এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > এবার বিজেপি প্রার্থী পড়লেন প্রবল আক্রমণের মুখে, অভিযোগ তৃণমূলের দিকে, প্রবল চাপানউতোর দুই দলের মধ্যে

এবার বিজেপি প্রার্থী পড়লেন প্রবল আক্রমণের মুখে, অভিযোগ তৃণমূলের দিকে, প্রবল চাপানউতোর দুই দলের মধ্যে



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – একের পর এক ভোট পর্ব চলছে রাজ্যজুড়ে। কিন্তু অশান্তি এখনো সমানভাবে রয়ে গেছে রাজ্যে। এবারে বাংলার ভোটে নির্বাচন কমিশন বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছিল, যাতে শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ হয়। কিন্তু আখেরে নির্বাচন কমিশনের সেই ব্যবস্থার প্রতি প্রশ্ন চিহ্ন উঠেছে বিভিন্ন ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে। দ্বিতীয় দফার ভোটে যেভাবে নন্দীগ্রামের প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীর কনভয়ে বা তাঁর ভাই সৌমেন্দু অধিকারী আক্রান্ত হয়েছিলেন এবার তৃতীয় দফার ভোটে উলুবেড়িয়া উত্তর কেন্দ্রে আরও এক অধিকারী আক্রান্ত হলেন।

উলুবেড়িয়া উত্তর কেন্দ্রের প্রার্থী হলেন পাপিয়া অধিকারী। এদিন উলুবেড়িয়া হাসপাতালের সামনে পাপিয়া অধিকারী প্রবল হামলার মুখে পড়েন। সূত্রের খবর পাপিয়া অধিকারীর ওপর রীতিমত থাপ্পড়, চড়, ঘুঁসি চলে। হাসপাতালের সামনে এ ধরনের ঘটনায় প্রশাসনের দিকে প্রশ্নচিহ্ন তুলেছেন পাপিয়া অধিকারী। তিনি জানান, গোটা বিষয়টি নিয়ে তিনি অর্থাৎ পাপিয়া অধিকারী নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হবেন। পাশাপাশি মহিলা নিরাপত্তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন পাপিয়া অধিকারী।

ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে কৈলাশ বিজয়বর্গীর তরফ থেকে ইতিমধ্যে এই ঘটনা প্রসঙ্গে কমিশনের কাছে ফোন গিয়েছে বলে খবর। পাপিয়া অধিকারী দাবি করেছেন, উলুবেড়িয়া দক্ষিণে এদিন সকাল থেকে বিজেপির পক্ষে ভোট পড়েছে আর তাই তৃণমূল ভোটে পিছিয়ে পড়ার জন্য হামলা চালাচ্ছে। পাপিয়া অধিকারী এদিন অভিযোগ করেন, তৃণমূলের পক্ষ থেকে বিজেপির বহু সমর্থককে আঘাত করা হয়েছে ধারালো অস্ত্র দিয়ে। আহতদের হাসপাতালে দেখতে এসেছিলেন পাপিয়া আর তখনই তাঁর ওপর হামলা হয়।

একই সাথে বিজেপি এবং তৃণমূলের সমর্থকদের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয়ে যায় হাসপাতাল চত্বরে। সবমিলিয়ে পরিস্থিতি যে যথেষ্ট উদ্বেগজনক তা অস্বীকার করার উপায় নেই। এই ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ এসে পরিস্থিতি আয়ত্তে আনে, কিন্তু আপাতত এই ঘটনাকে ঘিরে রাজনৈতিক উত্তেজনা যে বাড়বে তৃণমূল এবং বিজেপির মধ্যে সে কথা অনস্বীকার্য। প্রশ্ন উঠেছে, কেন্দ্রীয় সুরক্ষা বাহিনী নিয়ে। নজরকাড়া কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা বাহিনী এবার দেখা গিয়েছে বাংলার ভোটের আবহে। সেক্ষেত্রে প্রশ্ন উঠছে, কেন্দ্রীয় বাহিনীদের উপস্থিত থাকা সত্বেও এলাকায় কিভাবে খোদ প্রার্থীকে হামলার মুখে পড়তে হচ্ছে!

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!