এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > কপাল খুললো কি? মোদী শাহের সৌজন্যে বড়সড় পদ পাচ্ছেন মুকুল? জোর গুঞ্জন রাজনৈতিক মহলে

কপাল খুললো কি? মোদী শাহের সৌজন্যে বড়সড় পদ পাচ্ছেন মুকুল? জোর গুঞ্জন রাজনৈতিক মহলে



আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই শুরু হতে চলেছে রাজ্য জুড়ে পৌরসভা নির্বাচন আর তারপরেই এরাজ্যে শুরু হবে মসনদ দখলের লড়াই অর্থাৎ 2021 এর বিধানসভা নির্বাচন। তবে তার আগে বিজেপি শিবিরে বড়সড় রদবদলের ইঙ্গিত। যদিও এই রদবদল একসময়ের তৃণমূল নেত্রীর ঘনিষ্ঠ মুকুল রায়কে ঘিরে। কারণ, ভোটের আগে মুকুল শিবিরের ক্ষেত্রে বিশাল খবর- এবার হয়তো রাজ্যসভার সংসদ হতে পারেন মুকুল রায়। তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদানের আগে রাজ্যসভার সংসদের পথ ছেড়ে দিয়েছিলেন তিনি। তবে ঘটনাপ্রবাহ যে দিকে মোড় নিচ্ছে, তাতে বিজেপি থেকে রাজ্যসভায় যাওয়ার ব্যাপারে দলের অন্দরে তৎপর হয়েছেন তৃণমূলের এই প্রাক্তন নেতা।

রাজ্যে ইতিমধ্যেই পুর নির্বাচনের দামামা বাজতে শুরু করেছে। আর তার মধ্যেই রাজ্যসভার সাংসদ হওয়ার খবরে স্বাভাবিকভাবেই উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছে মুকুল শিবির। এতদিন মুকুল রায় বিজেপিতে যোগ দিলেও তাকে কোন আনুষ্ঠানিক পদ দেওয়া হয়নি। তাই এবার জোর জল্পনা মুকুল রায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় আসতে চলেছেন। একসময় তৃণমূল নেতৃত্বের খুবই কাছের লোক ছিলেন মুকুল রায়। কিন্তু চিটফান্ড কেলেঙ্কারির পর মুকুল রায় তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন। একইভাবে মুকুল রায়ের পুত্র শুভ্রাংশু রায়ও যোগদান করেন পদ্ম শিবিরে।

মুকুল রায় বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরেই তৃণমূলের বহু নেতা মুকুল রায়ের হাত ধরে বিজেপিতে যোগদান করেন। যার মধ্যে একজন ছিলেন মনিরুল ইসলাম। কিন্তু মনিরুল ইসলামকে বিজেপিতে যোগদান করানোর ফলে এক সময় মুকুল রায় আরএসএসের বিরাগভাজন হন। কিন্তু এসব দিক না ভেবে মুকুল রায় একাগ্রচিত্তে বিজেপির হয়ে কাজ করতে শুরু করেন। যার ফলে ধীরে ধীরে তিনি বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বে কাছাকাছি পৌঁছান। সূত্রের খবর, এবার মুকুল রায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন। যদিও তৃণমূলে থাকাকালীন তিনি রেল মন্ত্রী ছিলেন, যার ফলে জাতীয় রাজনীতিতে তিনি পরিচিত মুখ।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

যদিও বঙ্গ বিজেপিতে কানাঘুষা শোনা যায় মুকুল রায় ভার্সেস রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের লড়াই। তবে কানাঘুষো হলেও এই ঘটনার কোনো প্রমাণ কোথাও পাওয়া যায় না। কিন্তু তাহলেও দিল্লির শীর্ষ নেতৃত্বের কাছাকাছি পৌঁছেছেন মুকুল রায়। খোদ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ মুকুল রায়কে যথেষ্টই পছন্দ করেন বলে জানা গেছে। রাজ্য বিজেপিতে অবশ্য বহু সময়ে দেখা গেছে দিলীপ ঘোষের সাথে তার বহু নীতিতে মতান্তর রয়েছে, তবে তা সত্বেও মুকুল রায় বাংলায় বিজেপির হয়ে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন এখনো পর্যন্ত।

তবে মুকুল রায় বরাবরই স্পষ্ট করে এসেছেন, বাংলার রাজনীতির থেকে দিল্লির রাজনীতিতে তিনি বেশি সচ্ছল। ইতিমধ্যে 2019 এর লোকসভা নির্বাচনের পর বাংলায় 18 টি আসন জেতার ফলে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় স্থান পেয়েছেন আসানসোলের সংসদ বাবুল সুপ্রিয় এবং রায়গঞ্জের সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরী। তবে দু’জনকেই এখনো পর্যন্ত প্রতিমন্ত্রী হিসেবে রাখা হয়েছে। খুব সম্ভবত সামনেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বড় রকমের রদবদল হতে চলেছে। আর তার আগেই জোর খবর, মুকুল রায় রাজ্যসভার সংসদ হতে পারেন। তবে সূত্রের খবর, মুকুল ছাড়াও আরও বেশ কয়েকজন বাংলার বিজেপি সাংসদ আছেন, যারা পরবর্তীতে মোদির মন্ত্রিসভায় জায়গা পেতে চলেছেন।

তবে মুকুল কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হচ্ছেন এই খবরে রাজনৈতিক মহলে জোর সমালোচনা শুরু হয়েছে। এ প্রসঙ্গে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মত, হঠাৎ করে কোন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে কেন তাঁর পদ থেকে সরানো হবে, যেখানে মুকুল রায় ঢুকবেন। অবশ্য এর কোন জবাব মুকুল শিবির থেকে আসেনি। অন্যদিকে, রাজ্যসভায় আসন প্রাপ্তির জল্পনা নিয়েও রাজনৈতিক মহলের একাংশের প্রশ্ন, এই মুহূর্তে 7 থেকে 8 জন গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর রাজ্যসভার সদস্যের মেয়াদ শেষ হচ্ছে সম্প্রতি। ফলে তাঁদের আগে রাজ্যসভায় ফেরত পাঠাতে হবে। সেটাই দলের কাছে অগ্রাধিকার। তাঁদের মধ্যে মুকুল জায়গা করে নিতে পারেন কিনা, সেটাই দেখার। আপাতত সম্পূর্ণ বিষয়টির ওপর নজর রাখবে ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!