এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > কংগ্রেস > এবার কি বিজেপি বিধায়কদের ‘কিনতে’ হাত বাড়াচ্ছে শাসকদল? বড়সড় পদক্ষেপে ক্রমশ তীব্র হচ্ছে জল্পনা

এবার কি বিজেপি বিধায়কদের ‘কিনতে’ হাত বাড়াচ্ছে শাসকদল? বড়সড় পদক্ষেপে ক্রমশ তীব্র হচ্ছে জল্পনা



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – রাজস্থানের বর্তমান রাজনৈতিক আবহ যত দিন যাচ্ছে, ততই আরো জটিল হয়ে পড়ছে বলে মনে করা হচ্ছে। সম্প্রতি রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলটের সঙ্গে শচীন পাইলটের রাজনৈতিক দ্বন্দ্বের কারণে রাজস্থানের কংগ্রেস দল পরিত্যাগ করেন শচীন পাইলট বেশকিছু অনুগামীসহ। মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট বরাবরই দাবি জানিয়ে আসছেন, বিজেপি শিবির টাকার বিনিময়ে বিধায়ক কেনাবেচা করছেন রাজস্থান মন্ত্রীসভা ভেঙে দেওয়ার জন্য।

কিন্তু এবার পাল্টা গেরুয়া শিবির আশঙ্কা করছে, অশোক গেহলট নিজের মন্ত্রীসভা বাঁচানোর জন্য এবার গেরুয়া শিবিরের বিধায়কদের টেনে নিতে পারেন নিজের দিকে। আর তাই নিয়েই এবার গেরুয়া শিবির নিজেদের বিধায়কদের সরাতে শুরু করেছে রাজস্থান থেকে। গেরুয়া শিবিরের দাবি, বিএসপির যেসব বিধায়ক কংগ্রেসে যোগদান করেছেন তাঁদের যদি বিধায়ক পদ বাতিল হয়ে যায় মায়াবতীর প্ল্যান অনুযায়ী, তাহলে গেরুয়া শিবিরের বিধায়কদের নিয়ে টানাটানি শুরু হতে পারে।

আর সেই কারণেই বেশ কয়েকজন বিধায়ককে ইতিমধ্যে গুজরাটে সরিয়ে ফেলেছে গেরুয়া শিবির। এই মুহূর্তে অংকের হিসাব মেলাতে গেলে দেখা যাচ্ছে অশোক গেহলটের হাতে 102 জন বিধায়কের সমর্থন থাকছে। পাইলট শিবিরের বিধায়কদের বাদ দিলে সেখানে এবার যদি বিএসপির বিধায়ক যারা কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন, তাদের বিধায়ক পদ বাতিল হয়ে যায় তাহলে কিন্তু রাজস্থান বিধানসভায় কংগ্রেস সরকার সংখ্যালঘু হয়ে পড়বে। প্রসঙ্গত গত বছর বিএসপির যে নেতারা কংগ্রেসে এসেছিলেন তাদের বিধায়ক পদ বাতিলের মামলা করেছে বিএসপি নেত্রী মায়াবতী।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

সেই মামলার রায় 11 ই আগষ্ট বের হবার সম্ভাবনা। এসব কথা মাথায় নিয়েই বিজেপির ধারণা, অশোক গেহলট একজন পোড়খাওয়া রাজনীতিবিদ। যেকোনো পরিস্থিতিতে তিনি কিন্তু যেকোনো দলের নেতাদের সঙ্গে কথা বলে নিতে পারেন পটুত্ব সহকারে। আর তাই আগেভাগে বিজেপি বিধায়কদের সরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। অন্যদিকে দেখা যাচ্ছে, সম্প্রতি রাজস্থানের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা রাজ্য বিজেপির অন্যতম নেত্রী বসুন্ধরা রাজেও সম্প্রতি বেশ তৎপর হয়ে উঠেছেন।

বুধবারে দিল্লি গিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে তিনি বেশ কয়েক প্রস্থ আলোচনা সেরে নিয়েছেন। বিশেষজ্ঞদের মতে, রাজস্থান ঘিরে এই মুহূর্তে টানটান রাজনৈতিক উত্তেজনা। সংখ্যাতত্ত্বের বিচারে কোন দল এগিয়ে আসবে রাজস্থানের হাল ধরতে, তাই নিয়ে এখন রাজনৈতিক মহলে চলছে তুমুল কাটাছেঁড়া। তার মাঝেই এবার বিধায়ক কেনা বেচার তত্ত্ব উঠে আসায় যথেষ্ট চাঞ্চল্য শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। মোদ্দাকথা, জাতীয় রাজনীতিতে রাজস্থান ঘিরে যে চরম নাটকীয়তা সৃষ্টি হয়েছে সে কথা মেনে নিচ্ছেন সবাই।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!