এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মেদিনীপুর > এবার আবার বিজেপি শিবিরে বিশাল ভাঙন, নেতাদের কপালে চিন্তার ভাঁজ

এবার আবার বিজেপি শিবিরে বিশাল ভাঙন, নেতাদের কপালে চিন্তার ভাঁজ



2019 এর লোকসভা নির্বাচনের পরে বিজেপি দলে যোগ দেওয়ার প্রবণতা ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পেয়েছিল। অন্যান্য দল ও তৃণমূল থেকে বহুল পরিমাণে সদস্যরা এসে বিজেপিতে যোগদান করেন। ফলে রাজ্যের বহু পুরসভা, পঞ্চায়েতের রং বদলে যায়। তবে বর্তমানে বেশ কিছুদিন ধরেই বিজেপি থেকে শাসক দলে ফিরতে শুরু করেছে দলবদলকারী  নেতা-নেত্রীরা। এর ফলে বিজেপি শিবিরে স্বাভাবিকভাবেই চিন্তার ভাঁজ। একাধিক পঞ্চায়েত, পুরসভা ক্রমশ বিজেপির হাতছাড়া হচ্ছে। এদিনও একই নীতি অনুসরণ করে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার গোয়ালতোড়ে ভাঙ্গন লাগলো বিজেপি দলে।

এবার পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় গোয়ালতোড় এর হুমগড় এলাকায় বিজেপি শিবিরে ব্যাপক ভাঙ্গন লাগলো। এলাকার বিজেপির উত্তর মন্ডলের সাধারণ সম্পাদক রামু মাহার, এলাকার যুব মোর্চার প্রাক্তন সভাপতি সন্তু হাজরা ও সংখ্যালঘু মোর্চার কয়েকজন নেতা সহ অন্যান্যরা তৃণমূল বিধায়ক আশীষ চক্রবর্তী ও পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি অজিত মাইতির তত্ত্বাবধানে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করলেন। ইতিমধ্যে যোগদানকারী সদস্যরা জানিয়েছেন, এনআরসি এবং নাগরিকত্ব আইন এর প্রতিবাদে তাঁরা বিজেপি দল ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিলেন।

উল্লেখ্য, গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে এই হুমগড় এলাকাতেই বিজেপি উল্লেখযোগ্য ফল করে। দুদিন আগেই এই জেলার শালবনি পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য কাকলি সামন্ত বিজেপি ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেন। আর তারপরেই কেশপুর এলাকার বিজেপি সংখ্যালঘু মোর্চার নেতা মহম্মদ সেলিম তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছেন।


ফেসবুকে আমাদের নতুন ঠিকানা, লেটেস্ট আপডেট পেতে আজই লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

এদিন অজিত মাইতি দাবি করেছেন, বিজেপি থেকে প্রচুর সদস্য তৃণমূলের আসবার কথা জানিয়েছেন। তিনি দাবি করেন, কিছু মানুষ 2019 এর লোকসভা ভোটের পর বিজেপির দিকে গিয়েছিলেন, কিন্তু অচিরেই তাঁরা নিজেদের ভুল বুঝতে পারে এবং বিজেপির আসল স্বরূপ জেনে আবার তৃণমূলে ফেরত আসতে থাকে। মূলত তাঁরা বিজেপি ছেড়ে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নের সামিল হওয়ার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে মনে করা হচ্ছে তৃণমূলের তরফ থেকে। অন্যদিকে সূত্রের খবর, বিজেপি থেকে অনেকেই তৃণমূল কংগ্রেসের খুব তাড়াতাড়ি যোগ দিতে চলেছেন। যদিও বিজেপি শিবিরে এই খবর খুব একটা প্রভাব ফেলছে না বলে জানা যাচ্ছে।

দলবদল এর বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, এভাবে যদি বিজেপি থেকে তৃণমূলে দিনের-পর-দিন দল বদল ঘটতে থাকে, তাহলে অচিরেই বিজেপির সংগঠন ভেঙ্গে পড়তে পারে। 2021 এর যে বিধানসভা নির্বাচনকে বিজেপি পাখির চোখ করেছে, সেই নির্বাচনে তাঁদের জন্য কোন অঘটন ঘটে যাওয়া অসম্ভব নয়। সুতরাং অবিলম্বে বিজেপির সংগঠনের দিকটি খতিয়ে দেখা উচিত।

অন্যদিকে, রাজনৈতিক মহলের দাবি, বিজেপি থেকে তৃণমূলের সদস্যরা ফিরে আসায় তৃণমূলের শক্তি বেশ কিছুটা বাড়লোবাড়ল বলে মনে করা হচ্ছে তবে বেশ কিছুদিন ধরেই দলবদল এর ব্যাপার নিয়ে বিজেপি শিবিরে চিন্তার ভাঁজ। আপাতত সমগ্র পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছে রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!