে নি। তিনি আরো জানান যে, স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শিক্ষকদের মধ্যে বেতনের যে পার্থক্য তা সারাদেশে ২৭০০ টাকা। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের ক্ষেত্রে এই পার্থক্য হল ৮ থেকে ৯ হাজার টাকা। এভাবে পার্শ্বশিক্ষক সহ নানা ইস্যুতে রাজ্য সরকারকে তীব্রভাবে দোষারোপ রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্যের।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!