এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > বিজেপি > সাংসদের রাজ্য ভাগের দাবি নিয়ে উত্তাল বিজেপির অন্দরে? রাজ্য সভাপতির বিশেষ নির্দেশে বাড়ছে জল্পনা

সাংসদের রাজ্য ভাগের দাবি নিয়ে উত্তাল বিজেপির অন্দরে? রাজ্য সভাপতির বিশেষ নির্দেশে বাড়ছে জল্পনা



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – বিজেপিকে ক্রমশ কোণঠাসা করে দিচ্ছে রাজ্য ভাগের দাবি। এই ইস্যু নিয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হয়েছে একাধিক শিবির। রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের পাশাপাশি সিপিএম, কংগ্রেস নেতৃত্ব এর বিরুদ্ধে সরব। রাজ্যবাসীও যে বিজেপির এই দাবিতে সহমত হবেন না, তা বুঝতে পেরেছেন দল ও বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাই এবার এ প্রসঙ্গে বিশেষ নির্দেশ দিলেন তিনি। সম্প্রতি বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ দলকে নির্দেশ দিয়েছেন যে, রাজ্য ভাগের দাবি নিয়ে আগবাড়িয়ে কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করা যাবে না। যারা যারা পৃথক রাজ্যের দাবি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করেছিলেন, তাদের সমস্ত পোস্ট সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

প্রসঙ্গত আলিপুরদুয়ারের বিজেপি সাংসদ জণ বার্লা উত্তরবঙ্গকে একটি আলাদা রাজ্য বা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে ঘোষণার দাবি তুলেছেন। এরপর বিষ্ণুপুরের বিজেপি সংসদ সৌমিত্র খাঁ দাবি করেছেন যে, জঙ্গলমহলকে একটি আলাদা রাজ্য হিসেবে ঘোষণা করা হোক। বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ জানিয়েছেন, জঙ্গলমহলের ইতিহাস সিরাজদৌলার অধীনে ছিল না। জঙ্গলমহল মানভূম, সিংভূমের সঙ্গে যুক্ত ছিল। তাহলে কেন জঙ্গলমহল আলাদা রাজ্যের দাবি তুলতে পারে না? তিনি জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রী যদি প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে বহিরাগত বলতে পারেন, তবে তাদেরও এক দিন বহিরাগত বলতে পারেন।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

উত্তরবঙ্গ, জঙ্গলমহলকে আলাদা রাজ্য হিসেবে ঘোষণার দাবির পেছনে যুক্তি হিসেবে তাঁরা দেখিয়েছেন যে, দীর্ঘদিন ধরে এই এলাকার মানুষের সঙ্গে বঞ্চনা করা হয়েছে। এলাকার কোনো উন্নয়ন ঘটে নি। বারবার সন্ত্রাসের অভিযোগ উঠেছে। তবে, এই দাবি প্রসঙ্গে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন যে, পশ্চিমবঙ্গকে একটি রাজ্য হিসেবে দেখে বিজেপি। রাজ্যভাগ বিজেপি সমর্থন করে না। গোটা পশ্চিমবঙ্গের একসঙ্গে উন্নয়ন ও অগ্রগতি চায় বিজেপি। কিন্তু রাজ্যে অরাজকতা চলছে। তাই বিভিন্ন প্রান্তে এরকম দাবি উঠতে শুরু করেছে।

রাজ্য ভাগের ইস্যুতে বিজেপিকে কোণঠাসা করতে শুরু করেছে একাধিক শিবির। তৃণমূল মুখপাত্র সুখেন্দুশেখর রায় জানিয়েছেন যে, বিজেপি ২০ সে জুন পশ্চিমবঙ্গ দিবস পালন করেছে। আসলে পশ্চিমবঙ্গ দিবসের নাম করে বিজেপি বঙ্গভঙ্গ করতে চাইছে। তারা ইতিহাসকে বিকৃত করে। এমন জনাদেশ আসার পরেও নানা রকম চক্রান্ত করছে বিজেপি। সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী জানিয়েছেন, একদিকে বিজেপি পশ্চিমবঙ্গ দিবস পালন করছে। আরেক দিকে তাদের সাংসদেরা পশ্চিমবঙ্গ ভাগ করার ডাক দিচ্ছেন। এই সব ষড়যন্ত্র কোন ভাবেই বরদাস্ত করা হবে না।

কংগ্রেস সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য জানিয়েছেন, রাজ্য ভাগ কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যাবে না। রাজ্যের মানুষ এটা মানবেন না, বিজেপি নেতারা তা জানেন। তবু কেন তাঁরা সাংসদের এই সমস্ত দাবিকে প্রশ্রয় দিচ্ছেন? এর পেছনে কোন দুরভিসন্ধি আছে কিনা? সেটাই প্রশ্ন। এরপর এ বিষয়ে দলকে বিশেষ নির্দেশ দিয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁর এই নির্দেশ পাওয়ার পর দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা বিজেপি সভাপতি বিনয় বর্মন জানালেন যে, দলের রাজ্য নেতারা চাইছেন না, এ বিষয়ে আর কিছু হোক। শীর্ষ নেতৃত্বের নির্দেশ ছাড়া পৃথক রাজ্যের দাবিতে জেলায় কোন আন্দোলন বা প্রচার করা যাবে না।

 

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!