এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > অযোধ্যা মন্দিরের অর্থদান নিয়ে বড়সড় পদক্ষেপ এসবিআই এর – জেনে নিন

অযোধ্যা মন্দিরের অর্থদান নিয়ে বড়সড় পদক্ষেপ এসবিআই এর – জেনে নিন



দীর্ঘদিন ধরে অযোধ্যা মামলা চলার পর বেশ কিছুদিন আগেই 135 বছরের বিতর্কিত মামলায় ইতি টেনে অযোধ্যার 2.77 একর জমিতে রাম মন্দির তৈরি হবে তা নিশ্চিত করে দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ অনুসারে সেই সময় কেন্দ্রীয় সরকারকে একটি ট্রাস্টি বোর্ড তৈরীর কথা বলা হয়। রাম মন্দির পরিকল্পনায় গত কয়েক বছর ধরেই অযোধ্যাতে কাজ চলছিল, তবে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে এই কাজ ত্বরান্বিত করতে সুবিধা হয় কেন্দ্রীয় সরকারের। ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় সরকার একটি ট্রাস্টি বোর্ডও বানিয়ে ফেলেছে বলে জানা গেছে। আর এই ট্রাস্টি বোর্ডে এবার অনুদান জমা করার জন্য ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে বলে জানা গেছে।

সূত্রের খবর, অযোধ্যা রাম মন্দির ট্রাস্ট নামে একটি ট্রাস্টি বোর্ড খুলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। আর এদিন অনুদানের অর্থ যাতে স্টেট ব্যাংকের মাধ্যমে জমা দেওয়া হয়, সেহেতু এই ট্রাস্টের নামে একটি একাউন্ট খোলা হয়েছে এস বি আই তে। অন্যদিকে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার অযোধ্যায় স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ায় ‘শ্রী রাম তীর্থ কেশত্র ট্রাস্ট’ নামে ওই অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে। অযোধ্যা রাম মন্দির ট্রাস্টের পক্ষ থেকে জানা গেছে, ইতিমধ্যে অযোধ্যা মন্দির ট্রাস্ট অর্থাৎ রামলাল দানপত্রে যে পরিমান অর্থ জমা পড়েছিল তা এই নতুন একাউন্টে জমা করা হবে আগামী বৃহস্পতিবার।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এতদিন পর্যন্ত অযোধ্যা মন্দির এর অনুদানের টাকা অন্য একটি অ্যাকাউন্টে গ্রহণ করা হতো এবং গোটা বিষয়টি দেখভাল করার দায়িত্ব ছিলেন রাম জন্মভূমি কমপ্লেক্সের প্রধান। জানা গিয়েছে তিনি আবার অযোধ্যার বিভাগীয় কমিশনারও। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মেনে গত 5 ফেব্রুয়ারি সংসদে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি রাম মন্দির তৈরি করার কথা ঘোষণা করেন এবং তার সাথেই রাম জন্মভূমি কমপ্লেক্সের প্রধান অযোধ্যা রাজ পরিবারের সদস্য বিমলেন্দ্র মোহন প্রতাপ মিশ্রের হাতে এই অ্যাকাউন্ট তৈরি করার দায়িত্ব দেন প্রধানমন্ত্রী। পরবর্তীতে অবশ্য উনিশে ফেব্রুয়ারি অযোধ্যা রাম মন্দির ট্রাস্টের প্রথম বৈঠক হয় এবং এই বৈঠকের পর ব্যাংকে একাউন্ট খোলার ব্যাপারে তোড়জোড় শুরু হয়ে যায় বলে খবর।

অন্যদিকে। অযোধ্যা মন্দির করা নিয়ে বহু বিতর্ক তৈরি হয়েছে। অন্যদিকে, সুপ্রিম কোর্টের রায় নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া হলেও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতেই ব্যস্ত ছিল সবাই। তবে অযোধ্যা মন্দির এর কাজ দ্রুত হারে এবার এগিয়ে যাবে বলে আশা রাখছে রাজনৈতিক মহল। অন্যদিকে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের দাবি, এই মুহূর্তে কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে ধর্মীয় বাজি জেতার তাগিদ বেশি। আর সেই সূত্র ধরেই অযোধ্যা মন্দিরকে পুরোপুরি তৈরি করাই মূল লক্ষ্য এই মুহূর্তে কেন্দ্রীয় সরকারের। পুরো পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছে ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!