এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > এবার সোশ্যাল মিডিয়াতেও দলের হয়ে প্রচার শুরু করলেন মুকুল রায়, চব্বিশের লড়াই এখন মূল লক্ষ্য

এবার সোশ্যাল মিডিয়াতেও দলের হয়ে প্রচার শুরু করলেন মুকুল রায়, চব্বিশের লড়াই এখন মূল লক্ষ্য



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশের পর থেকেই ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছিল গেরুয়া শিবিরে কোন বড় রকমের ভাঙন লাগতে পারে। আর সেই ইঙ্গিতকেই বাস্তবায়িত করে গেরুয়া শিবিরের সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি মুকুল রায় বিজেপি ছেড়ে চলে আসেন তাঁর দীর্ঘদিনের পুরনো দল তৃণমূলে। খুব স্বাভাবিকভাবেই মুকুল রায়ের চলে আসা গেরুয়া শিবিরের কাছে বড় ধাক্কা বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। অন্যদিকে রাজনৈতিক মহলের অনেকেই মনে করছেন মুকুল রায় তৃণমূলে আসা মানেই তৃণমূলের সাংগঠনিক জোর বহুগুণে বৃদ্ধি পাওয়া। পাশাপাশি এবার সোশ্যাল মিডিয়াকে দলের প্রচারের স্বার্থে ব্যবহার করা শুরু করলেন মুকুল রায়।

বরাবরই দেখা গেছে মুকুল রায় যে কোনো দলের সংগঠন তৈরি করার দিকে বিশেষ নজর দেন। আর সেই সূত্রেই মুকুল রায়ের নজর এবার ত্রিপুরায়। পাশাপাশি মুকুল রায় তৃণমূলে যোগ দেওয়ার পর প্রথম টুইট করলেন। এবং সেই টুইটে তিনি তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হলেন। প্রসঙ্গত, তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সম্প্রতি কৃষক বন্ধুদের সাহায্যার্থে তাঁদের ভাতা দ্বিগুণ করে দিয়েছেন। এই প্রতিশ্রুতি তিনি ভোটের আগেই দিয়েছিলেন প্রচারে।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

আর তাই নিয়ে এবার টুইটারে মুকুল রায় ভূয়সী প্রশংসায় ভরিয়ে দিলেন তৃণমূল নেত্রীকে। পাশাপাশি রাজ্য সরকারের কৃষক ভাতা বাড়ানোর এই সিদ্ধান্ত যে অন্যতম নজির রাখবে, সে দাবিও করেন মুকুল রায়। রাজনৈতিক মহলের দাবি, 2024 এর লোকসভা নির্বাচনকে সামনে রেখেই তৃণমূল এখন তাঁদের ঘর গোছাচ্ছে। সেক্ষেত্রে তৃণমূলের পক্ষ থেকে সোশ্যাল মিডিয়ায় জোর দেওয়া হচ্ছে। সূত্রের খবর, এবার যুব তৃণমূলের নামেও আলাদা টুইটার অ্যাকাউন্ট খোলা হতে পারে।

পাশাপাশি অন্যান্য রাজ্যগুলি, যেমন- ত্রিপুরা, আসাম, মনিপুরসহ একাধিক রাজ্যের যেখানে যেখানে তৃণমূল তাঁদের সংগঠন তৈরি করার কথা ভাবছে, সেই রাজ্যগুলির নামেও আলাদা করে টুইটার অ্যাকাউন্ট খোলার ভাবনা চলছে। অন্যদিকে আজকে মুকুল রায় যেভাবে রাজ্য সরকারের কৃষককল্যাণ হেতু কৃষক বন্ধু প্রকল্পের প্রচার করলেন, তাতে আগামী দিনেও তাঁকে তৃণমূলের জনকল্যাণমূলক প্রকল্পের প্রচার চালাতে দেখা যাবে বলেই মনে করা হচ্ছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, সর্বভারতীয় স্তরে প্রচার চালাতে সোশ্যাল মিডিয়ার ওপর জোর দিচ্ছে তৃণমূল বহু দিন থেকেই। আর তাই এবার অন্যান্যদের মতন মুকুল রায়ও সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে তৃণমূল সরকারের প্রচার শুরু করলেন বলে মনে করা হচ্ছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!