এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > এবার বড়সড় ধাক্কা খেতে চলেছে বিজেপি, হাত ছাড়তে পারে এই দল

এবার বড়সড় ধাক্কা খেতে চলেছে বিজেপি, হাত ছাড়তে পারে এই দল



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – কেন্দ্রের নয়া কৃষিবিল নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের অন্যতম জোটসঙ্গী শিরোমণি অকালি বেজায় ক্ষুব্ধ। কেন্দ্রীয় সরকার প্রস্তাবিত তিনটি নয়া কৃষি বিলের বিরোধিতা করে গতকাল মন্ত্রীত্ব ত্যাগ করলেন বিজেপির আদি জোট সঙ্গী শিরোমণি অকালি দলের গুরুত্বপূর্ণ নেত্রী হরসিমরত কৌর বাদল। তাঁর স্বামী তথা শিরোমণি অকালি দলের শীর্ষ নেতা সুখবীর সিং বাদল এ প্রসঙ্গে জানালেন যে, এই বিল নিয়ে তাদের তীব্র আপত্তি রয়েছে, এ কারণে আগামী দিনে তাঁরা বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটে থাকবেন কিনা সেই বিষয়ে তাঁরা পরবর্তীতে সিদ্ধান্ত নেবেন।

প্রসঙ্গত কৃষি ক্ষেত্রে ব্যাপক আকারের সংস্কারের উদ্দেশ্য নিয়ে ৩ টি কৃষি বিলের কথা ঘোষণা করেছিল কেন্দ্রীয় সরকার। গত বুধবার বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা এ প্রসঙ্গে জানিয়েছেন যে, কেন্দ্র প্রস্তাবিত এই তিনটি বিল কৃষকদের ফসলের উপযুক্ত দাম পেতে সহায়তা করবে। গত বুধবার দিল্লিতে বিজেপির সদর দপ্তর অনুষ্ঠিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি জানিয়েছেন, কৃষকদের সার্বিক কল্যাণের কথা মাথায় রেখেই কেন্দ্রীয় সরকার কৃষি ক্ষেত্রে এই তিনটি বিলের প্রস্তাব এনেছে।

এই নয়া তিন বিলের মধ্যে আছে – দি ফার্মার্স প্রডিউস অ্যান্ড কমার্স (প্রমোশন অ্যান্ড ফেসিলিটেশন) বিল’, ‘দি ফার্মার্স (এমপাওয়ারমেন্ট অ্যান্ড প্রটেকশন) বিল’ এবং ‘দি এসেনশিয়াল কমোডিটিস (অ্যামেন্ডমেন্ট) বিল।’ এই বিলগুলিতে কংগ্রেসের বিরোধিতা সম্পর্কে তিনি জানান যে, কংগ্রেস প্রথম থেকেই এই তিনটি বিলের বিরোধিতা করে এসেছে। কংগ্রেস সহ অন্যান্য বিরোধীদের এই বিলের বিরোধিতা প্রসঙ্গে তিনি জানান যে, স্রেফ রাজনীতির কারণেই এর বিরোধিতা করছে বিরোধীরা। এ প্রসঙ্গে তিনি আরো জানান যে, নির্বাচন ক্ষমতায় এলে এই বিলগুলিকে সামনে আনা হবে, এমন প্রতিশ্রুতি নিজেদের নির্বাচনী ইস্তেহারে এই বিরোধীদল গুলিই একটা সময়ে বলেছিল। সম্প্রতি বিজেপি এই বিল গুলি সামনে আনাতে তারা বিরোধিতা শুরু করেছে।

কিন্তু এবারে বিলগুলির বিরোধিতায় নামল বিজেপিরই শরিক শিরোমণি অকালি দল। প্রসঙ্গত মন্ত্রিসভায় অর্ডিন্যান্স জারির সময় থেকেই শিরোমণি অকালি দলনেতা বীর সিং বাদল সুখবীর সিং বাদল এর তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন। পাঞ্জাবের মানুষ কেন্দ্রীয় সরকারের এই অর্ডিন্যান্স নিয়ে যথেষ্ট চিন্তিত বলে তাঁর দাবি। এই অর্ডিন্যান্স জারি করার পূর্বে কৃষকদের সঙ্গে আলোচনা করে নেবার প্রয়োজন ছিল তিনি জানিয়েছেন।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

তবে প্রথমদিকে কেন শিরোমণি অকালি দল এই বিলের সমর্থন করেছিল? সাংবাদিকদের এই প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান, ” আমরা সরকারি জোটের শরিক। সরকার কী ভাবছে আমরা চাষিদের জানিয়েছিলাম। চাষিরা যা ভাবেন, তাও আমরা সরকারকে জানিয়েছি।’ অকালি দলের এই নেতার অভিযোগ, তাঁরা আপত্তি করা সত্ত্বেও সরকার ওই বিলের কিছুমাত্র পরিবর্তন করেনি। ” শিরোমণি অকালি দলের অভিযোগ, এই বিলে তাদের যথেষ্ট আপত্তি থাকা সত্ত্বেও কেন্দ্রীয় সরকারের এর কোন রকম পরিবর্তন করেনি। তাই এ প্রসঙ্গে তাঁর খেদোক্তি, ” দুঃখের কথা হল, সরকার কোনও পরিবর্তন ছাড়াই ওই বিল পেশ করেছে। যে সরকার কৃষকদের অধিকারের কথা বিবেচনা করে না, আমরা তাঁর শরিক হতে পারি না। আমরা দু’মাস ধরে সরকারকে বোঝানোর চেষ্টা করেছি। কিন্তু এই বিল আমরা মেনে নিতে পারি না।”

এরপর সাংবাদিকরা যখন তাঁকে প্রশ্ন করেন যে, তবে কি তারা এনডিএ জোট ছাড়তে চলেছেন? তার উত্তরে তিনি জানান, ” আমরা এনডিএ-র প্রতিষ্ঠাতা দলগুলির অন্যতম। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে আমরা বৈঠকে বসব। আমাদের দলের কোর কমিটিতে সব সিদ্ধান্ত হয়। দেখা যাক, সেখানে কী সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।”

প্রসঙ্গত, শিরোমণি অকালি দলের পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে আর্জি জানানো হয়েছিল যে, এই তিনটি বিল নিয়ে কৃষকদের আপত্তির বিষয়টিও সরকার বিবেচনা করুক। কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকারের তাদের এই আর্জির কোনো গুরুত্ব দেয়নি বলে তাঁদের অভিযোগ। তাই এই বিলের বিষয়ে তাঁরা সংসদে বিপক্ষে ভোট দান করবেন বলে জানিয়েছেন।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!