এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > এবার গেরুয়া শক্তির বিরুদ্ধে সুড় চড়ালেন তৃণমূলের আরেক হেভিওয়েট নেতা, একুশের লড়াই জমজমাট

এবার গেরুয়া শক্তির বিরুদ্ধে সুড় চড়ালেন তৃণমূলের আরেক হেভিওয়েট নেতা, একুশের লড়াই জমজমাট



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – রাজ্য তৃণমূল নেতা মদন মিত্র বরাবরই তৃণমূলের অন্যতম সক্রিয় সৈনিক হিসেবে পরিচিত। যেকোনো বিতর্কে তিনি বরাবর তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশেই থেকেছেন। খুব স্বাভাবিকভাবেই একুশের বিধানসভা নির্বাচনের ক্ষেত্রেও তৃণমূল নেতা মদন মিত্রকে দেখা যাচ্ছে স্বমহিমায়। গতকালই নন্দীগ্রাম থেকে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লড়াইয়ের ঘোষণা করা মাত্রই রাজ্য রাজনীতি শুরু হয়ে গেছে উথাল পাথাল।

সেই সূত্রেই এদিন হাওড়া থেকে মদন মিত্র দাবি করলেন, নন্দীগ্রাম থেকে তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জেতাবেনই, যদি না জেতাতে পারেন, তাহলে তিনি তাঁর হাত কেটে দেবেন। যথারীতি মদন মিত্রের এই দাবী ঘিরে শুউ হয়েছে রাজনৈতিক মহলে তীব্র চাঞ্চল্য। কোনোভাবেই যে গেরুয়া শিবিরকে তিনি বাংলায় প্রবেশ করতে দিতে রাজি নন, সেকথা বারংবার বিভিন্ন শব্দ প্রয়োগে তিনি বুঝিয়ে দেন। বলিউড ফিল্মের সংলাপের ধাঁচেই বার্তা দেন এদিন মদন মিত্র। মুহূর্তের মধ্যেই হাততালিতে ফেটে পড়ে দলীয় সভা।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে হাওড়ার জেলা কো-অর্ডিনেটর রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে ইতিমধ্যেই গুঞ্জন শুরু হয়ে গেছে তৃণমূলের অন্দরে। এপ্রসঙ্গে মদন মিত্র এদিন বলেন, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় অত্যন্ত বুদ্ধিমান ব্যক্তি। কোন ভ্রান্ত পথে তিনি পা দেবেন না বলে জানান মদন মিত্র। পাশাপাশি বেশ কিছুদিন ধরেই শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে তীব্র ক্ষোভ উগরে দিচ্ছিলেন তৃণমূল নেতা। এদিনও তাঁর ব্যতিক্রম হলনা। হাওড়ার বুক থেকে তিনি একই মেজাজে শুভেন্দু অধিকারীকে আক্রমণ করেন। মদন মিত্রের কথায় শুভেন্দু অধিকারী যত কম বলবে, ততই ভালো।

কারণ, শুভেন্দু যত বলবেন নন্দীগ্রামে তৃণমূলের সভায় ভিড় ততই বাড়বে। সব মিলিয়ে একুশের নির্বাচনের দিকে বাংলা যত এগোচ্ছে, ততোই কিন্তু এবার তৃণমূল নেতারা উঠে-পড়ে লাগছেন বাংলার নিয়ন্ত্রণ হাতে নিতে। তবে এক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞদের মতে, তৃণমূল শিবিরের অস্বস্তির কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে দলের ভাঙন। বেশ কিছু নেতা, মন্ত্রী, বিধায়ক দল ছেড়ে চলে যাচ্ছেন প্রায় প্রতিদিন। সবমিলিয়ে তৃণমূল শিবিরের অবস্থা যে বেশ টালমাটাল সে কথা একবাক্যে স্বীকার করে নিচ্ছে রাজনৈতিক মহলের অনেকেই। এই পরিস্থিতিতে মদন মিত্রের চোখা সংলাপ তৃণমূল শিবিরের সংগঠনকে আরও জোরদার করতে পারে কিনা সেদিকেই এখন নজর সবার।

 

আপনার মতামত জানান -

ট্যাগড
Top
error: Content is protected !!