এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > এবার রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বের প্রশ্নের মুখে পড়তে চলেছেন হেভিওয়েট বিজেপি নেতা, সৌজন্যে ফেসবুক পোস্ট

এবার রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বের প্রশ্নের মুখে পড়তে চলেছেন হেভিওয়েট বিজেপি নেতা, সৌজন্যে ফেসবুক পোস্ট



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – রাজ্যজুড়ে যখন 356 ধারা জারি নিয়ে প্রবলভাবে সরব হয়েছে রাজ্য বিজেপি, ঠিক সে সময় বিজেপিতে থেকেই 356 ধারা জারি নিয়ে পাল্টা প্রতিক্রিয়া দিয়েছিলেন গত মঙ্গলবার রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। আর তাই নিয়ে রীতিমতো শোরগোল পড়ে যায় রাজ্য রাজনীতিতে। বিধানসভা নির্বাচনের আগে এই রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় তৃণমূল ত্যাগ করে বিজেপিতে এসে ব্যাপক প্রচার শুরু করেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে। সেই রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় একুশের ভোটের ফলাফলের পর কিভাবে এতটা পাল্টে গেলেন তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে বিজেপির অন্দরেই। আর এবার তাঁকে বিজেপি নেতৃত্বের প্রশ্নের মুখে পড়তে হতে পারে বলে ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে।

পাশাপাশি গেরুয়া শিবিরের ভাঙনের ইঙ্গিত দিচ্ছেন রাজনৈতিক মহলের অনেকেই। প্রসঙ্গত, একুশের বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল বেরোনোর পর একাধিক বিজেপি নেতা নেত্রী যারা তৃণমূল থেকে বিজেপিতে গিয়েছেন তাঁদেরকে দল ছাড়তে দেখা যাচ্ছে। আবার অনেকেই দলে থেকেও ক্রমশ আলাদা করে নিয়েছেন নিয়েছেন নিজেকে। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় এই দ্বিতীয় বিভাগে পড়েন বলেই মনে করা হচ্ছে। অন্যদিকে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্ট নিয়ে ইতিমধ্যেই জল্পনা তুঙ্গে। আর এবার সেই পোস্ট নিয়ে মুখ খুললেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি জানালেন, দলের তরফ থেকে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে এই ঘটনার কৈফিয়ৎ চাওয়া হবে।

পাশাপাশি রাজ্য বিজেপির অন্যতম সাংসদ অর্জুন সিং রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতি তীব্র কটাক্ষ সহকারে বলেন, বরাবরই ক্ষমতার সাথে থাকতে পছন্দ করেন প্রাক্তন তৃণমূল নেতা তথা মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশি অর্জুন সিং সাবধান করেছেন, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় যদি আবার তৃণমূলে ফেরত যাবার কথা ভাবেন তাহলে সে ক্ষেত্রে বিশাল বড় ভুল করবেন। একইসাথে অর্জুনের বার্তা যদি রাজীব বিজেপিতে থেকেই কাজ করেন তাহলে চব্বিশের লোকসভা নির্বাচনে ফল পাবেন। অন্যদিকে বিশেষজ্ঞদের অনেকেই মনে করছেন, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় ফেসবুক পোস্টে বিজেপি বিরোধী বার্তা দিয়ে তৃণমূলকে পরোক্ষে সাপোর্ট দিলেন।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

যদিও রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে তৃণমূলের ফিরতে চান কিনা তা নিয়ে কিছু জানাননি। অন্যদিকে তৃণমূলের পক্ষ থেকেও দলবদলু নেতাদের দলে ফেরানো নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ এখনো পর্যন্ত হয়নি বলেই খবর। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশাপাশি বিজেপি নেতা তথা জয়ী বিধায়ককে নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। কথা হচ্ছে মুকুল রায়কে নিয়ে। বেশ কিছুদিন যাবৎ তিনিও দলের সঙ্গে যথেষ্ট দূরত্ব তৈরি করেছেন। মূলত বিধানসভা নির্বাচনের আগে আগেই তাঁকে একেবারে নিশ্চুপ হয়ে থাকতে দেখা যায়। যে স্তব্ধতা এখনো তিনি ভাঙেননি। তবে মুকুল রায়ের হয়ে অর্জুন সিং সাফাই দিয়েছেন, পারিবারিক সমস্যার কারণে মুকুল রায় দলীয় কাজকর্ম থেকে দূরে রয়েছেন।

প্রসঙ্গত কিছুদিন আগেই মুকুল রায়ের স্ত্রীকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের দেখতে যাওয়ার পর থেকেই শুভ্রাংশু রায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়েছেন। রাজনৈতিক মহলের অনেকেই মনে করছেন, শুভ্রাংশুর এই বার্তার পেছনে মুকুলের সায় আছে। অন্যদিকে মুকুল রায়ও তৃণমূলে ফেরা নিয়ে কিছু জানাননি। তবে মুকুল রায় এবং দিলীপ ঘোষের রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব কারোর অপরিচিত নয়। গেরুয়া শিবিরের একাংশের মতে, এই মুহূর্তে মুকুল রায় নন বরং রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় অনেক বেশি মাথাব্যাথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে রাজ্য বিজেপির। সেক্ষেত্রে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব এবার কি পদক্ষেপ গ্রহণ করে, সে দিকেই নজর রাজনীতির কারবারীদের।

আপনার মতামত জানান -

ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!