এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > এবার তৃণমূল সাংসদ নুসরাত জাহানের তোপের মুখে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর! জানুন বিস্তারিতভাবে

এবার তৃণমূল সাংসদ নুসরাত জাহানের তোপের মুখে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর! জানুন বিস্তারিতভাবে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – লকডাউনের মধ্যে নিট এবং জি পরীক্ষা নিয়ে ইতিমধ্যেই রাজ্য বনাম কেন্দ্রের মধ্যেকার দ্বৈরথ চরমে উঠেছে। সেই পরীক্ষা যাতে পিছিয়ে দেওয়া যায়, তার জন্য বারবার কেন্দ্রের কাছে আবেদন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মারন ভাইরাস যখন বাড়তে শুরু করেছে, তখন এভাবে পরীক্ষা নেওয়ার কতটা যুক্তি সম্মত! তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন পড়ুয়ারাও। ইতিমধ্যেই গোটা ব্যাপারটি নিয়ে আদালতে দরজায় গিয়েছেন একাংশ। আর এই পরিস্থিতিতে সেই পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া নিয়ে কেন্দ্রকে চিঠি দিয়েছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী।

তবে রাজ্য এবং কেন্দ্রের সম্পর্কের দ্বৈরথের মাঝেই সম্প্রতি এই বিষয় নিয়ে মুখ খুলে রাজ্য সরকারকে অস্বস্তিতে ফেলে দিয়েছিলেন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। আর এবার জগদীপ ধনকরের এই মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে পাল্টা তাকে কটাক্ষ করলেন বসিরহাটের তৃণমূল সাংসদ নুসরাত জাহান। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে রাজ্যপাল রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে মন্তব্য করলেও, কেন পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়া নিয়ে তার মুখ থেকে কোনোরূপ মন্তব্য শোনা যায়নি, এবার তা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিলেন হেভিওয়েট এই তৃণমূল সাংসদ।

সূত্রের খবর, এইদিন একটি টুইট করেন বসিরহাটের তৃণমূল সাংসদ। তিনি বলেননি, “নিট এবং জি নিয় কেন্দ্রীয় সরকারের বড় ভুল সিদ্ধান্তে আপনার নিস্তব্ধতায় আমি সত্যিই হতবাক ধনকরজী। দয়া করে এবার দেশের পড়ুয়াদের জন্য মুখ খুলুন। করোনা আবহে যারা সত্যি প্রচন্ড সমস্যার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে, নিট এবং জি তো অপেক্ষা করতে পারে নাকি!” বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনা পরিস্থিতিতে স্কুল-কলেজের মত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সমস্ত কিছু বন্ধ। দিনকে দিন বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

তাই এই পরিস্থিতিতে যদি পরীক্ষা নেওয়া হয়, তাহলে সংক্রমণ আরও বৃদ্ধি পেতে পারে। তাই সেই দিকটির কথা মাথায় রেখে এই দুই পরীক্ষার ব্যাপারে একটি খবর প্রকাশ্যে আসার পরেই তা নিয়ে সোচ্চার হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পরিষ্কার ভাষায় তিনি জানিয়ে দেন, কোনোভাবেই ছাত্র-ছাত্রীদের জীবনহানি করে এই সিদ্ধান্ত মেনে নেবেন না তিনি।

তবে এবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সেই সুরে সুর মিলিয়ে তার দলের সাংসদ নুসরাত জাহান যেমন এই বিষয় নিয়ে সরব হলেন, ঠিক তেমনই পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকারের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে নুসরাতদেবী বুঝিয়ে দিলেন, অন্য সমস্ত বিষয়ে রাজ্যপাল রাজ্য সরকারের বিরোধিতা করলেও, কেন কেন্দ্রের বিরুদ্ধে এই ব্যাপারে তিনি সোচ্চার হচ্ছেন না! একাংশ বলছেন, পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল হিসেবে জগদীপ ধনকর যেদিন থেকে দায়িত্ব নিয়েছেন, সেদিন থেকেই রাজ্য সরকারের সঙ্গে তার দ্বৈরথ চরমে উঠেছে।

তৃণমূলের পক্ষ থেকে এই অভিযোগ প্রায়শই করা হয়, রাজভবনটা বিজেপির পার্টি অফিসে পরিণত হয়েছে। আর এবার ভয়াবহ মারন ভাইরাস যখন বাড়ছে, ঠিক তখনই এই পরীক্ষা নিয়ে কেন রাজ্যপাল নীরবতা পালন করছেন! তার ব্যাপারে প্রশ্ন তুলে দিয়ে পাল্টা রাজভবনকে চাপে ফেলে দেওয়ার কৌশল নিলেন বসিরহাটের তৃণমূল সাংসদ তথা বিশিষ্ট অভিনেত্রী নুসরাত জাহান বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। এখন কোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!