এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > এবার রাজ্যপালের সঙ্গে একান্ত বৈঠকে শোভন-বৈশাখী! রাজ্য-রাজনীতিতে নতুন করে শুরু জল্পনা

এবার রাজ্যপালের সঙ্গে একান্ত বৈঠকে শোভন-বৈশাখী! রাজ্য-রাজনীতিতে নতুন করে শুরু জল্পনা



আপনাদের সুবিধার্থে খবরের শেষে বিধানসভা ২০২১ উপলক্ষে আমাদের করা সর্বশেষ সমীক্ষার প্রতিটির লিঙ্ক দেওয়া আছে।

আপনার মতামত জানান -

প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – সম্প্রতি বাংলার রাজনীতিতে প্রায় প্রতিদিনই কিছু না কিছু চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটছে। আর একুশের বিধানসভা নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে, ততই ঘটনার ঘনঘটা বেড়েই চলেছে বলে মনে করা হচ্ছে। এবার রাজ্য রাজনীতিতে শুরু হয়েছে নতুন জল্পনা। কারণ হঠাৎ করেই দেখা গেছে, রাজ্যপাল জগদীপ ধনকরের সঙ্গে রাজভবনে দেখা করতে এলেন শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। খুব স্বাভাবিকভাবেই এই দর্শনের পেছনের কারণ সম্পর্কে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন সবাই। জানা গেছে, শুক্রবার বিকেলে রাজভবনে পৌঁছেছেন শোভন বৈশাখী। কি কারণে শোভন-বৈশাখী দেখা করতে রাজভবনে গেলেন তা নিয়ে কিন্তু ক্রমশ জল্পনা বাড়ছে রাজনৈতিক শিবিরে।

বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় অবশ্য জানিয়েছেন, এই সাক্ষাতের পেছনে বিশেষ কোনো রাজনৈতিক তাৎপর্য নেই। তিনি শুধুমাত্র তাঁর কলেজ মিল্লি আল আমিনের অচলাবস্থা নিয়ে রাজ্যপালকে জানাতে এসেছেন। মিল্লি আল আমিন কলেজ কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্তর্গত। যেহেতু রাজ্যপাল পদাধিকার বলে সমস্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য তাই তাঁকে গোটা বিষয়টি জানাতে চান বৈশাখী। কিন্তু প্রশ্ন উঠেছে, শুধুমাত্র কলেজ সংক্রান্ত ব্যাপারে জানানোর জন্যই কি রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করতে যাওয়া? তাহলে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের যাওয়ার কি কারণ? এর আগেও তো বৈশাখী তাঁর কলেজের বিভিন্ন জটিলতা নিয়ে দেখা করতে গিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে।

সেখানে তো শোভন চট্টোপাধ্যায়কে দেখা যায়নি বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে। তাহলে হঠাৎ করে রাজভবনে রাজ্যপালের সঙ্গে একযোগে দেখা করতে আসার কারণ কি রাজনৈতিক? তবে শোভনের তরফ থেকে যেরকম এ ব্যাপারে বিশেষ কিছু জানা যায়নি, ঠিক সেরকমই বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ও এসব প্রশ্নের জবাব এড়িয়ে গেছেন। কিন্তু শোভন-বৈশাখী ঘনিষ্ঠ সূত্রে জানা গিয়েছে, রাজ্যের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি এবং সাম্প্রতিক ঘটনাপ্রবাহ সম্পর্কে রাজ্যপালকে বিশেষ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেওয়ার উদ্দেশ্যে শোভন-বৈশাখীর রাজভবন অভিযান। প্রসঙ্গত, গত মাসে যখন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ কলকাতায় এসেছিলেন, তখনও তাঁর সঙ্গেও শোভন-বৈশাখী দেখা করতে গিয়েছিলেন।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

সে সময় শোভন চট্টোপাধ্যায়কে একটি ফাইল হাতে প্রবেশ করতে দেখা গিয়েছিল। সূত্রের খবর, বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য অমিত শাহের হাতে সেদিন শোভন চট্টোপাধ্যায় তুলে দিয়েছিলেন। তবে কি তথ্য সে সম্পর্কে কিছুই জানা যায়নি। রাজনৈতিক মহলের অনুমান, শুক্রবার রাজভবনে এরকমই কিছু তথ্যের আদান-প্রদান হবে। লোকসভা নির্বাচনের পরে পরেই শোভন-বৈশাখীকে দেখা যায় গেরুয়া শিবিরে ঢক্কা নিনাদ সহযোগে যোগদান করতে। কিন্তু তারপর থেকেই শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় দুজনেই নিষ্ক্রিয় হয়ে দলে বসে রয়েছেন। বিভিন্নভাবে দলের তরফ থেকে শোভন-বৈশাখীর সঙ্গে কথা বলা হয়েছে, কিন্তু তা সত্ত্বেও শোভন চট্টোপাধ্যায়কে কোনমতেই সক্রিয় করা যায়নি গেরুয়া শিবিরে।

বিজেপির অন্দরে এই নিয়ে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের প্রতি চাপা ক্ষোভ আছে অনেকেরই। সূত্রের খবর, শোভন চট্টোপাধ্যায়কে মুখ্যমন্ত্রীর মুখ করে একুশের বিধানসভা নির্বাচনে লড়াইয়ে নামার কিছুটা আলোচনা চলছিল, কিন্তু অচিরেই সে আলোচনা তিমিরে প্রবেশ করেছে শোভনের নিষ্ক্রিয়তায়। এহেন শোভন-বৈশাখী হঠাৎ করে কি এমন ঘটলো যে সোজা রাজভবনে পৌঁছে গেলেন রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করতে! রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে, এই মুহূর্তে উত্তর হয়ত অজানা। কিন্তু যদি সেরকম কিছুই ঘটে, তাহলে অবশ্যই সময়ের সাথে সাথে তা প্রকাশ হয়ে পড়বে।

আপনার মতামত জানান -

 

একনজরে দেখে নিন আমাদের সর্বশেষ বিধানসভা ২০২১ ওপিনিয়ন পোল –

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – দ্বিতীয় পর্ব – 

# মুর্শিদাবাদ জেলার ওপিনিয়ন পোল – প্রথম পর্ব – 

# মালদহ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# উত্তর দিনাজপুরে জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# জলপাইগুড়ি ও কালিম্পঙ জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# আলিপুরদুয়ার ও দার্জিলিং জেলার ওপিনিয়ন পোল –

# কুচবিহার জেলার ওপিনিয়ন পোল –

আপনার মতামত জানান -
আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!