এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > এবার দলবদলের মুখ তৃণমূল শিবিরের দিকে, গেরুয়া শিবিরে চিন্তার ভাঁজ

এবার দলবদলের মুখ তৃণমূল শিবিরের দিকে, গেরুয়া শিবিরে চিন্তার ভাঁজ



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – একুশের বিধানসভার নির্বাচনের আগে কিন্তু রাজ্য রাজনীতিতে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ হয়ে উঠেছে দলবদল। একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে রাজ্য দেখছে একের পর এক শাসক শিবিরের নেতা, মন্ত্রী, সাংসদ, বিধায়ক দলবদল করে ক্রমাগত গেরুয়া শিবিরের শক্তি বাড়াচ্ছেন। কিন্তু এবার হঠাৎ করেই অন্য খবর। লোকসভা নির্বাচনের ফলাফলের ওপর ভিত্তি করে গেরুয়া শিবিরের অন্যতম শক্ত ঘাঁটি হয়ে দাঁড়িয়েছে উত্তরবঙ্গ। এবার সেই উত্তরবঙ্গ থেকে এবার প্রায় 82 টি পরিবার গেরুয়া শিবিরের সঙ্গে সম্পর্ক ত্যাগ করে চলে এল রাজ্যের ঘাসফুল শিবিরে। সূত্রের খবর, কোচবিহারের বলরামপুর 1 এবং 2 নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের 82 টি পরিবার শাসক দলে যোগদান করেছে।

এর ফলস্বরূপ কোচবিহারে গেরুয়া শক্তি কিন্তু অনেকটাই কমতির দিকে বলে মনে করা হচ্ছে। মঙ্গলবার রাতে কোচবিহার বলরামপুর 1 এবং 2 নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের দলত্যাগীদের হাতে তৃণমূলের দলীয় পতাকা তুলে দেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ। এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন তুফানগঞ্জ 1 নম্বর ব্লকের সভাপতি মনোজ বর্মন, বলরামপুর 1 এবং 2 নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান ও সভাপতিরা। এদিন এই দলবদল প্রসঙ্গে উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ জানিয়েছেন, উন্নয়নের সাথে থাকতে গেলে অবশ্যই তৃণমূলের সঙ্গে থাকতে হবে। আর তাই দলে দলে মানুষ বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিচ্ছেন।


দেশে যে কোনো দিন ব্যান হয়ে যেতে পারে হোয়াটস্যাপ। তাই এখন থেকে আমরা শুধুমাত্র টেলিগ্রাম ও সিগন্যাল অ্যাপে। প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার নিউজ নিয়মিতভাবে পেতে যোগ দিন –

টেলিগ্রাম গ্রূপটাচ করুন এখানে

সিগন্যাল গ্রূপটাচ করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে দলবদলের কারণ হিসেবে সদ্য গেরুয়া শিবির ছেড়ে আসা দলত্যাগীরা জানিয়েছেন, গেরুয়া শিবিরে তাঁরা কাজের সুযোগ পাচ্ছিলেননা। আর তাই বীতশ্রদ্ধ হয়ে দলবদল করেন তাঁরা। প্রসঙ্গত, তৃণমূল নেত্রীর উন্নয়নের কর্মকান্ডের সঙ্গী হতেই তাঁদের এই সিদ্ধান্ত। প্রসঙ্গত, উত্তরবঙ্গের লোকসভা নির্বাচনে কিন্তু শাসকদল তৃণমূল গেরুয়া শিবিরের কাছে অনেকটাই পিছিয়ে গিয়েছিল। তাই বিধানসভা নির্বাচনের আগে কিন্তু উত্তরবঙ্গ উদ্ধারের দিকে নজর রেখে যথেষ্ট তৎপর রাজ্যের শাসক দল। কিছুদিন আগেই যুব তৃণমূল সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় গিয়েছিলেন উত্তরবঙ্গ সফরে। সেখানেই তিনি একাধিক দলীয় বৈঠকে যোগ দেন। দলীয় নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হবার বার্তা দেন তিনি।

পাশাপাশি বিরোধীদের ঠেকাতে ভোকাল টনিক প্রয়োগ করেছেন ব্যাপক মাত্রায় বলে জানা যায়। খুব স্বাভাবিকভাবে গেরুয়া শিবিরের এই ভাঙ্গন তৃণমূলে কিছুটা হলেও অক্সিজেনের যোগান দেবে বলে মনে করা হচ্ছে। তবে এখনো পর্যন্ত কোচবিহারের এই দলবদল নিয়ে গেরুয়া শিবিরের পক্ষ থেকে কেউ কোনো প্রতিক্রিয়া জানাননি। তবে রাজনৈতিক মহলের অনেকেই মনে করছেন, বিধানসভা নির্বাচনে দক্ষিণবঙ্গ নিয়ে যেভাবে গেরুয়া শিবিরকে তৎপর দেখা যাচ্ছে, উত্তরবঙ্গে কিন্তু অনেকটাই ঢিলেমি দিচ্ছে তাঁরা। যদিও গেরুয়া শিবির তা মানতে রাজি নয়। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, উত্তরবঙ্গের ওপর যদি নজর দেওয়া না হয়, তাহলে কিন্তু এভাবেই ধীরে ধীরে ভাঙ্গনের রাস্তা ধরবেন গেরুয়া কর্মীরা ও সমর্থকরা।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!