এখন পড়ছেন
হোম > রাজনীতি > তৃণমূল > দলীয় হেভিওয়েটরা গ্রেপ্তার হতেই এবার স্টিং অপারেশনকারী ম্যাথুর গ্রেপ্তারির দাবিতে সরব তৃণমূল

দলীয় হেভিওয়েটরা গ্রেপ্তার হতেই এবার স্টিং অপারেশনকারী ম্যাথুর গ্রেপ্তারির দাবিতে সরব তৃণমূল



প্রিয় বন্ধু মিডিয়া রিপোর্ট – তিনি যদি ভিডিও ফুটেজ না করতেন এবং তা যদি প্রকাশ্যে না আসত, তাহলে কোনো সমস্যাই হত না। সেক্ষেত্রে তৃণমূলের সাধু-নেতাদের অসাধু রুপ সামনে আনার পেছনে সবথেকে বড় কৃতিত্ব নারদ কর্তা ম্যাথু স্যামুয়েলের বলেই দাবি করছে সমালোচক মহল। বিরোধীদের পক্ষ থেকে এই পর্দা ফাঁস করার জন্য বারবার ম্যাথু স্যামুয়েলকে ধন্যবাদ জানানো হয়েছে। বহুদিন আগে সেই ভিডিও ফুটেজ ফাঁস করা হয়েছিল। কিন্তু তারপর বহু জলঘোলা হলেও, সেভাবে কারো বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। কিন্তু এবার তৃতীয় তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় আসতে না আসতেই সোমবার গ্রেফতার করা হয় রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়, ফিরহাদ হাকিম, বিধায়ক মদন মিত্র এবং প্রাক্তন মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায়কে।

ইতিমধ্যেই এই গোটা ঘটনায় বিজেপির বিরুদ্ধে চক্রান্তের অভিযোগ তুলতে শুরু করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। পরিকল্পনামাফিক তাদের নেতা এবং মন্ত্রীদের গ্রেফতার করা হলো বলে অভিযোগ করছে শাসক দল। তবে এবার গোটা বিষয় নিয়ে মুখ খুলে নারদ কর্তা ম্যাথু স্যামুয়েলের এত টাকার উৎস নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিলেন তৃণমূল সাংসদ অপরুপা পোদ্দার। বর্তমান পরিস্থিতিতে তৃণমূল সাংসদের এই মন্তব্য এখন কার্যত শোরগোল ফেলে দিয়েছে রাজ্য রাজনীতিতে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সোমবার চার হেভিওয়েট গ্রেফতার হতে না হতেই রাজ্য রাজনীতিতে শোরগোল পড়ে যায়। তৃণমূলের পক্ষ থেকে প্রশ্ন করা হয়, ভিডিও ফুটেজে দেখা গিয়েছিল শুভেন্দু অধিকারী এবং মুকুল রায়কেও। তাহলে কি তারা বিজেপিতে যোগ দেওয়ার কারণে ছাড় পেয়ে গেলেন? একইভাবে নারদ কান্ডে ভিডিও ফুটেজে আরও অনেকের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছিল। তাদের বিরুদ্ধেও যেন দ্রুত চার্জশিট দেওয়া হয়, তার জন্য মামলাকারী বিশিষ্ট কংগ্রেস নেতা অমিতাভ চক্রবর্তী তদন্তকারী সংস্থার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

স্বাভাবিক ভাবেই ভবিষ্যতে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা এই ব্যাপারে আরও বড় কোনো পদক্ষেপ নিতে পারে বলে আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। আর তার মাঝেই নারদ কর্তা এত স্যামুয়েল যাকে নিয়ে এত সমস্যা, তার বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন তৃণমূল সাংসদ অপরুপা পোদ্দার। এদিন তিনি বলেন, “আমাকে যতবার সিবিআই ডেকেছে, আমি গিয়েছি। আবার যাব। কিন্তু নারদ কান্ডে কেন নারদ কর্তা ম্যাথু স্যামুয়েলকে গ্রেপ্তার করা হবে না! তিনি কোথা থেকে এত টাকা পেলেন! এটা তাকে কেন জিজ্ঞাসা করা হচ্ছে না!” অর্থাৎ তৃণমূলের একের পর এক হেভিওয়েট নেতা এবং মন্ত্রীরা যখন গ্রেপ্তার হচ্ছেন, তখন অপরুপা পোদ্দার নারদ কান্ডে টাকার উৎস নিয়ে প্রশ্ন তুলে নারদ কর্তাকে চাপে ফেলে দেওয়ার চেষ্টা করলেন। যা অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

আমাদের নতুন ফেসবুক পেজ (Bloggers Park) লাইক ও ফলো করুন – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের টেলিগ্রাম গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের সিগন্যাল গ্রূপে জয়েন করতে – ক্লিক করুন এখানে



আপনার মতামত জানান -

একাংশ বলছেন, এই নারদ কান্ডের ভিডিওতে টাকা নিতে দেখা গিয়েছিল আরামবাগের তৃণমূল সাংসদ অপরুপা পোদ্দারকেও। সেক্ষেত্রে যখন নানা মহলে দাবি উঠছে কেন অন্যান্যদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হল না! তখন ভবিষ্যতে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার পক্ষ থেকে সেই ভিডিও ফুটেজে অন্যান্য যাদের দেখা গিয়েছিল, তাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হতে পারে। আর এই পরিস্থিতিতে দলের সদস্যরা গ্রেফতার হতে না হতেই নারদ কর্তার টাকার উৎস নিয়ে প্রশ্ন তুলে কিছুটা হলেও বাঁচার চেষ্টা করলেন তৃণমূল সাংসদ বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

অর্থাৎ এক্ষেত্রে নারদ কর্তাকে চাপে ফেলে দিয়ে তদন্ত প্রক্রিয়াকে অন্যদিকে ঘুরিয়ে দেওয়ার সুকৌশলী রাস্তা অবলম্বন করলেন এই তৃণমূল সাংসদ বলে অভিযোগ একাংশের। যদিও বা এসব করে লাভের লাভ কিছুই হবে না আইন আইনের পথে চলবে বলে দাবি করছেন বিশেষজ্ঞরা। সব মিলিয়ে গোটা পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়ায়, তৃণমূল সাংসদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে নারদ কর্তাকে জেরা করা নিয়ে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করে কিনা সিবিআই, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!